Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯, ১৭ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে বহু রাত কাটিয়েছেন অভিনেতা সুজয়প্রসাদ

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১০:৪৭ এএম

ভারতীয় বাংলা সিনেমা ‘বেলাশেষে’ দেখে থাকলে সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়কে চেনার কথা। নাম হয়ত অজানা থাকতে পারে কিন্তু চেহারা দেখে চেনা চেনা লাগবে। ওই যে, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর স্বামীর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন যিনি। যারা এখনও চিনতে পারছেন না তারা সিনেমাটি দেখে নিতে পারেন। ততক্ষণে তার সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ একটি তথ্য জানানো যাক।

সুজয়প্রসাদ একজন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। তবে অভিনয় দিয়ে তিনি দর্শকের মন জয় করে নিয়েছেন। যদিও ব্যক্তিগত জীবনে তিনি খুব অসুখী। বিয়ে-সংসার নিয়ে তার অন্য সবার মতো অনুভূতি কাজ করে। কিন্তু তিনি ভালো করে জানেন যে, তার বিয়ে হবে না।

এই বিষয়টি নিয়ে সুজয় ভারতীয় একটি গণমাধ্যমের কাছে মুখ খুলেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আসলে মাঝেমাঝে আমার মনে হয়, কোথাও কি অসম্পূর্ণতা রয়ে গেল? আমার তো কোনোদিন এমন সামাজিক স্বীকৃতি, বিয়ে হবে না। তাহলে এটা কি অসম্পূর্ণতা! এটা একটা অদ্ভুত দ্বৈরথ। তারপর মনে হলো এটা তো একটা সামাজিক অনুষ্ঠান। বন্ধুত্বযাপনের সঙ্গে এটার কোনো সম্পর্ক নেই।’

তবে একেবারে যে বিয়ের প্রস্তাব পাননি সুজয়, তা নয়। ‘বেলাশেষে’ ছবি মুক্তির পর অনেক বিয়ের প্রস্তাব এসেছিল তার কাছে। একটি মেয়ে তো প্রতিদিন তাকে মেসেজ করতেন। আরেকজন চিঠি লিখেছিলেন তাকে। এই প্রেমের প্রস্তাবগুলো কীভাবে সামলান তিনি?

সুজয়ের কথায়, ‘আমি তো মেয়েটিকে ডেকে বুঝিয়েছিলাম। ও বলেছিল সব মেনে নিয়ে আমার সঙ্গে থাকতে রাজি। আমার উত্তর ছিল কিন্তু আমি তো রাজি নই। আর পুরুষদের প্রেমটা একটু অন্যরকম হয়। অনেক বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে আমি রাত কাটিয়েছি। তাদের সঙ্গে দিনের পর দিন আমার সম্পর্ক ছিলাম। কিন্তু দেখেছি সেইসব পুরুষের কোনো অবস্থান ছিল না। কিন্তু আমি কোনো ঘর ভাঙিনি। তবে বিয়েটা আমার কাছে রূপকথার গল্পের মতো। যা শুনতে শুনতে ঘুমিয়ে পড়া যায়।’

এদিকে ব্যক্তিগত জীবনের এসব অপূর্ণতা পেছনে ফেলে অভিনয়ে ক্যারিয়ার গড়ছেন সুজয়। কাজও পাচ্ছেন অনেক। এই তো কিছুদিন আগেই একটি ইন্দো-ব্রিটিশ ছবির শুটিং শেষ করলেন অভিনেতা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টালিউড


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ