Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

কিয়েভকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ করতে হুঁশিয়ারি রাশিয়ার

পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণে সংলাপ স্থগিত ইউক্রেনে প্যাট্রিয়ট পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা নেই : যুক্তরাষ্ট্র ডোনেৎস্কে অগ্রসর হচ্ছে মিত্র বাহিনী ইউক্রেন পুনর্গঠনের জন্য ১ লাখ কোটি ডলার প্র

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:০২ এএম

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা গতকাল স্পুটনিক রেডিওকে বলেছেন, যতক্ষণ না ওয়াশিংটন ইউক্রেনকে অস্ত্র দেয়া বন্ধ না করছে ততক্ষণ পর্যন্ত রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রের সাথে পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণে ‘নিউ স্টার্ট চুক্তি’ নিয়ে আলোচনায় বসবে না। এদিকে, সাবেক রুশ প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভও মঙ্গলবার ইউক্রেনকে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা প্রদানের বিরুদ্ধে ন্যাটোকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি জোটটিকে ‘অপরাধী সত্তা’ হিসাবে নিন্দা করেছেন করেছেন যারা ‘চরমপন্থী শাসন’ এর কাছে অস্ত্র সরবরাহ করে আসছে।

জাখারোভা বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়া যে সংঘাতে জড়িত ছিল সেই অঞ্চলে আরও অস্ত্র পাঠানোর পরিকল্পনা করছে। সুতরাং, তারা সেই সমস্ত অস্ত্র সরবরাহ করতে থাকবে এবং কিয়েভ সরকারকে আরও রক্তপাত ঘটাতে সাহায্য করবে, এবং ব্যাঙ্কোভায়া স্ট্রিটে ব্যক্তিদের (যেখানে ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতির কার্যালয় অবস্থিত) অধীনে পরিচালিত চরমপন্থী কার্যকলাপের জন্য তহবিল বরাদ্দ করবে, যারা যুক্তিবাদী মানুষ হওয়া থেকে অনেক দূরে। তাহলে আমরা কিভাবে পারস্পরিক নিরাপত্তা সমস্যা নিয়ে তাদের সাথে আলোচনা করতে যাব?’

রাশিয়ান কূটনীতিকের মতে, মস্কো নিউ স্টার্ট চুক্তির অত্যন্ত প্রশংসা করে যা তিনি বলেছিলেন যে, রাশিয়া এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পারস্পরিক স্বার্থ পূরণ করে, তবে এটি আলোচনার জন্য উপযুক্ত শর্ত থাকতে হবে, তিনি জোর দিয়েছিলেন। সোমবার, রাশিয়ান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রাশিয়া-মার্কিন নিউ স্টার্ট চুক্তির অধীনে দ্বিপাক্ষিক পরামর্শমূলক কমিশনের একটি বৈঠক স্থগিত করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে যা মূলত কায়রোতে ২৯ নভেম্বর থেকে ৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সূত্র: তাস।

এদিকে, মেদভেদেভ, যিনি ২০০৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসাবে নিজেকে একজন উদার আধুনিকতাবাদী হিসাবে তুলে ধরেছিলেন, তিনি তার সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলগুলিতে পশ্চিমাদের নিন্দামূলক উস্কানির সমালোচনা করে ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের অন্যতম প্রবক্তা হিসাবে ক্রমবর্ধমানভাবে আবির্ভূত হয়েছেন। ‘যদি ন্যাটো ইউক্রেনীয় ধর্মান্ধদের ন্যাটো কর্মীদের সাথে প্যাট্রিয়ট সিস্টেম সরবরাহ করে, তারা অবিলম্বে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর একটি বৈধ লক্ষ্যে পরিণত হবে,’ মেদভেদেভ টেলিগ্রাম মেসেজিং অ্যাপে লিখেছেন। ‘সভ্য বিশ্বের এ সংস্থার প্রয়োজন নেই। এটিকে মানবতার কাছে অনুতপ্ত হতে হবে এবং একটি অপরাধী সত্তা হিসাবে বিলীন হতে হবে,’ তিনি একটি আগের পোস্টে লিখেছেন।

ইউক্রেন তার শক্তি অবকাঠামো রাশিয়ার আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে তাদের পশ্চিমা অংশীদারদের মার্কিন তৈরি প্যাট্রিয়ট সিস্টেম সহ বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা চাইছে। ন্যাটোর মন্ত্রীরা রাশিয়ার ‘ইউক্রেনের বেসামরিক এবং জ্বালানি অবকাঠামোর উপর অবিরাম এবং অসংবেদনশীল আক্রমণ’ বলে নিন্দা করেছেন এবং কিয়েভের জন্য তাদের সমর্থন বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

ইউক্রেনে প্যাট্রিয়ট পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা নেই : ইউক্রেনে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের নেই, পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্যাট রাইডার সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন। ‘এ মুহূর্তে আমাদের ইউক্রেনে প্যাট্রিয়ট ব্যাটারি সরবরাহ করার কোন পরিকল্পনা নেই তবে আবার, আমরা সেই আলোচনা চালিয়ে যাব,’ তিনি মঙ্গলবার নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছিলেন। ‘একটি চলমান আলোচনা যা অব্যাহত থাকবে,’ তিনি বলেছিলেন, ‘যখন আমাদের সেই ফ্রন্টে আরও ঘোষণা করার আছে, আমরা অবশ্যই করব।’

আগের দিন, ন্যাটোর সেক্রেটারি জেনারেল জেনস স্টলটেনবার্গ ন্যাটো মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের প্রথম দিনের পরে একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন যে, ন্যাটো ইউক্রেনে প্যাট্রিয়ট বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার সম্ভাব্য সরবরাহ নিয়ে আলোচনা করছে। একটি এয়ার ইন্টারসেপশন রকেট এবং একটি রাডার সিস্টেম নিয়ে গঠিত মার্কিন তৈরি প্যাট্রিয়ট এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম ব্যালিস্টিক এবং ক্রুজ মিসাইলের ওয়ারহেডকে আটকানোর জন্য ব্যবহৃত হয়।

ডোনেৎস্কে অগ্রসর হচ্ছে মিত্র বাহিনী : ডোনেৎস্কের মেরিঙ্কায় মিত্র বাহিনী প্রতিদিন তাদের অবস্থানের উন্নতি করছে এবং শহরে অগ্রসর হচ্ছে। ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের (ডিপিআর) ভারপ্রাপ্ত প্রধান ডেনিস পুশিলিন গতকাল এ তথ্য জানিয়েছেন। পুশিলিন চ্যানেল ওয়ান টেলিভিশনকে বলেন, ‘আমরা দেখতে পাচ্ছি আমাদের ইউনিটগুলো এখন প্রতিদিন তাদের অবস্থানের উন্নতি করছে এবং মেরিঙ্কার ভেতরেই অগ্রসর হচ্ছে।’ তার মতে, এখন পর্যন্ত শহর থেকে বেসামরিক লোকদের সরিয়ে নেয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই। ‘(একটি উচ্ছেদ) শুধুমাত্র মেরিঙ্কা সম্পূর্ণ মুক্ত হওয়ার পরেই হতে পারে,’ তিনি বলেন।

ইউক্রেন পুনর্গঠনের জন্য ১ লাখ কোটি ডলার প্রয়োজন : ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন যে, ইউক্রেনকে পুনর্গঠনের জন্য ১ লাখ কোটি ডলারেরও বেশি প্রয়োজন হবে এবং কিয়েভ পশ্চিমা দেশগুলিকে নির্দিষ্ট অঞ্চল এবং শহরগুলির উপর ‘পৃষ্ঠপোষকতা’ প্রদান করে এ প্রচেষ্টায় জড়িত করার পরিকল্পনা করেছে।

‘আমরা ইতিমধ্যেই ইউক্রেন পুনর্গঠনের প্রক্রিয়ায় কয়েক ডজন অংশীদার দেশকে নিযুক্ত করছি। কাজের পুরো পরিধি এক লাখ কোটি মার্কিন ডলারেরও বেশি (আনুমানিক),’ মঙ্গলবার ২০৩০ এক্সপো আয়োজনের জন্য ওডেসার প্রস্তাব উপস্থাপন করে তিনি বলেছিলেন। তার কথায়, তার দেশ জাতীয় সরকার এবং কোম্পানিগুলিকে একটি নির্দিষ্ট অঞ্চল, শহর, অর্থনৈতিক খাত বা এন্টারপ্রাইজ পুনর্গঠনে নিয়োজিত করার অনুমতি দিয়ে ‘পৃষ্ঠপোষকতা’ কর্মসূচি চালু করার পরিকল্পনা করছে।

প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, জার্মানি, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, ইতালি, তুরস্ক, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়াসহ কয়েকটি দেশ ইতিমধ্যে তাদের আগ্রহের ইঙ্গিত দিয়েছে। তবে এর আগে গত ২৫ অক্টোবর ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট তার দেশের পুনর্গঠনের জন্য অর্থায়নের প্রচেষ্টায় অনিচ্ছার কারণে অন্যান্য দেশগুলোর প্রতি কটাক্ষ করেছিলেন, যোগ করেছেন যে, কিয়েভ সরকার এখনও এ উদ্দেশ্যে ‘একটি মুদ্রাও’ পায়নি। সূত্র : তাস, বিবিসি নিউজ, রয়টার্স।



 

Show all comments
  • Naaz Islam ১ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৫০ এএম says : 0
    রাশিয়া একপ্রকার ন্যাটোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে !
    Total Reply(0) Reply
  • Naaz Islam ১ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৫০ এএম says : 0
    রাশিয়া একপ্রকার ন্যাটোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে !
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ