Inqilab Logo

রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ০৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

যুদ্ধে ১৩ হাজার সেনা নিহত হয়েছে, বিরল স্বীকোরক্তি ইউক্রেনের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ ডিসেম্বর, ২০২২, ১:৩১ পিএম | আপডেট : ২:৩৬ পিএম, ৪ ডিসেম্বর, ২০২২

শান্তি আলোচনার অংশ হিসেবে ইউক্রেন থেকে সম্পূর্ণভাবে সেনা প্রত্যাহারে পশ্চিমাদের দেয়া প্রস্তাব শুক্রবার প্রত্যাখ্যান করেছে রাশিয়া। ইউক্রেনে রাশিয়ান হামলা অব্যাহত রয়েছে এবং যুদ্ধে ১৩ হাজার ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছে বলে দেশটির একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আলোচনার জন্য উন্মুক্ত রয়েছেন তবে মস্কো প্রথমে ইউক্রেন থেকে তার সৈন্য প্রত্যাহার করবে পশ্চিমা এমন দাবি গ্রহণযোগ্য নয়। শুক্রবার সকালে পুতিন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজের সাথে ফোনে কথা বলার পরে পেসকভের এ মন্তব্য আসে। শলৎজের কার্যালয় বলেছে যে, তিনি পুতিনকে স্পষ্ট করেছেন যে ‘যত দ্রুত সম্ভব একটি কূটনৈতিক সমাধান হতে হবে, যার মধ্যে রাশিয়ান সেনা প্রত্যাহারের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।’

বৃহস্পতিবার, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে, তিনি পুতিনের সাথে কথা বলতে ইচ্ছুক হবেন যদি তিনি দেখান যে তিনি গুরুতরভাবে আক্রমণ বন্ধ করতে এবং ইউক্রেন থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে চান। শলৎজের সাথে ফোনালাপের পর ক্রেমলিনের একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পুতিন আবারও পশ্চিমাদের দোষারোপ করেছেন যে, ইউক্রেনকে অস্ত্র সরবরাহ করে যুদ্ধ দীর্ঘায়িত করতে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

পুতিন আরও বলেছেন যে, ইউক্রেনের অবকাঠামোর পঙ্গু করার সাম্প্রতিক রাশিয়ান হামলা ছিল ‘জোরপূর্বক এবং অনিবার্য’ কারণ ইউক্রেন ক্রিমিয়ান উপদ্বীপের একটি মূল সেতুতে বোমা হামলার করেছিল। রাশিয়ান বাহিনী অক্টোবর থেকে ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোতে বোমাবর্ষণ করছে, শীতের মধ্যে লাখ লাখ মানুষ বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পড়েছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির একজন শীর্ষ উপদেষ্টা মাইখাইলো পোডোলিয়াক চ্যানেল 24 টিভিতে সামরিক প্রধানদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেছেন যে, রাশিয়া ২৪ ফেব্রুয়ারী আক্রমণ করার পর থেকে ১০ থেকে ১৩ হাজার ইউক্রেনীয় সেনা অভিযানে নিহত হয়েছে। এটি ছিল ইউক্রেনের সামরিক হতাহতের বিষয়ে একটি বিরল মন্তব্য এবং পশ্চিমা নেতাদের অনুমানের চেয়ে অনেক কম। সূত্র: এপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন-রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ