Inqilab Logo

শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ০৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

কেন বসিয়ে বসিয়ে কোটি টাকা বেতন দেয়? সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা ক্ষুব্ধ কর্মীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০২২, ৭:৩৫ পিএম

দুনিয়াভর মানুষ যখন কাজ ছেড়ে ছুটি খুঁজছে, তখন তিনি আস্ত ব্যতিক্রম। ‘আসি যাই মাইনে পাই’ পছন্দ না একেবারে। তার ইচ্ছা পরিশ্রম করে উপার্জন করবেন। ঠিক এই কারণে নিজের সংস্থার উপর বেজায় চটেছেন। এমনকী সংস্থার কর্তাদের বিরুদ্ধে মামলা ঠুকেছেন আদালতে। ‘ফাঁকিবাজ’ পৃথিবী এই কর্মীর অভিযোগ শুনে চোখ কপালে তুলছে। ঠিক কী অভিযোগ আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনের রেলওয়েতে ফিন্যান্স ম্যানেজার পদে কর্মরত ডেরমট অ্যালস্টেয়ার মিলস?

তিনি অভিযোগ করেছেন, দীর্ঘ দিন অফিসে যাচ্ছেন বটে, তবে আদৌ কোনও কাজ দেওয়া হচ্ছে না তাকে। অথচ বছরে কোটি টাকারও বেশি বেতন দেওয়া হচ্ছে তাকে। এই চক্রান্তের বিরুদ্ধেই অফিসের বড় কর্তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মিলস। মিলসের অবিযোগ, ইচ্ছা করে তাকে কাজ করতে দেওয়া হয় না। এর পিছনে চক্রান্ত রয়েছে। কী সেই চক্রান্ত?

মিলসের দাবি, ২০১৪ সালে রেলের তহবিলের হিসাব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। গাফিলতির অভিযোগ করেছিলেন। এর পর থেকেই তাকে অস্বস্তিতে ফেলে চলেছে অফিসের বসেরা। কর্তৃপক্ষের কুনজরে তিনি। ইচ্ছে করে তাঁর কাজ কমিয়ে দেওয়া হয়। ইদানীং কাজ নেই বললেই চলে। নিয়ম মতো অফিসে এলেও সময় কাটে সংবাদপত্র পড়ে, খাওয়াদাওয়া ও হাঁটাহাঁটি করে। বড় জোর দু’একটা মেলের উত্তর দিতে হয়। এই অবস্থায় বিরক্ত মিলস ইদানীং সপ্তাহে মাত্র দু’দিন অফিস যাচ্ছেন। সেও নিয়ম রক্ষা ছাড়া কিছু না। মিলস বলেন, “নিজের কিউবিকলে গিয়ে বসি। কম্পিউটার অন করি। কিন্তু কাজের কোনও মেল নেই, মেসেজ নেই।”

দীর্ঘদিন এমনটা চলায় মৌখিক প্রতিবাদও করেছিলেন তিনি। কিন্তু কোনও ফল হয়নি। এরপরেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। নিজের আবেদনে মিলস জানিয়েছেন, কার্যত কোনও কাজ না করেই বছরে ১ লাখ ৫ হাজার পাউন্ড বেতন পাচ্ছেন। বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা! যা তার পক্ষে মেনে নেওয়া কোনও ভাবেই সম্ভব হচ্ছে না। পরিশ্রম না করে পারিশ্রমিক নিতে নারাজ তিনি। সূত্র: ডেইলি মেইল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ