Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

কুষ্টিয়ায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে

কুষ্টিয়া থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:০৪ পিএম

কুষ্টিয়ার সদর উপজেলায় যৌতুকের দাবিতে তানিয়া খাতুন বৃষ্টি (২১) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী উজ্জ্বল হোসেন ও তার পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে। রোববার (৪ ডিসেম্বর) সকালের দিকে উপজেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার পাটিকাবাড়ি ইউনিয়নের মাঝিলা গ্রামে স্বামীর বাড়িতে এঘটনা ঘটে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এঘটনায় থানায় অভিযোগ দিয়েছেন নিহতের বাবা।

তানিয়া খাতুন বৃষ্টি গোস্বামী দূর্গাপুর ইউনিয়নের নরহরিদিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে। তার স্বামী উজ্জ্বল উপজেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার পাটিকাবাড়ি ইউনিয়নের মাঝিলা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে। উজ্জ্বলের সাথে ৫ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় বৃষ্টির।

নিহতের বাবা আব্দুর রাজ্জাক অভিযোগ করে জানান, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে বৃষ্টির ওপর শারীরিক নির্যাতন চালাতেন উজ্জ্বল। কয়েকবার তাকে যৌতুকের টাকা দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি বাবার বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা যৌতুক এনে দেওয়ার জন্য বৃষ্টিকে চাপ দিচ্ছিলেন উজ্জ্বল। কিন্তু এ টাকা এনে দিতে রাজি না হওয়ায় রোববার সকালের দিকে উজ্জ্বলের নির্দেশে তার মা, বাবা, বোন ও বোনের স্বামী শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মুখে বিষ ঢেলে দিয়েছে। তারা পলাতক রয়েছে। আমি মেয়ে হত্যার বিচার চাই। থানায় মামলা নিচ্ছে না পুলিশ। আমি আদালতে মামলা করবো। আমার মেয়েকে যারা হত্যা করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

নিহতের মামা শাহাদুল ইসলাম বলেন, ৫ বছর আগে উজ্জ্বলের সাথে বৃষ্টির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে মারধর করতেন স্বামী। গত রোববার সকালে বৃষ্টির মৃত্যুর খবর শুনে তার শ্বশুরবাড়িতে ছুটে যায় আমরা। গিয়ে দেখি বৃষ্টির মুখে, ঘাড়ে, পায়ে সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। বৃষ্টিকে মারপিট ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে স্বামীর বাড়ির লোকজন। হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এবিষয়ে কথা বলার জন্য উজ্জ্বলের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এব্যাপারে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আননূর জায়েদ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়া গেলে প্রকৃত রহস্য জানা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ