Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৪ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

লিবিয়ার যাত্রীবাহী বিমান ছিনতাই করে মাল্টায় অবতরণ : যাত্রীরা মুক্ত

| প্রকাশের সময় : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : লিবিয়ার একটি যাত্রীবাহী বিমান ছিনতাই করে মাল্টায় অবতরণে বাধ্য করা হয়েছে এবং তার সব আরোহীকে বিমান থেকে চলে যেতে দেয়া হয়েছে। ১১১ জন যাত্রী ও ৭ জন ক্রুসহ বিমানটিকে একজন না দু’জন ছিনতাইকারী মিলে হাইজ্যাক করেছে সেটি পরিষ্কার নয়। মাল্টার কর্তৃপক্ষ যখন বিমানটির সাথে যোগাযোগ করে তখন বলা হয় যে তাদের কিছু দাবি মেনে নেয়া হলে সব যাত্রীকে মুক্তি দেয়া হবে। কিন্তু এসব দাবি কী এবং সেগুলো পূরণ করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।
সর্বশেষ খবরে বলা হয়েছে, বিমান ছিনতাইকারীরা আত্মসমর্পণ করেছে। তাদেরকে হেফাজতে নিয়েছে বলে মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন। ছিনতাইকারীরা বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সদস্য এবং মুয়াম্মার গাদ্দাফীর সমর্থক বলে জানা গেছে।
খবরে বলা হয়, আফ্রিকিয়া এয়ারওয়েজের এই ফ্লাইটের কমপক্ষে ৬৫ জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। বিমানটি সাবাহ থেকে ত্রিপোলির দিকে যাচ্ছিলো। এ সময় বিমানটিকে ছিনতাই করে মাল্টায় নিয়ে যাওয়া হয়। ছিনতাইকারীদের একজন দাবি করেন, তার কাছে একটি হ্যান্ড গ্রেনেড রয়েছে। তারা সেটি ফাটিয়ে বিমানটি উড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়।
প্রাথমিক খবরে জানা যায়, ছিনতাইকারীরা মাল্টায় রাজনৈতিক আশ্রয় চাইছিলো। সাবাহ শহরের মেয়র কর্নেল হামিদ আল-খায়েলিও বিবিসিকে একথা জানিয়েছেন।
লিবিয়ার পার্লামেন্টের একজন সদস্য, যিনি বিমানে থাকা তার একজন সহকর্মীর সাথে বলেছেন, তিনি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ছিনতাইকারীদের দাবি সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি। সাবা শহরের মেয়র বলেছেন, বিমানে একজন ছিনতাইকারী। তবে কোনো কোনো খবরে বলা হচ্ছে দু’জন। তিনি জানান, বিমানটিতে ১১১ জন যাত্রী এবং আরো সাতজন ক্রু রয়েছেন।
স্থানীয় সময় ১১টার পর বিমানটি সাবাহ থেকে ফ্লাই করে এবং তার দুই ঘণ্টা ২০ মিনিট পর অবতরণ করে মাল্টায়। মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাট বলেছেন, পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্যে তার দেশের নিরাপত্তা বাহিনীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মি. মাসকাট টুইট বার্তায় বলেছেন, যাত্রীদের ৮২ জন পুরুষ, ২৮ জন নারী এবং একটি শিশু। সাবাহ শহরের মেয়র বলেছেন, ‘বিমানের ভেতরে বিস্ফোরক কিম্বা অস্ত্র কীভাবে গেলো সেটা নিয়ে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে’। ইতোমধ্যে মাল্টা আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং নির্ধারিত সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। যেসব বিমানের নামার কথা ছিলো সেগুলোকেও অন্যদিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সূত্র : বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ