Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

পথশিশুদের সাথে গবি’র শিক্ষার্থীরা

| প্রকাশের সময় : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সবুজের মাঝে একটু খানি লাল বৃত্ত, আমাদের বিজয় নিশান। তাথৈ নামের সাত বছর বয়সের ফুটফুটে মেয়েটার রং-পেন্সিলের ঘষায় সফেদ সাদা কাগজে একটু একটু করে জীবন্ত হয়ে উঠছে ত্রিশ লাখ শহীদের উপহারের পতাকা। মেয়েটার অপরিপক্ব হাতে আঁকা এই পতাকার জন্মের সাথে সাথে দেশ পেয়েছে তার স্বাধীনতার ৪৬ বছরের শ্রেষ্ঠ উপহার। কেননা গত বিজয় দিবসেই যখন ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সমস্ত জাতি শ্রদ্ধায় অবনত মস্তকে ফুলে ফুলে মুড়িয়ে দিয়েছে শহীদ বেদী, তখন এই মেয়েটাও ছুটেছিল ফুল হাতে। কিন্তু পেটের ক্ষুদার কাছে পরাধীন মেয়েটা বিকিয়ে দিয়েছে হাতের নৈবিদ্য।    
কথাটা রূপকথা মনে হলেও, বছরের অন্যদিনগুলোর মতো ঘুম ভেঙে ময়লা কুড়োতে যাবার বদলে ফুল বিক্রি করার সৌভাগ্যই আমাদের এই পথশিশুদের বিজয় দিবসের আনন্দ। কিন্তু এবার সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধের সন্নিকটে নিরিবিলি এলাকার বস্তিতে বসবাসকারী কিছু পথশিশু এসেছে শিক্ষার আলোকতলে। সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেণ্ট (সিসিডি)-এর শিক্ষাপ্রকল্প বর্ণমালার অধীনে গণস্বাস্থ্য মেডিকেল কলেজ ও গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত পথশিশুদের ‘অ আ ক খ’ স্কুল দায়িত্ব নিয়েছে তাদের অক্ষর জ্ঞানসম্পন্ন করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ করে দেবার। আর এই প্রাথমিক শিক্ষায় সুযোগ প্রাপ্তদের নাম ঘোষণা উপলক্ষে মহান বিজয় দিবসে তাদের অভিভাবকদের উপস্থিতিতে বিদ্যালয়টি মেতে উঠেছিল এই আনন্দচ্ছল শিশুদের কলতানে। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় এই নিষ্পাপ শিশুদের রং তুলির জাদুতে আকাশে উড়েছে আরো কিছু স্বাধীন বাংলার পতাকা, দেশাত্মবোধক গান আর কবিতায় মুখরিত হয়েছে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ।  
বিদ্যালয়ের পরিচালক ডা. নাজমুল হোসাইন জানান, শিশুদের দেশপ্রেমিক করে গড়ে তোলার জন্যই বিজয় দিবসে এমন আয়োজন। এই সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা দেশের সত্যিকারের ইতিহাস জানবে, দেশকে ভালোবেসে এগিয়ে নিয়ে যাবে সেই স্বপ্নেই এই প্রচেষ্টা। তিনি বিশ্বাস করেন আর পাঁচটা শিশুর মতো এই নিষ্পাপ মুখগুলোও দেশের একেকটি সম্পদ।শিক্ষা ব্যবস্থা, শিক্ষা সামগ্রী আর একটু খানি পরিচর্যা এদের দেশের সম্পদে পরিণত করবে।
প্রতিযোগিতা শেষে খুদে বিদ্যার্থীদের পুরস্কার বিতরণী পর্বে শিশুদের আনন্দচঞ্চলতা কে প্রত্যক্ষ করে তিনি আশা প্রকাশ করেন, এগিয়ে আসবে তরুন প্রজন্ম সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা এমন হাজারো সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে। তাথৈদের মত শিশুরা বিজয়ের দিনে ফুল বিক্রি না করে, ফুল হাতে শহীদ বেদীতে নিবেদন করতে পারবে শ্রদ্ধার্ঘ্য। পবিত্র ওই হাতে দেশের জন্য আঁকবে বিজয় দিবসের উপহার, আমাদের পরিচয়, আমাদের জাতীয় পতাকা।      
ষ বিধান মুখার্জী, ছবি : মাইনুল হাসান



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।