Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯, ১৭ রজব ১৪৪৪ হিজিরী
শিরোনাম

ইউক্রেনের ৫ প্রদেশের গভর্নর বরখাস্ত

সরকারের মধ্যে বিরোধ চুরির অভিযোগে উপমন্ত্রী গ্রেফতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

গতকাল ইউক্রেনের ৫টি প্রদেশের গভর্নর এবং অন্যান্য সিনিয়র কর্মকর্তাদের বরখাস্ত করেছে জেলনস্কির সরকার। গত বছর রাশিয়ার আক্রমণের পর এটি হচ্ছে ইউক্রেনের যুদ্ধকালীন নেতৃত্বের সবচেয়ে বড় পরিবর্তন। এর আগে চুরির অভিযোগে উপমন্ত্রী ভ্যাসিল লোজিনস্কিকে গ্রেফতার করা হযেছে।

গতকালর পদত্যাগ করা বা বরখাস্ত করা এক ডজনেরও বেশি ইউক্রেনের সিনিয়র কর্মকর্তাদের মধ্যে কিয়েভ, সুমি, ডিনিপ্রোপেট্রোভস্ক, খেরসন এবং জাপোরোজিয়ে অঞ্চলের গভর্নররা ছিলেন। পাঁচটি অঞ্চলই গত বছর ধরে প্রধান যুদ্ধক্ষেত্র হয়েছে, ফলে সেখানকার গভর্নররাও যথেষ্ট জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। এদিকে পদত্যাগ করা কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন একজন উপ-প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, একজন ডেপুটি প্রসিকিউটর, প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির অফিসের একজন উপপ্রধান এবং আঞ্চলিক উন্নয়নের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত দুইজন উপমন্ত্রী। তাদের বেশিরভাগের বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়েছে।

ইউক্রেনের দুর্নীতি এবং নড়বড়ে শাসনের ইতিহাস রয়েছে। বর্তমানে তারা এটি দেখানোর জন্য আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে রয়েছে যে, তারা পশ্চিমা সহায়তায় কোটি কোটি ডলার সুষ্ঠুভাবে ব্যবহার করছে। জেলেনস্কির সহযোগী মাইখাইলো পোডোলিয়াক টুইট করেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট সমাজ দেখেন এবং শোনেন। এবং তিনি সরাসরি জনসাধারণের একটি প্রধান দাবির প্রতি সাড়া দেন - সবার জন্য ন্যায়বিচার।’ ১১ মাস আগে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে প্রথম বড় দুর্নীতির কেলেঙ্কারির মধ্যে একটিতে জেনারেটর কেনার চুক্তি থেকে ৪ লাখ ডলার চুরি করার অভিযোগে একজন উপ-পরিকাঠামো মন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করার দু’দিন পর এ রদবদল ঘটল। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে যে, উপ-প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ভ্যাচেসøাভ শাপোভালভ, সৈন্যদের সরবরাহের জন্য দায়ী, দুর্নীতির মিথ্যা মিডিয়া অভিযোগের পরে বিশ্বাস বজায় রাখতে পদত্যাগ করেছেন। এটি একটি সংবাদপত্রের প্রতিবেদনের অনুসরণ করে যে, মন্ত্রণালয় সৈন্যদের খাবারের জন্য অতিরিক্ত অর্থ প্রদান করেছে, যা মন্ত্রণালয় অস্বীকার করেছে।

প্রসিকিউটর অফিস ডেপুটি প্রসিকিউটর জেনারেল ওলেক্সি সিমোনেনকোকে বরখাস্ত করার কোন কারণ দেয়নি, যিনি স্পেনে ছুটি কাটাতে যেয়ে ইউক্রেনীয় মিডিয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। যদিও জেলেনস্কি তার ভাষণে কোনো কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করেননি, তবে তিনি কর্মকর্তাদের বিদেশে ছুটি কাটাতে নতুন নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছেন।

জেলেনস্কির অফিসের ডেপুটি চিফ অফ স্টাফ কিরিলো টিমোশেঙ্কো কোনো কারণ ছাড়াই নিজের পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি প্রেসিডেন্টের ২০১৯ সালের নির্বাচনী প্রচার চালাতে সাহায্য করেছিলেন এবং সম্প্রতি আঞ্চলিক নীতির তত্ত¡াবধানে ভ‚মিকা রেখেছিলেন। পরিবর্তনগুলি কিয়েভের যুদ্ধকালীন নেতৃত্বের একটি বিরল পরিবর্তন।

এদিকে, জরুরি সাহায্যের তহবিল থেকে ৪ লাখ ডলার চুরির অভিযোগে ইউক্রেনের অবকাঠামো উপমন্ত্রী ভ্যাসিল লোজিনস্কিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এ খবর প্রকাশের পর, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন যে, দুর্নীতির পুরানো উপায় ইউক্রেনে ফিরে আসবে না।

ইউক্রেনের দুর্নীতি বিরোধী সংস্থার মতে, লোজিনস্কি জেনারেটরের দাম বাড়ানোর জন্য ঠিকাদারদের সাথে যোগসাজশ করেছেন এবং সেখান থেকে বিপুল অর্থ আত্মসাত করেছেন বলে জানা গেছে। অন্যান্য জাতীয় ও আঞ্চলিক কর্মকর্তারাও এর সাথে জড়িত ছিলেন বলে জানা গেছে। গ্রীষ্মকালে, ইউক্রেনীয় সরকার পণ্য এবং প্রযুক্তির জন্য ১৬৮ কোটি রিভনিয়া (প্রায় ৩ কোটি ৬৭ লাখ পাউন্ড) বরাদ্দ করেছে যা শীতকালে এর জনসংখ্যার জন্য জ্বালানি, পানি এবং তাপের বিকল্প উৎস সরবরাহ করতে সহায়তা করবে।

শনিবার দুর্নীতিবিরোধী তদন্তকারীরা লোজিনস্কিকে আটক করে। একটি বিবৃতিতে, তারা বলেছে যে, তারা লোজিনস্কির অফিসে নগদ ৩৮ হাজার ডলার পেয়েছে। তারা ডলার এবং রিভনিয়া নোটের স্ত‚পের ছবি প্রকাশ করেছে। রোববার লোজিনস্কিকে সরকার থেকে বরখাস্ত করা হয়। অভিযোগের বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

যুদ্ধের আগে, দুর্নীতি কেলেঙ্কারি ইউক্রেনের রাজনৈতিক জীবনের প্রায় প্রতিদিনের বৈশিষ্ট্য ছিল। ২০২১ সালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের তালিকায় দেশটি ১৮০ এর মধ্যে ১২২ তম স্থান পেয়েছে, যা এটিকে বিশ্বের সবচেয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে একটি করে তুলেছে। ইইউ দুর্নীতি বিরোধী সংস্কারকে ইউক্রেনের ইইউ সদস্যপদ লাভের অন্যতম প্রধান প্রয়োজনীয়তা তৈরি করেছে। সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউক্রেন-রাশিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ