Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌
শিরোনাম

শিশুর পোশাক নির্বাচনে আরামের দিকে লক্ষ রাখুন

| প্রকাশের সময় : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

শিশু হলো আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। শিশু হলো প্রকৃতির মাঝে ফুটন্ত ফুলের মতো। একজন মা-ই এই শিশুকে ফুলের মতো রাখতে সুস্বাস্থ্যের প্রথম সোপান তৈরি করে দিতে পারেন। আপনাকে বুঝতে হবে শিশুটির কখন কি প্রয়োজন। শিশু কথা বলার আগে তার সমস্যার কথা প্রকাশের মাধ্যম হিসেবে সে বেছে নেয় কান্না। তাই মাকেই শিশুর কান্নার কারণ বুঝতে হবে। শিশু ক্ষুধার জন্য কাঁদতে পারে, বিছানা ভিজালে কাঁদতে পারে, মশা মাছির যন্ত্রণায় কাঁদতে পারে। ঠিক তেমনি একটি কারণ শিশুর পোশাক। হ্যাঁ। আপনার শিশু কোন ধরনের পোশাকে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে তা আপনাকে বুঝতে হবে।  অনেক শিশুই মোটা একগাদা পোশাক পছন্দ করে না। এই ধরনের পোশাকে শিশুরা অস্বস্তি বোধ করে আর তাই শিশুর অস্বস্তি ভাবটা কাটার জন্য হালকা-পাতলা পোশাক দিন।
এখন যে ভ্যাপসা গরম, এতে শিশুরা ঘেমে যায়। আর এই ঘাম মোটা পোশাকের মাধ্যমে শরীরে বসে গিয়ে শিশুর নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। জন্মের পর থেকে ২ বছর পর্যন্ত শিশুকে পাতলা ভয়েল কাপড়ের পোশাক পরাতে পারেন। পাতলা কাপড়ের মধ্যে হালকা রংয়ের চমৎকার সূতির নানা রকমের কাপড় রয়েছে।  এসব কাপড় শিশুর পোশাকের জন্য ব্যবহার করতে পারেন। পাতলা কাপড়ে হালকা মিষ্টি রংÑ এই ধরনের পোশাক শিশুর জন্য রুচিশীল ও সৌন্দর্যের দিক থেকে নিঃসন্দেহে নির্বাচনযোগ্য। শিশুরাও এ ধরনের পোশাকে আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। দিনে ২-৩ বার শিশুর পোশাক চেঞ্জ করে দিন। বেশি ঘামলে গা মুছে দিন। বাড়তি সৌন্দর্যের জন্য শিশুর পোশাকে নানা রকমের ডিজাইন দিতে পারেন। নানা রকমের সুতা ম্যাচিং করে ফুল-পাতা এমব্রয়ডারি নানারকমের লেস ও ক্রুশ কাঁটার ডিজাইন দিতে পারেন। খুব ছোট শিশুর জন্য বয়েল কাপড়ের নিমা মার্কেটে পাওয়া যায়। একটু বড় শিশুর পোশাকের জন্য রুচি ও সৌন্দর্যের দিকে লক্ষ্য রাখুন। মেয়ে শিশুকে হাতা ছাড়া পেছনে ফিতা অথবা বোতাম দিতে দিতে পারেন। নিচে লেস, গলা পাইপিন, বুকে কুচি। এবার নকশি সুতা ম্যাচিং করে ফুটিয়ে তুলতে পারেন চমৎকার সব ডিজাইন। শিশুর যতেœর প্রতি সবচেয়ে বেশি লক্ষ্য রাখুন। আপনার বহুমুখী সমস্যার মাঝেও শিশুই আপনার ঘরের প্রকৃত সৌন্দর্য ও ফুটন্ত ফুলের মতো। আর তাই যতেœর সাথে শিশুর পরিচর্যা করুন।
য় সাদিয়া তাসু



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ