Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯, ০৯ চৈত্র ১৪২৫, ১৫ রজব ১৪৪০ হিজরী।

চিকিৎসক উপস্থিতি নিশ্চিতে বিএমএ স্বাচিপ’র সহযোগিতা চাইলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : কর্মস্থলে চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর সহযোগিতা চাইলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বিশেষ করে উপজেলায় চিকিৎসক বদলি বা অনুপস্থিতির কারণে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিলে বিএমএ বা স্বাচিপ নেতৃবৃন্দ যেন কোনো তদবিরকে প্রশ্রয় না দেন, সেদিকে সচেতন থাকার জন্য মন্ত্রী আহ্বান জানান। গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে হাসপাতালে চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে করণীয় বিষয়ে বিএমএ ও স্বাচিপ নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে একথা বলেন।
সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসকদের অনুপস্থিতির অভিযোগ আগের চাইতে কমে আসলেও তা এখনো সন্তোষজনক পর্যায়ে উন্নীত হয়নি। এজন্য সরকার নজরদারি বাড়াতে বেশ কিছু উদ্যোগ নিচ্ছে। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত চিকিৎসকদের সেবা প্রদান কার্যক্রম মনিটরিং করার পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সরকারের গৃহীত সকল পদক্ষেপের সফল বাস্তবায়নের জন্য পেশাজীবী সংগঠন হিসেবে বিএমএ এবং স্বাচিপকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। সভায় চিকিৎসক নেতৃবৃন্দ তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে সরকারের যেকোনো পদক্ষেপে সহায়তা করার আশ্বাস প্রদান করেন। শৃঙ্খলা ভঙ্গকারী বা কাজে অবহেলা প্রদর্শনকারী চিকিৎসকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষেত্রে কোনোভাবেই সরকারের কাছে কোনো তদবির করা হবে না বলেও তাঁরা মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, অতিরিক্ত সচিব বিমান কুমার সাহা এনডিসি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. দীন মো. নুরুল হক, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ওয়াহিদ হোসেন, বিএমএ সভাপতি প্রফেসর ডা. মাহমুদ হাসান, মহাসচিব প্রফেসর ডা. ইকবাল আর্সলান, স্বাচিপ-এর মহাসচিব ডা. আবদুল আজিজ, বিএমডিসি সভাপতি প্রফেসর ডা. শহীদুুল্লাহ্সহ মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং বিএমএ ও স্বাচিপ এর উচ্চ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
তৃণমূল পর্যায়ের স্বাস্থ্যসেবায় সুইডিশ রাষ্ট্রদূতের সন্তোষ
বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত জোহান ফ্রিসেল, বাংলাদেশের গ্রাম পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিকসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি বিভিন্ন সময় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পরিদর্শনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তৃণমূলের মানুষের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেওয়ার সরকারি উদ্যোগকে সন্তোষজনক বলে অভিহিত করেছেন।
সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করতে এসে এই অভিমত ব্যক্ত করেন। এ সময় তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশেষ করে স্বাস্থ্যখাতের অগ্রগতিতে সুইডেনের দীর্ঘদিনের সহায়তার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ দ্রুত মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হতে চলেছে। বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতও আজ অনেক উন্নত। সুইডেনের হাসপাতাল যন্ত্রপাতি প্রস্তুতকারী, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত প্রতিষ্ঠান, ওষুধ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে বাংলাদেশে এসে বিনিয়োগ করতে পারে এমন পরিবেশ সৃষ্টিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সহায়তা চাইলেন সুইডিশ রাষ্ট্রদূত।
মন্ত্রী এসময় সুইডেনকে বাংলাদেশের উন্নয়নের অন্যতম বিশ্বস্ত বন্ধু হিসাবে আখ্যায়িত করে বলেন, বাংলাদেশের জনগণ সুইডেনের কাছে কৃতজ্ঞ। এ দেশের স্বাস্থ্যখাতে সুইডেনের সহযোগিতা আরো সমৃদ্ধ হবে বলে মন্ত্রী এসময় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি এদেশের স্বাস্থ্যখাতে সহায়তা প্রদানের জন্য সুইডেনের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়ে তাঁদেরকে সব ধরনের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন। পরে মোহাম্মদ নাসিম বাংলা একাডেমীর বই মেলা চত্বরে নজরুল মঞ্চে কবি আলম তালুকদারের ছড়া গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন