Inqilab Logo

সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

৫ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও ২ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

ডিএনসিসি’র অভিযান

| প্রকাশের সময় : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর ফার্মগেট, গ্রিনরোড ও তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার তিব্বত গলিসহ বিভিন্ন স্থানে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে। এসময় বিভিন্ন অপরাধে ৫ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
ডিএনসিসি অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম অজিয়র রহমান ও উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে গতকাল বৃহস্পতিবার আলাদা দুটি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
ডিএনসিসি অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম অজিয়র রহমানের নেতৃত্বে গতকাল সকালে রাজধানীর ফার্মগেট ও গ্রিনরোড এলাকায় ফুটপাত দখলকারী ৩ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এসময় ৫টি রেস্টুরেন্টের বিরুদ্ধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের অধীনে ৫টি মামলা ও ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়াও উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ারের নেতৃত্বে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার তিব্বতের গলিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। গতকাল সকালে এ অভিযান শুরু হয়। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুম আলী বেগ, ডিএনসিসি’র সম্পত্তি কর্মকর্তা, ডেসা’র প্রতিনিধি ও স্থানীয় থানার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার।
উচ্ছেদ অভিযানে প্রায় দুই শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট ভেঙে দেওয়া হয়। তবে ভাঙা পড়েনি একটি ছাপড়া মসজিদসহ ২৪নং ওয়ার্ড শিল্পাঞ্চল থানা আওয়ামী লীগের অফিস ও ১নং যুবলীগ কার্যালয়।
তিব্বত গলির মোড়ের ফুটপাত দখল করে গড়ে ওঠা মাল্টিব্র্যান্ড ওয়ার্কশপের গ্যারেজ ভেঙে দেওয়া হয়। এছাড়া প্যাট্রিয়ট গ্রæপের জেনারেটর রুমসহ বর্ধিত অংশ ভেঙে ফেলা হয়।
উত্তর সিটি কর্পোরেশনের এই উচ্ছেদ অভিযানে ফুটপাথে ঝুপড়ি ঘর করে থাকা ছিন্নমূল মানুষের ঘরবাড়ি গুড়িয়ে দেওয়া হয়। দীর্ঘ দিন থেকেই ফুটপাথে অবৈধভাবে বসবাস করছিলেন এসব ছিন্নমূল মানুষ। স্থানীয় নেতাদের মাসিক ৩ হাজার টাকা ভাড়া দিয়েই থাকতেন বলে জানান মরিয়ম নামের এক নারী।
তিনি বলেন, এখানে কয়েকজন আছেন তারা মাসিক তিন হাজার টাকার বিনিময় ফুটপাথে ঘর করার সুযোগ করে দেন। একটু ফাঁকা জায়গা পেলেই ঘর তুলে থাকতে দেন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার বলেন, আমাদের মেগা প্রজেক্টের আওতায় এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে। এরআগে গত বুধবার একই এলাকার আরও কয়েকটি গলিতে উচ্ছেদ করা হয়।
তিনি বলেন, শুধু তেজগাঁও নয় ডিএনসিসি’র সকল এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান করা হবে। যেখানে অবৈধ স্থাপনা সেখানেই উচ্ছেদ করা হবে।
একই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ার গতকাল বিকেলে বনানী ৫৩ নম্বর রোডে অভিযান চালিয়ে ৩টি রেস্টুরেন্ট এবং ২টি হার্ডওয়ার দোকানকে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। রেস্টুরেন্ট ৩টির বিরুদ্ধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের অধীনে অস্বাস্থ্যকর রান্নাঘর এবং পঁচা খাবার রাখার দায়ে ৩টি মামলা করা হয়। এছাড়া স্থানীয় সরকার আইনের অধীনে ২টি হার্ডওয়ার দোকানের বিরুদ্ধে ২টি মামলা করা হয়।
পাশাপাশি ৩০টির বেশি দোকানকে সতর্ক করা হয়। সেই সাথে ফুটপাতের উপর বিদ্যমান এদের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জরিমানা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ