Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

বাসায় ঢুকে এমপি লিটনকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১:১৩ এএম, ১ জানুয়ারি, ২০১৭

অল্প সময়ের মধ্যে খুনিদের গ্রেফতার করব : আইজিপি
সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) উপজেলা সংবাদদাতা : গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হয়েছেন। গতকাল (শনিবার) সন্ধ্যা  পৌনে ৬টার দিকে এমপির বামনডাঙ্গা মাস্টারপাড়াস্থ নিজ বাসায় তিনি গুলিবিদ্ধ হন।
জানা গেছে, শনিবার এমপি তার নিজ বাসায় অবস্থান করছিলেন। এ সময় অপরিচিত ৩ জন যুবক মোটরসাইকেলে এসে এমপির সাথে দরকার আছে বলে তার কক্ষে ঢুকে অতর্কিতে এলোপাতাড়ি গুলি করে মোটরসাইকেলেই পালিয়ে যায়। দুর্র্বৃত্তের গুলি এমপির বুকের ডান পাশে ও পায়ে লাগে। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা প্রভাষক আলমগীর হোসেন জানান, দুর্বৃত্তরা রিভলবার দিয়ে এমপিকে গুলি করে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত এমপিকে পুলিশ পাহারায় দ্রুত রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে ভর্তির কিছুক্ষণ পরই তার মৃত্যু হয়। আহত এমপির সাথে থাকা শ্যালক আবু নাসের মিরান মোবাইল ফোনে জানান, এমপিকে হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়ার কিছুক্ষণ পরই তিনি মারা যান। সংসদ সদস্যের স্ত্রী খোরশেদ জাহান বলেন, মাগরিবের নামাজের পরপর মোটরসাইকেলে অজ্ঞাত পরিচয় তিন যুবক বাড়িতে এসে গুলি করে পালিয়ে যায়। এমপি লিটনের কর্মচারী জুয়েল বলেন, সন্ধ্যায় মোটরসাইকেলে পাঁচ যুবক স্যারের কাছে আসেন। এদের মধ্যে তিনজন ঘরে ঢুকে স্যারের সাথে কথা বলতে না বলতেই এলোপাতাড়ি গুলি করে চলে যায়।
এদিকে এমপি গুলিবিদ্ধ হওয়ার প্রতিবাদে বামনডাঙ্গা ও সুন্দরগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দুর্বৃত্তদের  গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। মৃত্যুর খবর  সুন্দরগঞ্জে পৌঁছলে শহরের লোকজন দিগি¦দিক ছোটাছুটি করে চলে যায়। বর্তমানে সুন্দরগঞ্জে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।  থানা অফিসার ইনচার্জ আতিয়ার রহমান ও অফিসার ইনচার্জ তদন্ত আবু হায়দার আশরাফুজ্জামান জানান, এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি, তবে আমাদের সাঁড়াশি অভিযান চলছে।

লিটনের খুনিদের দ্রুত খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
ইনকিলাব ডেস্ক
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গাইবান্ধা-১ আসন থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে খুনীদের খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দেশ যখন উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে তখন একটি মহল দেশে অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করে স্বার্থ হাসিলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে। হত্যা ও সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে যা কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না।’
তিনি বলেন, তাদের হত্যার রাজনীতির পথ ধরেই তারা নির্বাচিত সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকে হত্যা করেছে। প্রধানমন্ত্রী অবিলম্বে খুনিদের খুঁজে বের করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশ দেন এবং স্থানীয় জনগণকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানান। শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন ও তার রূহের মাগফিরাত কামনা করেন।
স্পিকারের শোক
স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য মো: মন্জুরুল ইসলাম লিটনের নিহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। গতকাল এক শোকবার্তায় স্পিকার বলেন, সংসদ সদস্য মো. মন্জুরুল ইসলাম লিটন ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী একজন সম্ভাবনাময় রাজনীতিবীদ। তার মৃত্যুতে একটি সম্ভাবনার অকাল মৃত্যু হয়েছে। স্পিকার তার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি হত্যাকারীকে চিহ্নিত করে বিচার নিশ্চিত করার মাধ্যমে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার আহবান জানিয়েছেন।
এ ছাড়াও গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য মো. মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের নিহতের ঘটনায় ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া এবং চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শোক
আততায়ীর গুলিতে গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। গতকাল সন্ধ্যায় এই মর্মান্তিক হত্যাকান্ডের পর এক শোকবার্তায় মন্ত্রী মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. আবু নাছের স্বাক্ষরিত প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ শোকবার্তার কথা জানানো হয়।

অল্প সময়ের মধ্যে খুনিদের গ্রেফতার করব : আইজিপি
ইনকিলাব ডেস্ক : পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, গাইবান্ধার সাংসদ মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যায় জড়িত ব্যক্তিদের অল্প সময়ের মধ্যে গেফতার করা হবে। সাংসদ হত্যার ব্যাপারে আইজিপি গতরাতে এ কথা বলেন।
শহীদুল হক বলেন, এমপি বাসায় ফেরার পর টহল পুলিশকে বিদায় করে দেন। এরপর এই খুনের ঘটনাটি ঘটেছে। এলাকাটি জামায়াত-অধ্যুষিত। এলাকার সাধারণ লোক ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বলছেন, খুনের সঙ্গে জামায়াত-শিবির জড়িত থাকতে পারে। জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন এমপি।
গতকাল সন্ধ্যায় গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের এমপি মনজুরুল ইসলাম সুন্দরগঞ্জে তার নিজ বাসায় গুলিবিদ্ধ হয়ে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।



 

Show all comments
  • Zaman ১ জানুয়ারি, ২০১৭, ১১:০৫ এএম says : 0
    ২০১৬ শুরু করেছিল শিশুকে গুলি করে, ২০১৬ শেষ দিনে বাসায় ঢুকে এমপি লিটনকে গুলি করে হত্যা, হে আল্লাহ তাকে ক্ষমা করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • তাজরিয়া ১ জানুয়ারি, ২০১৭, ১১:০৭ এএম says : 0
    দেশে কি এমপিরাও নিরাপদ না ?
    Total Reply(0) Reply
  • ফোরকান ১ জানুয়ারি, ২০১৭, ১১:০৯ এএম says : 0
    দ্রুত সময়ের মধ্যে আসল অপরাধীদের গ্রেফতার করা হোক
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ