Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ইউরোপজুড়ে তুষারপাত ঠান্ডায় জনজীবন স্থবির

| প্রকাশের সময় : ৯ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ইউরোপজুড়ে এক সপ্তাহ ধরে চলা ভয়াবহ তুষারপাত ও প্রচন্ড ঠান্ডায় জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। সপ্তাহান্তে অবস্থার অবনতি ঘটতে পারে বলে আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। ইউক্রেনের আবহাওয়া পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ। দেশটিতে সবচেয়ে বেশি ১০১ জনের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে কমপক্ষে সাতজন মৃত্যুবরণ করেছে। তাদের মধ্যে পাঁচজন গৃহহীন। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তারা মারা গেছে বলে খবরে বলা হয়েছে। তাপমাত্রা মাইনাস ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াস বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে এ ধরনের খারাপ আবহাওয়া পরিলক্ষিত হয়নি। গত বছরের ভূমিকম্পের কারণে যে ক্ষতি হয়েছিল এবারের আবহাওয়া তার চেয়ে বেশি। গত শনিবার সকালে কয়েকটি বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়, বেশ কিছু ফেরি সংযোগ এবং দক্ষিণ ইতালীয় উপকূল বন্ধ রাখা হয়। এএফপির হিসেব অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে ইউরোপে প্রচন্ড ঠান্ডায় এ পর্যন্ত ২২৩ জন মারা গেছে।
খবরে বলা হয়, প্রতিকূল আবওয়ার কারণে কোন কোন দেশের রাস্তায় মানুষকে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সাইবেরিয়ার পার্বত্যাঞ্চলীয় গ্রামগুলোতে হাজার হাজার লোক আটকা পড়েছে। ইতালির বিখ্যাত জল বেষ্টিত নগরী ভ্যানিসের খালের পানি জমে গিয়ে বরফ হওয়া শুরু করেছে। এমনকি রোমও তুষারে ঢেকে গেছে। ইউরোপের চেক রিপাবলিকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে দেশটির তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৩৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস (মাইনাস ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট)। গত শুক্রবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের কর্মকর্তারা জানান, নয়টি দেশে রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ হ্রাস পেয়েছে। প্রচন্ড ঠান্ডায় দেশটির বৃহৎ গ্যাস সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান গ্যাজপ্রোমের কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। অস্ট্রিয়ায় ও ইতালিতে কোম্পানিটির গ্যাস সরবরাহের পরিমাণ যথাক্রমে ৩০ ও ২৪ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। ইউক্রেনের জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশটিতে ঠান্ডায় ১০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের ৬৪ জন রাস্তায় মারা গেছে। প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে শরীরের বিভিন্ন অংশ অবশ হয়ে যাওয়ায় ও হাইপোথার্মিয়ার কারণে প্রায় ১ হাজার ৬০০ লোক চিকিৎসকের শরণাপন্ন হয়েছে এবং সহস্রাধিক লোক অস্থায়ী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, পোল্যান্ডের তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে অবস্থান করছে। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ঠান্ডায় জমে গিয়ে আরো ৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এই নিয়ে এক সপ্তাহ আগে তুষারপাত শুরু হওয়ার পর দেশটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৭ জনে। শুক্রবার পোল্যান্ডের কিছু কিছু এলাকার তাপমাত্রা হিমাঙ্কের ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে দাঁড়িয়েছে। স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, বুলগেরিয়ার দানিয়ুব নদীর কিছু অংশ জমাট বেঁধে বরফে পরিণত হয়েছে। দেশটিতে আরো ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে গত এক সপ্তাহে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১৬ তে দাঁড়ালো। ইউরোপীয় ইউনিয়নের দরিদ্রতম দেশগুলোতেই অধিকাংশ মৃতের ঘটনা ঘটেছে। ওই দেশগুলোর গ্রামবাসীদের রাস্তার পাশে অথবা তাপ উৎপাদনকারী যন্ত্রবিহীন ঘরে মরে থাকতে দেখা গেছে।
বিরূপ আবহাওয়ার কারণে বুলগেরিয়ার এক সহস্রাধিক স্কুল তৃতীয় দিনের মতো বন্ধ রয়েছে। পার্শ্ববর্তী দেশ রোমানিয়ায় আরো দুই জনের মৃত্যুর কারণে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ২৪ জনে দাঁড়িয়েছে। দেশটির কয়েকশ স্কুল বন্ধ রয়েছে। ইতালির মিলানে গত কয়েক দিনের দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে তিন জনের মৃত্যু ঘটেছে। এদের মধ্যে বৃহস্পতিবার একজন গৃহহীন লোককে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে। এস্তোনিয়ার তাল্লিনের একটি রাস্তায় একজন লোক ঠান্ডায় জমে মারা গেছে। দেশটিতে এটা প্রথম মৃত্যুর খবর। ফ্রান্সেও প্রথম ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ৮২ বছর বয়সী লোকটি প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে অ্যালঝেইমারে ভুগে মারা যান। ফ্রান্সের পূর্বাঞ্চলীয় গ্রাম লেমবার্গে নিজের বাড়িতে তিনি মারা যান। তার পরনে ছিল শুরু একটি পায়জামা। সাইবেরিয়ায়ও এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। ইউরোনিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ