Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

দুঃখ উড়ল ফানুশে

| প্রকাশের সময় : ৯ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইংরেজি বছরের শেষ দিন, থার্টিফার্স্ট হিসেবেই পরিচিত। এই দিনটিকে ঘিরে সমগ্র পৃথিবীজুড়েই থাকে নানা আয়োজন। যা দিন দিন আমাদের দেশে পরিচিতি লাভ করছে ভয়াবহভাবে। বর্তমান সময়ে থার্টিফার্স্ট নাইট মানেই নানা ধরনের মাদকের ছড়াছড়ি। বাধ্য হয়ে আমাদের দেশের প্রশাসনকে নিতে হচ্ছে নানা ধরনের পদক্ষেপ। তবুও প্রশ্ন থেকেই যায় আসলে প্রশাসন এতে কতটা সফল? গণ বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বাস করে যে এ বিশ্ববিদ্যালয় একটি ব্যতীক্রমধর্মী বিশ্ববিদ্যালয়। পাবলিক বা অন্যান্য প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের মত নয়। তাই ব্যতীক্রম সকল বিষয়েই এদের মনোযোগ একটু বেশিই। এর পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) ইংরেজি বছরের শেষদিনে প্রথমবারের মত সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা সন্ধ্যা ৬টায় ফানুশ উড়ানোর মধ্য দিয়ে পুরাতন বছরের সকল দুঃখগুলোকেও উড়িয়ে দেয় আকাশে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। প্রথমে তেমন গুরুত্ব না দিলেও ফানুশ উড়ানোর সময় শিক্ষার্থীরা অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে আকাশের দিকে যেন ফানুশের সাথে কালো ধোঁয়া হয়ে মনের দুঃখগুলো মিলিয়ে যাচ্ছে আকাশে। দূর থেকে দূরে, আরও দূরে। ফার্মেসী বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী শুভ ও প্রীতি ফানুশ দেখতে দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের হাজারো স্মৃতি নিয়ে ভাবনা শুরু করে। পাশ থেকে মৌসুমী বলেন, ফানুশ উড়ানোর সময় মনে হচ্ছিল গত বছরের সকল কষ্টগুলো যেন ফানুশের সাথেই হাওয়ায় উড়ে যাচ্ছে। শৈশবকাল থেকে এ পর্যন্ত অনেকবার নিজ হাতে ফানুশ তৈরি করেছেন সিএসই বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী পারভেজ ও পৃথিবী রহমান কিন্তু এই প্রথমবার ফানুশ উড়াতে গিয়ে কাঁদতে দেখা গেল তাদের। নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর জন্য প্রাকৃতিক খড় (ছন) দিয়ে ২০১৭ লিখে আগুন জ্বালানো হয়। হাসান রহানী ও প্রিন্স আগুন জ্বালাতে গিয়ে ফিরে পান তাদেও শৈশবের সেই দিনগুলোকে যা শীতের সকাল বা সন্ধ্যায় আর আগের মত পোহানো হয়ে উঠে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষেই এরকম ব্যতিক্রম অনুষ্ঠানের মাধ্যমে থার্টিফার্স্ট পালন করতে পেরে শুভ মিস্ত্রী, তামান্না, নিহারীকা, ফাহমিদা, মার্জিয়া, মহুয়া ও তাহনিয়াতসহ উপস্থিত অনেকে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। আয়োজক কমিটিও সকলের সাড়া পেয়ে ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশ্বাস দেন আয়োজক কমিটির সদস্য এআই আশিক। তিনি মনে করেন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে এরকম ভিন্ন সাংস্কৃতি চর্চায় ক্যাম্পাসের সুনাম অনেক দূরে এগিয়ে যাবে। একটি ভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত না থাকতে পেরে হতাশায় ভেঙ্গে পড়েন দেরিতে আসা শিক্ষার্থীরা। তবে আগামী বছর অবশ্যই এ অনুষ্ঠান তারা পালন করবে এবং মাদকহীন থার্টিফার্স্ট পালনে সকলের প্রতি আহ্বান করেন।
ষ এস এম আহমেদ মনি ও আরিফুল ইসলাম
ছবি : শাহাদাত রাফি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।