Inqilab Logo

সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ব্যক্তি সমাজ রাষ্ট্রকে রাসূলের (সা.) আদর্শে পরিচালনা করতে হবে -পীর সাহেব চরমোনাই

| প্রকাশের সময় : ৯ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর, চরমোনাইয়ের পীর সাহেব মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেছেন, ইসলাম পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। ব্যক্তি সমাজ রাষ্ট্রকে রাসূলের (সা.) আদর্শে পরিচালিত করতে হবে। জীবনের সর্বক্ষেত্রে ইসলামের বিধি-বিধান অনুসরণ করতে হবে। গতকাল (রোববার) নগরীর পলোগ্রাউন্ড ময়দানে বাংলাদেশে মুজাহিদ কমিটি চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে তিনি একথা বলেন।
পীর সাহেব বলেন, মানুষের হক, ধন-সম্পদ আত্মসাৎ, সরকারি কর্মচারী হলে দুর্নীতি, চাকরির দায়িত্বে অবহেলা, ফাঁকিবাজি এবং ব্যবসায় ও বেচা-বিক্রিতে ভেজাল, ওজনে কম দেয়া থেকে সতর্ক থাকতে হবে। তিনি বলেন, আল্লাহর হক কান্নাকাটি আর আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাওয়ার দ্বারা মাফ পাওয়া যাবে, কিন্তু বান্দার হকে কোনো ক্ষমা নেই।
বাদ ফজর আখেরি মোনাজাতের পূর্ব বয়ানে চরমোনাইয়ের পীর সাহেব মিথ্যা কথা, মানুষের গিবত, পরনিন্দা, লোভ, কৃপণতাসহ যাবতীয় আত্মিক রোগ থেকে ভক্ত-মুরীদদেরকে বেচে থাকার জন্য নির্দেশনা দেন। যুবকদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, ধর্মীয় ও জাগতিক জ্ঞানে সমৃদ্ধ হয়ে দেশগঠনে এগিয়ে এসো। মাদকতা, ইভটিজিং, যৌতুক, সন্ত্রাস ও লেজুড়বৃত্তির রাজনীতি দেশকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত করেছে। পীর সাহেব চরমোনাই এ সকল অন্যায়-অবিচার থেকে নিজের সন্তান ও দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে বাঁচানোর জন্য ভক্ত-মুরীদদের প্রতি নির্দেশনা দেন।
পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, রাজনীতিতে কেউ নিয়ে এসেছেন নৌকা, কেউ নিয়ে এসেছেন ধানের শীষ। ৪৫ বছরে যারা ক্ষমতায় গিয়েছেন তাদের অধিকাংশই দুর্নীতি, সন্ত্রাসীদের লালন, জনগণের সম্পদ আত্মসাৎ করেছেন। তিনি বলেন, ভোট শুধু একটি সিল মারার নাম নয়। ভোটের মাধ্যমে প্রার্থীদের চুরি-দুর্নীতিরও সমর্থন করা হয়। কাল কিয়ামতের ময়দানে এ ভোটেরও হিসেব হবে উল্লেখ করে পীর সাহেব বলেন, আজীবন নামায-রোজা ও আট-দশবার হজ করেও শেষবিচারের দিনে শুধুমাত্র দুর্নীতিবাজদেরকে সমর্থনের কারণে চুরি-ডাকাতির আসামী হিসেবে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুস আহমদ, আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী, মাওলানা হুসাইন আহমদ, ড. আ ফ ম খালেদ হোসাইন, ড. বেলাল নুর আজীজ, মুফতী সৈয়দ আবুল খায়র মুহাম্মদ ইসহাক, চবির আরবি বিভাগের প্রভাষক মুফতী হুমায়ুন কবীর খালবী প্রমুখ। হালকায়ে জিকির, নফল ইবাদত, শেষ রাতের তাহাজ্জুদ, সকাল-সন্ধ্যা দু’বেলা ইজতিমায়ী জিকির, ওযু-গোসল-নামাযের হাতে-কলমে প্রশিক্ষণ, নামাজের জন্য সূরা মশক, মুসলমানদের জন্য জরুরি মসআলার শিক্ষা, পীর সাহেব চরমোনাইয়ের ৬টি, নায়েবে আমীরের ২টিসহ দেশের বরেণ্য ওলামায়ে কেরাম ও পীর-মাশায়েখের গুরুত্বপূর্ণ ওয়াজ-নসীহত এবং সুধী, শ্রমিক ও ছাত্রসমাবেশসহ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে চরমোনাইয়ের নমুনায় তিন দিনব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্যক্তি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ