Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

জঙ্গিবাদ সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করতে হবে-শিক্ষামন্ত্রী

সরকার মাদরাসা শিক্ষার অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছে

| প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জঙ্গিবাদকে সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, নিজ এলাকায় আলেম-ওলামা, শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটিসহ এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে জঙ্গিবাদবিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষকদের পাঠদানের পাশাপাশি ক্লাসের বাইরে কেরাত, সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড, খেলাধুলা, বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হলে শিক্ষার্থীরা গর্হিত কাজে সম্পৃক্ত হতে পারবে না। গতকাল (বুধবার) চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজ মাঠে ‘শিক্ষার উন্নত পরিবেশ, জঙ্গিবাদ মুক্ত শিক্ষাঙ্গন’ শীর্ষক শিক্ষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী একথা বলেন। চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড এ শিক্ষক সমাবেশের আয়োজন করে।
তিনি উল্লেখ করেন, আগে বলা হতো মাদরাসা জঙ্গি তৈরির কারখানা। এটা সঠিক নয়। মাদরাসায় কোন জঙ্গিবাদের শিক্ষা দেয়া হয় না। ইসলাম শান্তির ধর্ম, কল্যাণের ধর্ম এবং মানবতার ধর্ম। ইসলামে জঙ্গিবাদের স্থান নেই। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্ত করতে জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদের ফলে ইসলামের কোনো লাভ নেই। বরং এতে জাতির সর্বনাশ, দেশের সর্বনাশ, ইসলামের বদনাম হবে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে দেশে মাদরাসা শিক্ষা বন্ধ হয়ে যাবে বলে অপবাদ ছড়ানো হয়েছিল। অথচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার মাদরাসা শিক্ষায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছেন। একশ’ বছরের পুরনো দাবি ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ৩৫টি মাদরাসাকে মডেল মাদরাসা হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। ৩১টি মাদরাসায় অনার্স কোর্স চালু হয়েছে। ১ হাজার ৩৩২টি মাদরাসায় নতুন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। ১ হাজার ৮শ’ মাদরাসায় ভবন নির্মাণের জন্য প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া যুগোপযোগী শিক্ষার সাথে সমন্বয় করে বিজ্ঞান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিক্ষাসহ সাধারণ শিক্ষার সমমানে মাদরাসা শিক্ষাকে উন্নীত করা হয়েছে। এর আলোকে ৩ হাজার ১২১টি মাদরাসায় কম্পিউটার কোর্স এবং ১ হাজার ৭৯৬টি ও ৪৫০টি মাদরাসায় দাখিল ও আলিম স্তরে বিজ্ঞান শিক্ষা কোর্স চালু হয়েছে। ২৮১টি মাদরাসায় কারিগরি শিক্ষা কোর্স চালু করা হয়েছে।
চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলামের সভাপতিত্বে শিক্ষক সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ আলমগীর, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর এস এম ওয়াহিদুজ্জামান, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার রুহুল আমিন, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোঃ সামশুল আরেফিন, সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য। এছাড়া বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম কলেজের অধ্যক্ষ জেসমিন আক্তার, চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আবুল হাসান, রাঙ্গামাটি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর জাফর আহমদ, মাদরাসাসমূহের পক্ষে আল-আমিন বারিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মোঃ ইসমাইল, খাগড়াছড়ির শিক্ষক শিলা তালুকদার ও টেকনাফের শিক্ষক মোস্তফা কামাল চৌধুরী।
প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আধুনিক পরিবারের উচ্চশিক্ষিত ছেলে-মেয়েদের জঙ্গিবাদে ঢুকানো হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের সাথে কিছু শিক্ষকও জঙ্গিবাদের সাথে যুক্ত হয়েছে। এ বিষয়ে শিক্ষা পরিবার উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, হলি আর্টিজেনে জঙ্গি হামলা করে বিদেশি হত্যা ও শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতে জঙ্গি হামলা করে দেশে-বিদেশে ভীতি সঞ্চার করা হয়েছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় হস্তক্ষেপে তা রুখে দেয়া হয়েছে। বোমা মেরে মানুষ হত্যা করলে বেহেশতে যাবে বলে যারা মগজ ধোলাই করছে তারা নিজেরাতো বোমা মারে না। নিজেকে নিরাপদ রেখে তারা অন্যকে জঙ্গিবাদে প্রলুব্ধ করছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন যেখানে নিজের প্রিয় মা-বাবা জঙ্গির লাশ গ্রহণ করছে না সেখানে তারা বেহেশতে যাবে কীভাবে আশা করেন। জঙ্গি হামলা করে এদেশে বিদেশি বিনিয়োগ বন্ধ করার পাঁয়তারা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর ফলে দেশে হাজার হাজার নারী শ্রমিক বেকার হবে এবং এদেশকে জঙ্গিবাদের দেশ অপবাদ দিয়ে বিদেশে যারা আছেন তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হবে।
বিশেষ অতিথি সচিব সোহরাব হোসেন বলেন, চট্টগ্রাম বিভাগের একজন শিক্ষার্থীও যাতে জঙ্গিবাদে যুক্ত হতে না পারে সেদিকে শিক্ষকদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। জঙ্গিবাদের আশ্রয় এদেশে হবে না। স্বাধীনতার জন্য ৩০ লাখ মানুষ প্রাণ দিয়েছে জঙ্গিবাদ নির্মূলে প্রয়োজনে ৬০ লাখ মানুষ প্রাণ দেবে। কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মোঃ আলমগীর বলেন, যার যার অবস্থান থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলে কাজ  করে যেতে হবে। শিক্ষার মানোন্নয়নের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ দূর করা সম্ভব। শিক্ষক সমাবেশে চট্টগ্রাম বিভাগের ছয় জেলার স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার প্রধানগণ ব্যাপকভাবে অংশগ্রহণ করেন।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর