Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ অক্টোবর ২০১৭, ০৭ কার্তিক ১৪২৪, ০১ সফর ১৪৩৯ হিজরী

রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে একমত বাংলাদেশ-মিয়ানমার

| প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

কূটনৈতিক সংবাদদাতা : রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার একমত বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র। গতকাল বুধবার বিকেলে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাংলাদেশ সফররত মিয়ানমারের বিশেষ দূত কিয়াও থিন এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে তারা এ বিষয়ে একমত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সূত্র। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কিয়াও থিনের সৌজন্য সাক্ষাৎ হবার কথা।
সূত্র জানায়, বৈঠকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারকে সহযোগিতা দেয়ার আশ্বাস পুনর্ব্যক্ত করেছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি আরাকানে (রাখাইন) শান্তি ফিরিয়ে আনতে আহ্বান জানানো হয়েছে।
সূত্র আরো জানায়, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়া শুরু করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। এছাড়া নতুন করে আর কোনো রোহিঙ্গা যেন বাংলাদেশে না আসে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়েছে।
বৈঠকে মিয়ানমারের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার আগ্রহ জানানো হলেও কবে, কীভাবে এ প্রক্রিয়া শুরু হবে সে বিষয়ে স্পষ্ট করে ধারণা দেয়নি মিয়ানমার। এ বিষয়ে পরবর্তীতে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। এর আগে গত মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ঢাকা পৌঁছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি’র বিশেষ দূত ও দেশটির পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিয়াও থিন। এ সময় তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অনুবিভাগের মহাপরিচালক মনজুরুল করিম খান চৌধুরী। তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসা কিয়াও-এর সঙ্গে রয়েছেন মিয়ানমার সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা।
প্রসঙ্গত, গত বছরের ৯ অক্টোবর বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের কাছে পুলিশ চৌকিতে আক্রমণে কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিহত হন। এর তিন মাস পর বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনার জন্য মিয়ানমার তাদের প্রতিনিধি ঢাকায় পাঠাল। গত তিন দশকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা মুসলমান বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। এরও আগে থেকে  তিন থেকে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে বসবাস  করছে। গত অক্টোবরে মিয়ানমারের আরাকান (রাখাইন) রাজ্যে সশস্ত্র বাহিনীর হামলা শুরু হলে নতুন করে প্রায় ৭০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ঢুকে পড়ে। বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ এবং তাদের নাগরিকত্ব ফেরত দেয়ার জন্য একাধিকবার মিয়ানমার সরকারকে আহ্বান করেছে। এর আগে দুই দফায় ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মায়ো মিন্ট থানকে তলব করে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার তাগিদ দেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
এদিকে আরাকান প্রদেশে সংখ্যালঘু বাংলা ভাষাভাষী মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আগামী ১৯ জানুয়ারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বিশেষ বৈঠক ডেকেছে মুসলিম দেশগুলোর জোট অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি)। বাংলাদেশের পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ওই বৈঠকে অংশ নেবেন।

 


Show all comments
  • মাও এখলাছ উদ্দীন(পাটয়ারী) ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৭:৫২ পিএম says : 0
    আমরা এদেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। যে কেহ এই স্বাধীন বাংলার উপরে সন্ত্রাস চালালে,তাদের কে ক্ষমার চোখে দেখা হবেনা।আমাদের পবিত্র ধরম কে নিয়ে ও মুসলমানদের নিয়ে খেলা করবে,তৌহিদী জনতা ঘরে বসে থাকবে না।।।।সরকারের প্রতি আবেদন,যে কোন বিনিময়ে,আরাকানের শান্তী পিরিয়ে, স্বাধীন আবাস ভুমি উপহার দেওয়ার জন্য।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর