Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ জানুয়ারী ২০১৭, ০৯ মাঘ ১৪২৩, ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী

শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি নিয়োগপত্র ও কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা শীর্ষক মতবিনিময় সভা

| প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

না’গঞ্জে রি-রোলিং স্টিলমিলস
নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার : ন্যূনতম মজুরি, নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র, কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা শীর্ষক মতবিনিময় সভা করেছেন রি-রোলিং স্টিলমিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ  জেলা শাখা। বুধবার বিকেল ৩টায় নারায়ণগঞ্জ  প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। রি-রোলিং স্টিলমিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ  জেলার সভাপতি জামাল  হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড রাজেকুজ্জামান রতন, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মাসুম, রি-রোলিং স্টিলমিলস শ্রমিক ফ্রন্টের  কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ইমাম  হোসেন  খোকন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ নারায়ণগঞ্জ  জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাস, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি হিমাংশু সাহা, আইনজীবী আওলাদ হোসেন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজ, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি সেলিম মাহমুদ, গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতি নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি অঞ্জন দাস, রি-রোলিং স্টিলমিলস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ  জেলার সাধারণ সম্পাদক এস এম কাদির,  কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ মিল্টন। রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, রি-রোলিং স্টিলমিলে দুই লক্ষাধিক শ্রমিক কর্মরত। এরা ৬০-৬৫ ডিগ্রি  সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় কাজ করে, উত্তপ্ত  লোহা নিয়ে কাজ করতে গিয়ে প্রায়ই শ্রমিকরা দুর্ঘটনার শিকার হয়।  কোনো নিরাপত্তা ব্যবস্থা সেখানে নেই। দুর্ঘটনার শিকার হলে ক্ষতিপূরণ  দেয়া হয় না। বরং চাকরিটা হারায়। শ্রমিকরা আইনের আশ্রয় নিতে পারে না, কারণ তাদের নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র দেয়া হয়া না। কথায় কথায় চলে ছাঁটাই-নির্যাতন। রাজেকুজ্জামান রতন আলো বলেন, রি-রোলিং স্টিলমিলস শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরির  কোনো মাপকাঠি  নেই। একেক কারখানায় একেক নিয়মে দেয় তাও এক ডিউটি মাত্র ৮০ টাকা থেকে ১১০ টাকা। এই টাকায় তাদের জীবন চলে না। ফলে ৫টা/৬টা ডিউটি করে তাদের জীবন অল্পেতেই নিঃশেষিত হয়ে যায়। রি-রোলিং স্টিলমিলগুলোতে শ্রম আইনের বাস্তবায়ন করার জন্য সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। মালিকদের বাধ্য করতে হবে নিয়োগপত্র, পরিচয়পত্র প্রদান করতে। বর্তমান বাজার দরের সাথে সংগতি রেখে মাসে কমপক্ষে ১৫ হাজার টাকা মজুরি আইন করে নির্ধারণ করতে হবে। দুর্ঘটনায় নিহত হলে আইনত আজীবন আয়ের সমপরিমাণ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে এবং আহত হলে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ চিকিৎসা ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে হবে।


 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।