Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৭, ১৬ বৈশাখ , ১৪২৪, ২ শাবান ১৪৩৮ হিজরী।

অভিনেতা কোরাইয়াকে জেলহাজতে প্রেরণ

ফটোসাংবাদিক জিয়া আহতের ঘটনা

| প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : গাড়ির ধাক্কায় ফটোসাংবাদিক জিয়া ইসলাম আহতের ঘটনায় অভিনেতা কল্যাণ কোরাইয়াকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করেছে কলাবাগান থানা পুলিশ। গতকাল তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে সাংবাদিক জিয়া ইসলামের অবস্থা অপরিবর্তিত। তিনি রাজধানীর  অ্যাপোলো হাসপাতালের চিকিৎসাধীন।
প্রথম আলোর প্রধান আলোকচিত্র সাংবাদিক জিয়া ইসলামকে গাড়িধাক্কা দেয়ার ঘটনায় পত্রিকাটির নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক মেজর (অব.) সাজ্জাদুল কবীর মঙ্গলবার রাতে কলাবাগান থানায় মামলা করেন। এই মামলায় কল্যাণ কোরাইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কল্যাণ বিজ্ঞাপনের মডেল ও অভিনয় পেশার সঙ্গে যুক্ত।
গতকাল দুপুরে কলাবাগান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওমর ফারুক খান জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ড চেয়ে কোরাইয়া আদালতে পাঠান। আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন।
উল্লেখ্য, গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বসুন্ধরা শপিংমলের সামনের সড়কে একটি গাড়ি জিয়ার মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। দুর্ঘটনার পর জিয়া অচেতন অবস্থায় রাস্তায় পড়ে ছিলেন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত কয়েকজন সাংবাদিক তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সংকটাপন্ন অবস্থা দেখে হাসপাতালের চিকিৎসকেরা তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করেন। চিকিৎসকেরা জানান, তার একটি পা ভেঙে গেছে। তবে সবচেয়ে গুরুতর হলো মাথার আঘাত। মঙ্গলবার বেলা দুইটার দিকে জিয়া ইসলামকে অ্যাম্বুলেন্সে করে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেয়া হয়। অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন, তাকে ৪৮ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। তবে পর্যবেক্ষণের সময় বাড়তে পারে। দুই দশকের সাংবাদিকতা জীবনে বহুবার হামলা ও দুর্ঘটনায় শিকার হয়েছেন জিয়া ইসলাম। এর মধ্যে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড হামলার ঘটনাতেও তিনি আহত হয়েছিলেন। আহত হলেও তিনি ক্যামেরা ছাড়েননি। ২১ আগস্ট হামলার বহুল প্রচারিত ছবিগুলোর বেশিরভাগই জিয়া ইসলামের তোলা।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।