Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ জানুয়ারী ২০১৭, ০৯ মাঘ ১৪২৩, ২৩ রবিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী

জঙ্গিবাদের মদদদাতাদেরও ছাড় দেওয়া হবে না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:৩৪ পিএম | আপডেট : ১:৩১ পিএম, ১২ জানুয়ারি, ২০১৭

চট্টগ্রাম ব্যুরো : জঙ্গিবাদে মদদ দাতাদের কোন ধরনের ছাড় দেওয়া হবে না উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ কোন জঙ্গি রাষ্ট্র নয়, এখানে কোন জঙ্গিও ঠাঁই হবে না। জঙ্গি দমনে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছি। জঙ্গিবাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় ও মদদ দাতাদের কোন ধরনের ছাড় দেবে না।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে সাথে কোস্টগার্ডও জঙ্গি দমনে ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে বোটক্লাবে কোস্টগার্ডের দুটি জাহাজের কমিশনিং অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি। জাহাজ দুটি হচ্ছে সিজিএস সৈয়দ নজরুল এবং সিজিএস তাজউদ্দিন আহমেদ।
জনবলের সীমাবদ্ধতা স্বত্ত্বেও কর্মদক্ষতায় উপকূলীয় অঞ্চলে কোস্টগার্ড একটি আস্থা ও নিরাপত্তার প্রতীকে পরিণত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিগত বছরগুলোতে দেশের সমুদ্রবন্দর ও বহির্নোঙ্গর এলাকায় বাণিজ্যিক জাহাজের অব্যাহত নিরাপত্তা প্রদানে কোস্টগার্ডের কর্মতৎপরতা বহির্বিশ্বে সমাদৃত। এ কারণেই চট্টগ্রাম বন্দর আন্তর্জাতিক মেরিটাইম ব্যুরোর বিবেচনায় নিরাপদ বন্দর হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।
চোরাচালান ও অবৈধ মৎস্য আহরণ প্রতিরোধ কার্যক্রমে কোস্টগার্ডের বার্ষিক সাফল্য আর্থিক মানদণ্ডে হাজার কোটি টাকা অতিক্রম করেছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, স্বরাষ্ট্রসচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, এবং কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরীসহ বিভিন্ন বাহিনী ও সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সকালে সংক্ষিপ্ত সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামে আসেন। বেলা সাড়ে ১১টায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী হেলিকপ্টার পতেঙ্গায় বিমানবাহিনীর জহুরুল হক ঘাঁটিতে অবতরণ করে। সেখান থেকে তিনি কর্ণফুলী নদী তীরবর্তী বোট ক্লাবে যান। সেখানে কোস্টগার্ডের জন্য আনা দুটি জাহাজের কমিশনিং অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বোট ক্লাবে মধ্যাহ্ন ভোজ ও যোহরের নামাজ আদায় করবেন তিনি। সেখানে চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা ও দলীয় নেতাদের সাথে আলোচনা করার কথাও রয়েছে। বিকেল ৩টায় প্রধানমন্ত্রী জহুরুল হক ঘাঁটি থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন।
কোস্টগার্ডের জন্য ৯৬৩ কোটি টাকা মূল্যের চারটি জাহাজ আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে ইতালি থেকে আনা প্রথম চালানের দুটি অত্যাধুনিক জাহাজ কোস্টগার্ড পূর্বাঞ্চলকে দেওয়া হয়েছে।


 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ১৩ জানুয়ারি, ২০১৭, ৮:১২ এএম says : 0
    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন জঙ্গিবাদে মদদ দাতাদেরকে কোন ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। আমি ওনার এই কথার সাথে একমত হয়ে বলতে চাই জঙ্গিবাদে যারা মদদ করে আসছেন তারা সবাই থাকেন প্রবাসে তাই জঙ্গিবাদ সমূলে উৎখাত করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বেগ পেতে হচ্ছে। তাই আমি নেত্রী হাসিনাকে কয়েক মাস যাবত আনুরোধ করে আসছিলাম তিনি যদি তার বিদেশের মিশনের প্রতি নজরদারী বারিয়ে দেন তাহলে আমি নিশ্চিত জঙ্গিদের তৎপরতা বন্ধ হবে। জঙ্গি উত্তানের প্রধান কারন হচ্ছে টাকা এই টাকার জন্য বাংলাদেশের বেকার যুবকরা জঙ্গি কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছে। নেত্রী হাসিনা নিজের দপ্তর থেকে যদি বিদেশে অবস্থান রত সকল মিশনগুলোর কার্যকলাপ নজরদারীতে আনেন তাহলে বিদেশে অবস্থান রত বাংলাদেশী যারা দেশে আরাজগতা সৃষ্টি করতে অর্থের জোগান দিচ্ছে তাদেরকে মিশন চিহ্নিত করবে। এবং তখনই মদদ দাতদেরকে সহজেই কাবু করা সম্ভব বলে আমি মনে করি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।