Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

জাতিসংঘসহ বিভিন্ন স্থানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

প্রকাশের সময় : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নিউইয়র্ক থেকে এনা : একুশের চেতনাদীপ্ত শপথ, দৃঢ়প্রত্যয় ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ঘোষণার মধ্য দিয়ে নিউইয়র্কসহ সমস্ত উত্তর আমেরিকার প্রবাসী বাংলা ভাষা-ভাষীরা উদযাপন করেছে একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।
এবার প্রথমবারের মত বাংলাদেশের সময়ের সাথে সমন্বয় রেখে দুপুর ১টা ১মিনিটে আবার রাত ১২টা ১ মিনিটে অস্থায়ী শহীদ মিনারে শত শত সংগঠনের পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্যদিয়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে প্রবাসী বাংলাদেশীরা। জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে, মুক্তধারা ফাউন্ডেশন এবং বাঙালি চেতনা মঞ্চ জাতিসংঘের সামনে বাংলাদেশ সোসাইটি জ্যাকসন হাইটস্থ নান্দুস অডিটোরিয়ামে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জ্যাকসন হাইটসে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন সাউন্ডভিউ অডিটোরিয়ামে, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফেন্ড্রস সোসাইটি জ্যামাইকা এক্সিট রিয়েলেটিতে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে একুশে ফেব্রুয়ারি পালন করে। এ ছাড়া সন্ধ্যা থেকে একুশের উপর আলোচনা, নতুন প্রজন্মের শিশু-কিশোরদের একুশ নিয়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
জাতিসংঘের সামনে
গত ২০ ফেব্রুয়ারি জাতিসংঘের সামনে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে প্রবাসীরা উদযাপন করে এ দিবসটি। প্রতিবছরের ন্যায় উপস্থিত সর্বকনিষ্ঠ শিশুর হাত দিয়ে প্রথম পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয় একশের প্রথম প্রহরে। দেশী-বিদেশী শত শত কণ্ঠে ধ্বনিত-প্রতিধ্বনিত হয় একুশের অমর সঙ্গীত আমার ভায়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি।
এ বছরই ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে আমেরিকার ডাক বিভাগ প্রকাশ করছে একুশের স্মারক সীলমোহর।
সাংস্কৃতিকপর্বে অংশগ্রহণ করে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। বাংলাদেশ ক্লাব জাতিসংঘও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে। শহীদ মিনারে শিশুর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পরপরই পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, প্রসিডেন্ট ওবামার দক্ষিণ এশীয় বিষয়ক কমিটির উপদেষ্টা ও ফিলাডেলফিয়ার ডেপুটি মেয়র ড. নীনা আহমেদ, নিউইয়র্ক স্টেট গভর্নরের প্রতিনিধি হার্শ কে পারেক, মেয়রের ইমিগ্রেশন এফেয়ার্সের কমিশনার নিশা আগরওয়াল, নিউইয়র্ক সিটি কম্পট্রলারের প্রতিনিধি আলিয়া লতিফ, জাতিসংঘের প্রতিনিধি ড. নজরুল ইসলাম ও কুইন্স বরো প্রেসিডেন্টে মেলিন্ডা ক্যাটসসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক-সামাজিক-আঞ্চলিক-রাজনৈতিক ও ক্রীড়া সংগঠন।
বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন
জাতিসংঘের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি, বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও স্থানীয় বাঙালি কমিউনিটির সক্রিয় অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ভাষা শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত হয়।
বিকেলে মিশনের বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে এক মিনিট নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। যুক্তরাষ্ট্রের শ্রী চিন্ময় বোধি গ্রুপের থিম সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপনের সূচনা করা হয়।
ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও মাল্টিলিংগুয়ালিজমের সমন্বয়ক ক্যাথরিন পোলার্ড, আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও ডিপার্টমেন্ট অব পাবলিক ইনফরমেশনের প্রধান ক্রিস্টিনা গায়াচ এবং পোলান্ড, মালদ্বীপ, সিয়েরা লিয়ন, শ্রীলঙ্কা ও হাঙ্গেরীর স্থায়ী প্রতিনিধি। বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও জাতিসংঘের কর্মকর্তাবৃন্দ সারিবদ্ধভাবে একে একে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
আলোচনাপর্বে ইউনেস্কোর পরিচালক মেরি পাউলে রুডিল দিবসটি উপলক্ষে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ইরিনা বোকোভার দেয়া বাণী পাঠ করে শোনান। এরপর বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা তাদের মাতৃভাষায় কবিতা আবৃত্তি, প্রবন্ধপাঠ ও সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
পোলান্ডের স্থায়ী প্রতিনিধি তার মায়ের লেখা পলিশ ভাষায় ‘বাংলাদেশের নগরায়ন’ শীর্ষক গ্রন্থ থেকে পাঠ করে শোনান। শ্রীলঙ্কার শিল্পীরা সিংহলী ভাষায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
বিদেশী অতিথিদের অংশগ্রহণে এ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এক বিশেষ মাত্রা যোগ করেন শ্রী চিন্ময় বোধি গ্রুপ। এই গ্রুপের পনেরজন বিদেশী শিল্পী বাঙালি সাজে সেজে বাংলায় তিনটি প্রার্থনা ও দেশাত্মবোধক সঙ্গীত পরিবেশন করে উপস্থিত সকলকে মুগ্ধ করেন।
এই গ্রুপের সদস্যবৃন্দের বাংলা, সেøাভাকিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র, ইংরেজি, স্পেনিশ, হিন্দি, গুজরাটি, ক্যাটলান, ওহাইয়ো, ফরাসি, রুশ, ইতালিয়ান, জার্মানসহ ১৩টি ভাষায় ঐক্য ও শান্তির বাণী পাঠ করার মধ্য দিয়ে বিদেশীদের অংশগ্রহণে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষ হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ