Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

গোলাম আশরাফ খান উজ্জ্বল

| প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

শীতের দিনে

শীতের দিনে হিমেল হাওয়া
ভাপাপুলি পিঠে খাওয়া।
খেজুর গাছে রসের হাড়ি
যাবো মোরা মামাবাড়ি।
নীল আকাশে উড়ছে ঘুড়ি
ছুটি হবে তাড়াতাড়ি।
পায়রা ডাকে বাকুম বাক
শীত এবার দূরে যাক।

সোহেল রানা
ভূতের হাসি


সন্ধ্যে হলেই খিলখিলিয়ে
হাসে রাজা ভূতে
তাল মিলিয়ে হাসে সাথে
রানী ও রাজপুতে।
শব্দে হাসির ভয় পেয়ে যায়
ছেলের সাথে বুড়ো
গ্রামবাসীদের হয় না তো বের
কণ্ঠ থেকে সুরও।
দূর গ্রামের ওঝা এসে
বন্ধে ভূতের হাসি
চেষ্টা করেন নানা রকম
ঝাড়ার পাশাপাশি।
অবশেষে বলেন যখন
সন্ধ্যা হতে বাকি-
গা গরমের জন্য ভূতে
হাসে শীতে নাকি।


আবুল কালাম আজাদী
যা যা শীত যা

শনশনে হাওয়াতে
বুড়া দাদু কাঁপছে
ছোট শিশু গোসলে
হাউ-মাউ কাঁদছে।
কৃষাণের হাত-পা
ফেটে আজ চৌচির
রসহীন চেহারা
হয়ে গেছে বৌ-ঝির।
টপ টপ শিশিরে
বইছে ঠা-া
লোকে পথে খাচ্ছে
গরম পিঠা-আ-া।
সকলের হাত থাকে
পকেটের মধ্যে
চোর বাবু অনাহারে
নেই তার সাধ্যে।
মাঘের শীতে আজ
বাঘ মিয়া থরথর
জলের মাছ গুলোও
করছে ধরফর।
যা যা শীত যা
বাংলা ছাড়িয়ে
দে দে এই বার
সবাকে বাঁচিয়ে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।