Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

‘সার্চ কমিটির নিয়ে যারা অভিযোগ তুলেছেন তারা রাবিশ’ - অর্থমন্ত্রী

| প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি মন্তব্য করেছেন প্রেসিডেন্ট গঠিত নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য যে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে তা অত্যন্ত সঠিক ও খুবই ভালো। সার্চ কমিটির সদস্যরা অত্যন্ত জ্ঞানী-গুণী ও ভালো লোক। যারা সার্চ কমিটি নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন তারা ভ্রান্ত ও রাবিশ। এর কোনো ভিত্তি নেই। অর্থমন্ত্রী গতকাল শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ জে কে উচ্চবিদ্যালয়ে শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।
নবীগঞ্জ জে কে উচ্চবিদ্যালয় শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানের সভাপতি ও নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি মো: আবু জাহির, হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি এম এ মুনিম চৌধুরী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামছুল ইসলাম ভূঁইয়া, নবীগঞ্জ পৌসভার সাবেক মেয়র অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরী, সিলেট মদনমোহন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডক্টর আবুল ফতেহ ফাত্তাহ।
প্রধান অথিতির বক্তেব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি আরো বলেন, স্কুলে মেয়েদের মত ছেলেদেরও বিনা বেতনে শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, উনিবিংশ শতাব্দী থেকে একটা শিক্ষানীতি গঠিত হয়। সেই শিক্ষানীতিই আমাদের দেশে আজ পর্যন্ত চলছে। কিছু কিছু বিবর্তন পরিবর্তন হয়েছে। আমাদের দেশের বেশিরভাগ সরকারি বিদ্যালয় ১৮৪০ সালের পর থেকে প্রতিষ্ঠা শুরু হয়। এতে বৃটিশ সরকার যথেষ্ট পরিমাণ অর্থ মঞ্জুর করেন। এবং বিভিন্ন জায়গায় স্কুল প্রতিষ্টা পেতে থাকে। তিনি আরো বলেন, নবীগঞ্জও শিক্ষা ক্ষেত্রে খুব বেশি পিছিয়ে নয়। শিক্ষা সম্বন্ধে আমাদের যে স্বাভাবিক ধারণা, মানুষতো সৃষ্টির শ্রেষ্ট জীব কিন্তু তার এই শ্রেষ্টত্ব প্রতিষ্টা করতে নিজেকে যথেষ্ট কষ্ট করতে হয়। নিজেকে অবধান রাখতে হয়। এবং এই শ্রেষ্ঠজীব হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্টা করার জন্য যেটি তার সবচেয়ে বেশি অস্ত্র, সেটা হল শিক্ষা। একমাত্র মানুষই জ্ঞান আহরণ করে, জ্ঞানের চর্চা করে, জ্ঞান সংরক্ষণ করে, এবং সেখান থেকে সুযোগ দেয়। পুরোনো দিনের জ্ঞান ব্যবহার করে নতুন দিনের নতুন নতুন প্রযুক্তি নতুন নতুন আবিষ্কার করে এবং সেই আবিষ্কার সেই প্রযুক্তি তাকে সভ্যতার এক স্তর থেকে আরেকটা উচ্চতরস্তরে পৌঁছে দেয়। আমরা যেমন বর্তমানে আইসিটির কল্যাণে এখন একটা সভ্যতার উচ্চতরস্তরে পৌঁছে গেছি। যেখানে অতি সহজেই মানুষকে মানুষের পূর্বতম জ্ঞান সেটা নিয়ে আলোচনা করতে পারে আলোড়ন সৃষ্টি করতে পারে। এবং সেখান থেকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে। মন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের সেই রাস্তাটা খুব সহজ করে দিয়েছেন, কারণ তিনি আমাদের বলেছেন যে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলব। এই ডিজিটাল বাংলাদেশই হচ্ছে আইসিটির সবচেয়ে বড় অবদান। এবং সেই দিক দিয়ে আমরা যথেষ্ট এগিয়ে যাচ্ছি।
শেষে তিনি নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী জে কে উচ্চবিদ্যালয়ের ভূমিদাতা ও এর সাথে যারা সংশ্লিষ্ট রয়েছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। অতিথি বৃন্দসহ অন্ষ্ঠুানে ১৪ জন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষককে সম্মননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
নবীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী জে কে উচ্চবিদ্যালয়ের বর্ষপূর্তি উদযাপন অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে গতকাল শনিবার  সকাল ১১টায় হেলিকপ্টার যোগে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি কানাইপুর হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। পরে অনুষ্ঠানস্থলে পতাকা উত্তোলন ও বেলুন উড্ডয়নের মধ্য দিয়ে বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানের শুব উদ্বোধন করেন। পরে অনুষ্ঠানের শুরতেই অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা শহীদ হয়েছেন, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা, জমিদাতা, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সম্মানিত সদস্য, শিক্ষক, শিক্ষার্থী যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয়। পরে বিকেলে দিকে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অন্ষ্ঠুান অনুষ্ঠিত হয়। এতে দেশের প্রখ্যাত সংঙ্গীত শিল্পিরা সংঙ্গীত পরিবেশন করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ