Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

রুশ-মার্কিন যৌথ বিবৃতি : সিরিয়ায় ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর

প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতির পরিকল্পনার ব্যাপারে জানিয়েছে, আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশটিতে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করা হবে। দুই দেশের যৌথ বিবৃতিতে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, এই যুদ্ধবিরতির আওতায় থাকছে না আইএস এবং নুসরা ফ্রন্ট। জাতিসংঘের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, সিরিয়ায় যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হচ্ছে এবং দিনে দিনে দেশটিতে সহিংসতা বাড়ছে। সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি কার্যকর করার বিষয়ে বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলো গত ১২ ফেব্রুয়ারি একমত হয়েছিলো যে, এক সপ্তাহের মধ্যেই যুদ্ধবিরতি কার্যকর হবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এই সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর এখন আগামী শনিবার থেকে তা কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া। যুদ্ধবিরতি প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সিরিয়ার সংঘর্ষে যেসব পক্ষ যুদ্ধবিরতি করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে এবং শর্ত মেনে নিয়েছে তাদের ক্ষেত্রেই এ বিরতি প্রযোজ্য হবে। তবে আইএস, নুসরা ফ্রন্ট এবং জাতিসংঘের চিহ্নিত অন্যান্য সন্ত্রাসী সংগঠন এ যুদ্ধবিরতির আওতায় পড়বে না। তাদের ওপর সিরিয়া, রাশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর বিমান হামলা চলবে।
এদিকে জাতিসংঘের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল ইয়ান এলিয়াসন বলছেন, যুদ্ধবিরতি প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণ করা খুব একটা সহজ হবে না। লড়াই বন্ধের এই প্রক্রিয়ায় যদি আল নুসরা বা আইএস নিয়িন্ত্রত এলাকাগুলো না পড়ে তাহলে যুদ্ধবিরতি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা সত্যিই অনেক চ্যালেঞ্জের বিষয় হবে এবং পরবর্তীতে তার মুখোমুখি হতে হবে। তিনি আরও বলেন, সবাই যদি একত্রিত না হয়, তাহলে পরিস্থিতি আরও বিপজ্জনক হয়ে উঠবে।
দুই দেশের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সিরিয়ার সশস্ত্র বিরোধী দলগুলোকে ২৬ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতের মধ্যেই যুদ্ধবিরতিতে তাদের অংশ নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। বিরতির সময়টিতে রাশিয়া ও সিরিয়া ওই দলগুলোর ওপর যে কোনো বিমান হামলা বন্ধ রাখবে। এদিকে জাতিসংঘ সমর্থিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সিরিয়ায় ব্যাপকহারে যুদ্ধাপরাধ সংগঠিত হচ্ছে এবং দিনে দিনে সেখানে সহিংসতা বেড়েই চলেছে। যুদ্ধে লিপ্ত দলগুলো সেখানকার বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে প্রতিনিয়ত হামলা করছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সিরিয়ার সরকার বাহিনী ও আইএস, উভয়ের কার্যক্রম মানবতাবিরোধী অপরাধের শামিল। বিবিসি।



 

Show all comments
  • হাসান চৌধুরী ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:২৭ পিএম says : 2
    এখন বুঝতে পারবে ঠেলার নাম বাবাজি।তুর্কি সৌদি জোট গঠন শয়তানের মনে কম্পন আরম্ভ হয়েছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Matir Manus ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:২৭ পিএম says : 1
    Juddo noy santi chai
    Total Reply(0) Reply
  • হামিদ ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:২৮ পিএম says : 0
    এটা আরো আগে করলে তো এত লোক মরতো না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ