Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

প্রযুক্তিপণ্য কেনার আগে করণীয়

| প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

শওকত আলম পলাশ : পার্সোনাল কম্পিউটার, স্মার্টফোন বা ট্যাবলেটের মতো মোবাইল ডিভাইস কেনার সময় প্রথমেই কয়েকটি বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখতে হয়। বিবেচনায় নিতে হবে কোত্থেকে কিনবেন।
এক্ষেত্রে বিক্রয়োত্তর সেবা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ব্র্যান্ডগুলো অনুমোদিত আউটলেট ছাড়া কোনো ইলেকট্রনিকস কেনা ঠিক নয়। প্রযুক্তিপণ্য কেনার আগে করণীয় নিয়ে আজকের আয়োজন।
ডিভাইসের ডিসপ্লে
বর্তমান ডিভাইস বাজারে অ্যাপলের রেটিনা ডিসপ্লের দারুণ সুনাম। রেটিনা ডিসপ্লেতে ব্যবহৃত পিক্সেলগুলো মানুষের চোখে ধরা পড়ে না। তবে এর জন্য বাড়তি কিছু অর্থও গুনতে হয়। কিন্তু তাই বলে অ্যান্ড্রয়েড কিংবা উইন্ডোজভিত্তিক ডিভাইসগুলোর ডিসপ্লে যে খারাপ, সেটি কিন্তু বলার উপায় নেই। কিছু অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে রেটিনা ডিসপ্লের চেয়েও অনেক বেশি পিক্সেল-সংবলিত রয়েছে; সেগুলোর ডিসপ্লে মানও রেটিনার চেয়ে ভালো। তাই কোন মানের ডিসপ্লে হলে চলে, সেটি বিবেচনায় নিতে হবে।
পিসি প্রসেসর
বাজারে প্রতিনিয়ত নতুন মডেলের পিসি প্রসেসর আসছে। এক্ষেত্রে প্রতি বছর হাজার হাজার টাকা খরচ করে কোয়াড কোর, অক্টাকোর প্রসেসর কিনতে যাওয়া বাড়তি বোঝা বৈকি! পেশাদার গ্রাফিক ডিজাইনার, গেমার কিংবা ভিডিও এডিটর হলে ভিন্ন কথা। কিন্তু বাসাবাড়ির কম্পিউটারে ইন্টারনেট ব্রাউজ, ভিডিও স্ট্রিমিং কিংবা ই-মেইল পাঠানো ছাড়া তেমন কোনো কাজ করা হয় না। এ কাজগুলোর জন্য অতি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন প্রসেসরের কোনো প্রয়োজন নেই। তার বদলে অধিক ক্ষমতাশালী র‌্যাম সংগ্রহ, ব্রডব্যান্ডের গতি বাড়ানো কিংবা ওয়াই-ফাই সংযোগ নেয়ার দিকে মনোযোগ দেয়াই ভালো।

ক্যামেরার মেগাপিক্সেল
বর্তমানে মোবাইল ফটোগ্রাফি একটি আকর্ষণীয় প্রবণতা। কার্যত বেশির ভাগ মোবাইল ডিভাইসে এখন উন্নত ক্যামেরা সংযুক্ত থাকে। কিন্তু মেগাপিক্সেল বেশি হওয়া মানেই ভালো ক্যামেরা নয়। ক্যামেরাটি যাতে কাজের হয়, সে বিষয় খেয়াল রাখা দরকার। ক্যামেরার মান বোঝার সবচেয়ে ভালো উপায় মেগাপিক্সেল। কিন্তু ১৬ বা ২০ মেগাপিক্সেল হলেই যে সেটির মান সবচেয়ে ভালো হবে; তা বলা যাবে না। কেননা ভালো একটি ক্যামেরার মান শুধু পিক্সেল কিংবা লেন্সের ওপর নির্ভর করে না; দরকার পড়ে দুটোরই। বেশি মেগাপিক্সেল থাকলে বড় ছবি পাওয়া যাবে। কিন্তু সেটির জন্য দামও গুনতে হবে বেশি। সাধারণ ব্যবহারের জন্য ৫ থেকে ৮ মেগাপিক্সেল হলেই চলে। তবে ক্যামেরায় অপটিক্যাল জুম, রেঞ্জ ও দ্রুতগতির শাটার সুবিধাগুলোও অনেক কাজে দেবে।

এইচডিএমআই কেবল
মোবাইল ডিভাইস থেকে বড় স্ক্রিনে ভিডিও চালাতে এইচডিএমআই কেবলের বিকল্প নেই। কিন্তু তাই বলে অনেক বেশি দামে এইচডিএমআই কেবল কেনার কোনো প্রয়োজন নেই। মাঝারি মূল্যের কেবল পাওয়া যায়। সেগুলো দিয়ে ভালোই কাজ চলে। মোবাইল ডিভাইসে সরাসরি ইউএসবি ড্রাইভ ব্যবহার করার জন্য আছে অন দ্য গো (ওটিজি) কেবল। ব্র্যান্ডের কিনতে গেলে দাম পড়বে একটু বেশি। দরকার কী! ৫০-১০০ টাকায়ও অনেক ভালো ওটিজি কেবল পাওয়া যায়। সেগুলোই ব্যবহার করুন। ভাইরাস এলে আসবে ইউএসবি ড্রাইভ থেকে; কখনই ওটিজি কেবল থেকে নয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ