Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ০৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

শীতে শিশুর আরামদায়ক পোশাক

| প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বৈশাখী ঝড়, বর্ষার বৃষ্টি পেড়িয়ে প্রকৃতিতে এখন শীত। শীতে চাই বাড়তি পোশাক। আরামদায়ক গরম কাপড়। বিশেষ করে আমাদের আদরের সোনামনিদের এই শীতে দরকার বাড়তি যতœ, ও আরামদায়ক পোশাক। আর প্রায় সকল শিশুরাই রঙিন পোশাক পড়তে পছন্দ করে। তাই এবারও শীতে বাহারি রঙের নতুন ডিজাইনের বিভিন্ন রকমের শীতের পোশাকের সমাহার রয়েছে বিভিন্ন বিপণিবিতানগুলোতে। যে কোনো ধরনের অসাবধানতা শিশুদের ঘটে যেতে পারে বড় কোনো দুর্ঘটনা। তাই এই শীতে শিশুর জন্য অন্য সময়ের চেয়ে একটু বেশি যতœ।  অন্য মৌসুমের চেয়ে শীত ঋতুর বিষয় আলাদা। এ সময়ে শিশুর প্রতি রাখতে হবে বাড়তি সতর্কতা। নবজাতক শিশু মায়ের পেটে উষ্ণ তাপমাত্রায় থাকে। তাই পৃথিবীর তাপমাত্রায় সে শীত অনুভব করে। তা ছাড়া শিশুর শরীরে তাপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা তৈরি হতেও সময় লাগে। তাই যে শিশু কিছুদিন হল পৃথিবীতে এসেছে তাকে উষ্ণ তাপমাত্রায় রাখুন।
শিশুরা সংবেদনশীল। আর শীতের সময় তো তাদের রাখতে হয় বাড়তি নজর। তাই এ সময় তাদের জন্য পোশাকটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। শীতের পোশাকের কাপড় সুতি হলে আরামদায়ক হয়। তাই শিশুদের বেশিরভাগ শীতের পোশাক হওয়া উচিত সুতির। মেয়ে শিশুদের জন্য শীতের পোশাকের নকশা ভালো লাগে ফুল, কার্টুন-স্টিকারের ফুল সিøভ টি-শার্ট। তাছাড়া পুতি, বোতাম ও বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে আকর্ষণীয় করা হয়েছে হুডি টি-শার্টগুলোও। সোয়েটারে শিশুদের বেশ মানিয়ে যায়, তাই সোয়েটারে বিভিন্ন লেস, বোতামের নকশা করে আনা হয়েছে ভিন্নতা। বিভিন্ন বাহারি রঙের ব্যবহার করে আনন্দের ছোঁয়া দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে পোশাকগুলোতে। মেয়ে শিশুদের জিন্সের ফ্রক, স্কার্ট, ওভারকোট ও কার্ডিগানের চাহিদাও বেশ ভালো। আকর্ষণীয় ডিজাইনের রেক্সিন ও লেদারের জ্যাকেটও পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। এই শীতে উলের সোয়েটারগুলোয় উষ্ণতা বেশি অনুভব হয়। তাই অনেকেই তা কিনতে আগ্রহী হয়ে থাকেন। তবে এ ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখতে হবে, যেন তা খসখসে না হয়। ছেলে শিশুদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন কার্টুন-স্টিকারের ডিজাইনের ফুল সিøভ টিশার্ট, জ্যাকেট, হুডি, লং জ্যাকেট ইত্যাদি। কয়েকটি রঙের ব্যবহার করে একটি জ্যাকেটে আনা হয়েছে ভিন্নতা। ব্যবহার করা হয়েছে চেইন দিয়ে বিভিন্ন ডিজাইনের পকেট। ডাবল স্লিভের ব্যবহার করে টি-শার্টগুলোয় নতুনত্ব যোগ করা হয়েছে। নবজাতক শিশুদের পায়ের তালু থেকে মাথা পর্যন্ত উষ্ণ রাখার জন্য রয়েছে বেবিকিপার। সুতি কাপড় সব সময়ই আরামদায়ক, তাই সুতির ওপরও করা হয়েছে বাচ্চাদের পোশাক। খুব শীতে শিশুদের কান, গলা, হাত, পা উষ্ণ কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা অনেক জরুরি। তাই কানটুপি কেনার সময় একটু বড় দেখেই কিনুন, যাতে দুই কানসহ মাথার পেছন দিক ও গলাটা ঢেকে যায়। গলা, কান ঢাকার জন্য ছোট ছোট উলের মাফলার কিনতে পাওয়া যায়।
ছোট মাফলারগুলোতে নানারকম রঙিন ঝুল বেশ আকর্ষণীয় দেখায় বাচ্চাদের। রাতে ঘুমানোর জন্য আলাদা সুতি মোজা থেকে শুরু করে উলের মোজা সবই কমবেশি পাওয়া যাবে ফ্যাশন হাউসগুলোতে। ছেলে শিশুরা হাতমোজা হিসেবে পছন্দ করবে রেক্সিনেরগুলো। মেয়ে শিশুদের কুয়াশার হাত থেকে মাথার চুল ও ত্বক রক্ষা করতে কিনে নিতে পারেন বিভিন্ন ডিজাইনের স্কার্ফ। এসব শীতের পোশাক কিনতে চলে যেতে পারেন বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে। তাছাড়া ফ্যাশন হাউস ছাড়াও একটু বেশি দামে ভালো মানের শীত পোশাক কিনতে যেতে পারেন দেশের  বিভিন্ন অভিজাত শপিং মলে।  শিশুর জন্য সবচেয়ে বেশি দরকার যতœ ও সতর্ক দৃষ্টি। শিশুরা নিজেদের সমস্যার কথা ভালো করে বলতে পারে না। তাই তাদের প্রতি মমতামাখা আদর ও আন্তরিক ভালোবাসা খুব বেশি প্রয়োজন।  
য় আলম শামস



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।