Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

নাটোরে কিডনী চুরি অভিযোগ এনে রোগীর নাটকীয়তা জনমনে নানা প্রশ্ন

| প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

নাটোর জেলা সংবাদদাতা : নাটোরে কিডনী চুরির অভিযোগকারী এক রোগীর নাটকীয়তায় জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। জেলার সিংড়া উপজেলার ছোট চৌগ্রামের জনৈক ফজলু বিশ্বাসের স্ত্রী আসাম বেগম প্রায় দুই বছর আগে (১২/০৬/২০১৫) নাটোর শহরের জনসেবা হাসপাতালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের সার্জারী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. এমএ হান্নানের কাছে কিডনী ও কিডনী নালিতে থাকা দুই’টি পাথর অপরাশেন করিয়ে বের করে নেন। এ সময় আসমা বেগমের কিডনী কার্যকর রাখাতে তার শরীরে সাময়িকভাবে একটি পাইপ লাগিয়ে দেয়া হয়। আসমা বেগম সুস্থ হলে দু’মাস পরে ডা. এমএ হান্নানের তত্বাবধানেই ওই পাইপটি রাজশাহী মেট্রোপলিটান হাসপাতালে ভর্তি হয়ে বের করিয়ে নেন। এর প্রায় ১৮ মাস পরে অতি সম্প্রতি আসমা বেগম হঠাৎ করেই লোকজন সহ জনসেবা হাসপাতালে এসে তার ডান দিকের কিডনী দৃশ্যমান নেই বলে অভিযোগ করে সেখানে হৈচৈ শুরু করে দেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ডা. এমএ হান্নানকে নাটোর সদর থানায় ধরে নিয়ে যায়। পরে সেখানে নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলামের উপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ, অভিযোগকারী রোগী আসমা বেগম ও তার অভিভাবক, জনসেবা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক ডা. এমএ হান্নান ও নাটোর জেলা বিএমএ’র সভাপতি ডা. এসএম জাকির হোসেন বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন। এ সময় সিদ্ধান্ত হয় রোগীর কিডনী আদৌ চুরি হয়েছে কি না তা একমাত্র অত্যাধুনিক পরীক্ষার-নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়ার পর সে বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে। তিনদিনের মধ্যেই এসব পরীক্ষা-নীরিক্ষা নিশ্চিত করা ও যাতায়াতের সকল ব্যয়ভার সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক এবং হাসপাতাল মালিক বহন করতেও রাজি হন। সে অনুযায়ী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য তাকে আনতে তার বাড়িতে ৪ ফেব্রæয়ারি ও ৬ ফেব্রæয়ারি দুই দিন মাইক্রোবাস পাঠালে রোগী পরীক্ষা করানোর জন্য আসতে অসম্মতি জানান। এরপর এ পর্যন্ত অনেক চেষ্টা করেও রোগীকে আর অত্যাধুনিক পরীক্ষার জন্য কোন হাসপাতাল বা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নেয়া সম্ভব হয়নি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নানা

১৫ জানুয়ারি, ২০২০
২৪ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ