Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

চট্টগ্রামে জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃত্বে আ’লীগ

‘বিজয়ী’ বিএনপির প্রার্থী পুনঃগণনায় হারলো এক ভোটে

| প্রকাশের সময় : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেল থেকে সভাপতি, সম্পাদকসহ ৯ জন এবং বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত প্যানেল থেকে সহ-সভাপতিসহ ৯ জন নির্বাচিত হয়েছেন। গতবারের নির্বাচনে বিএনপির প্যানেল থেকে সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক বিজয়ী হন। তবে এবার গুরুত্বপূর্ণ দু’টি পদে পরাজিত হয়েছেন বিএনপির প্রার্থীরা।
ভোট গণনায় প্রথমে বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের প্রার্থী নাজিম উদ্দিনকে তিন ভোটে সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী ঘোষণা করা হলেও পরে পুনঃগণনায় তাকে এক ভোটে পরাজিত ঘোষণা করে। এ নিয়ে আদালত অঙ্গনে তোলপাড় চলছে। আলোচিত এ নির্বাচনে রতন কুমার রায় সভাপতি ও আবু হানিফ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। গত রোববার ভোটের পর দুই দফা গণনা শেষে সোমবার রাতে এই ফল ঘোষণা করেন এই নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার এডভোকেট ফেরদৌস আহমদ।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ‘সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ’ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৯টি এবং বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত ‘আইনজীবী ঐক্য পরিষদ’ সহ-সভাপতি, সহ-সাধারণ সম্পাদকসহ ৯টি পদে বিজয়ী হয়। এছাড়া সিনিয়র-সহ সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদ ও সমমনা পরিষদের দুই প্রার্থী সমান ভোট পাওয়ায় দুইজন ছয়মাস করে দায়িত্ব পালন করবেন।
মাত্র এক ভোটের ব্যবধানে বিএনপি সমর্থিত ঐক্য পরিষদের নাজিম উদ্দিন চৌধুরীকে পরাজিত করে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদের আবু হানিফ। হানিফ পেয়েছেন ১৩৮২ ভোট, আর নাজিম উদ্দিন পান ১৩৮১ ভোট। সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের রতন কুমার রায় ১১৬৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ঐক্য পরিষদের বদরুল আনোয়ার পেয়েছেন এক হাজার ৩৮ ভোট।
চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির নেতৃত্ব নির্বাচনে রোববার সকাল ৯টায় শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোট চলে। এরপর রোববার গভীর রাতে গণনা শেষ হলেও প্রার্থীদের দাবির মুখে সোমবার ফের গণনা শেষে রাতে চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হয় বলে জানান নির্বাচন কমিশনার আইনজীবী এনামুল হক। তিনি জানান, এবারে সমিতির নির্বাচনে তিন হাজার ৮০১ জন ভোটারের মধ্যে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন তিন হাজার ১০৪ জন। তিনি বলেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের কামরুন নাহার ও সমমনা পরিষদের মোহাম্মদ আলী সমান ভোট পাওয়ায় দুইজনই গঠনতান্ত্রিক নিয়ম অনুযায়ী ছয়মাস করে দায়িত্ব পালন করবেন। দুইজনই এক হাজার ১৯৯ ভোট করে পেয়েছেন। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদ, বিএনপি সমর্থিত ঐক্য পরিষদ এবং মুক্তিযুদ্ধ ও আইনজীবীদের স্বার্থে দুর্নীতিমুক্ত ঐক্য প্রত্যয়ী সমমনা পরিষদ মিলিয়ে মোট ৪৭ জন প্রার্থী ১৯টি পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেন। সমন্বয় পরিষদের পক্ষে বিজয়ীরা হলেন- সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে জুবাঈদা ছরওয়ার চৌধুরী, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে মো. ফয়েজ উদ্দিন চৌধুরী এবং পাঁচটি সদস্যে এম সালাউদ্দিন মনসুর চৌধুরী রিমু, অভিজিৎ আচার্য, খাইরুন্নেসা আক্তার নিশা, অসীম শর্মা ও মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী দোয়েল।
ঐক্য পরিষদ থেকে বিজয়ীরা হলেন- সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হাসান আলী চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক মহিউদ্দিন হক চৌধুরী প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভোট

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ