Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭, ১২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

২০১৮ সালের মধ্যে প্লাস্টিক শিল্পনগরীর কাজ শেষ হবে -শিল্পমন্ত্রী

| প্রকাশের সময় : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানের ধলেশ্বরী ব্রিজের পশ্চিম পাশে ৫০ একর জমির ওপর প্লাস্টিক শিল্পনগরী গড়ে তোলার কাজ ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে শেষ হবে বলে জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, প্লাস্টিক শিল্পনগরী গড়ে তোলার প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন শেষে বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। ১৩৩ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে এই শিল্পনগরীতে ৩৭০টি প্লটে প্রায় ৩৬০টি প্লাস্টিক কারখানা স্থাপন করা হবে। এতে ১ হাজার ৮০০ নারীসহ মোট ১৮ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটির কাজ শেষ হবে বলে আমি আশাবাদী।
গতকাল (বুধবার) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘১২তম আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলার’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী। তিনি জানান, দ্রুত প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনকে (বিসিক) নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
শিল্পমন্ত্রী আরও বলেন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে তৈরি পোশাক, ওষুধ, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের মতো গুটিকয়েক পণ্যের ওপর নির্ভর করলে হবে না। এ সব পণ্যের পাশাপাশি নতুন পণ্যও রপ্তানির তালিকায় সংযোজন করতে হবে। প্লাস্টিক পণ্যের সম্ভাবনা এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে উজ্জ্বল।
চারদিনের এই আন্তর্জাতিক মেলাটি বাংলাদেশ প্লাস্টিক দ্রব্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিপিজিএমইএ) এবং চ্যান চাও ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেড যৌথভাবে আয়োজন করছে। এতে বাংলাদেশসহ ১৪টি দেশের ৭২টি প্রতিষ্ঠানের চার শতাধিক স্টল রয়েছে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, পাট ও প্লাস্টিকের মধ্য যে দ্বন্দ্ব আছে তা মিটিয়ে ফেলতে হবে। সবাই বসে এর একটা সমন্বয় করা দরকার।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বিপিজিএমইএর সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন, চ্যান চাও ইন্টারন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক জুডি ওয়াং প্রমুখ।
আয়োজকেরা জানান, দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো গৃহস্থালি সামগ্রী, পণ্য মোড়কীকরণের উপকরণ, প্লাস্টিক মোল্ড, খেলনা, আসবাব, মেলামিন, পোশাক খাতের সরঞ্জাম, পিপি ওভেন ব্যাগ ইত্যাদি প্রদর্শন করবে মেলায়। আর বিদেশি প্রতিষ্ঠানগুলো প্লাস্টিক ইনজেকশন মোল্ডিং, পিপি ওভেন ব্যাগ, প্যাকেজিং, ফ্লেক্সোগ্রাফিক, পেট ব্লো, প্লাস্টিক ব্যাগসহ বিভিন্ন পণ্য তৈরির যন্ত্র প্রদর্শন করবে। প্লাস্টিক মেলা শেষ হবে শনিবার। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।                      



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন