Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

মার্চ থেকে ডিএসসিসিতে ২০ বছরের পুরোনো বাস চলতে দেয়া হবে না -সাঈদ খোকন

| প্রকাশের সময় : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : মার্চ থেকে ২০ বছরের পুরোনো বাস ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় চলতে দেয়া হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন। এ ছাড়া শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকা কম বয়সী চালকদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি।
গতকাল বুধবার নগর ভবনে যানজট নিরসনকল্পে বাসগুলোকে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় আনার লক্ষে আয়োজিত বৈঠক শেষে মেয়র বলেন, বেশকিছু মৌলিক সমস্যা রয়েছে আমাদের এ শহরে। এর মধ্যে অন্যতম বড় সমস্যা হলো যানজট। যানজটের ভয়াবহতা নতুন করে বলার কিছু নেই, যানজট ঢাকার দুঃখ। এই ভোগান্তি থেকে মুক্তি দেয়ার উদ্দেশ্যেই আমাদের এ উদ্যোগ।
শহরে ২০ বছরের পুরোনো বাস চলাচল আইনগতভাবে নিষিদ্ধ। কিন্তু আইনের প্রয়োগে একটু কম মনোযোগ থাকার কারণে এসব ভাঙাচোরা, রাস্তায় চলাচল অনুপযোগী বাস চলছে রাজধানীতে। এ জন্য মার্চের ১ তারিখ থেকে এ ধরনের বাস চলতে দেয়া হবে না।
শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকা কম বয়সী চালকরা যানবাহন চালানোর সময় দুর্ঘটনা ঘটানোসহ সড়কে বিশৃঙ্খলা তৈরি করছে জানিয়ে মেয়র বলেন, আইন প্রয়োগে মনোযোগী না হওয়ায় ১২-১৩ বছরের ছোট ছোট ছেলেরা গাড়ি চালাচ্ছে। তারা যেখানে সেখানে গাড়ি রাখছে, বিশৃঙ্খলা তৈরি করছে। এটা শিক্ষাগত যোগ্যতার অভাব।
বিআরটিএর আইন অনুযায়ী ন্যূনতম শিক্ষা যদি কোনো চালকের না থাকে, তাহলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। বাস চালাতে দেয়া হবে না।
মেয়র জানান, মতিঝিল, নিউমার্কেট, সদরঘাট এলাকায় সেখানে সেখানে বাস রেখে সড়কে যানজট তৈরি করা হয়। যত্রতত্র বাস পার্কিং, এক লেইন, দুই লেইন, তিন লেইনও দখল করে বাস রেখে দেয়া হয়। অনেক সময় দেখা যায়, গাড়ি রেখে চালক কোথাও চলে গেছে। তখন পেছনে গাড়ির জট লেগে যায়। বৈঠকে বিআরটিসি এবং বেসরকারি স্টাফ বাসও রাস্তার পরিবর্তে নির্দিষ্ট জায়গায় রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে মেয়র জানান।
বিআরটিসির স্টাফ বাস যাত্রী নামিয়ে দেয়ার পর তারা ডিপোতে চলে যাবে। ডিপোতে জায়গা না হলে সিটি করপোরেশনের নির্দিষ্ট স্থানে চলে যাবে। বেসরকারি স্টাফ বাসগুলোর জন্য নির্দিষ্ট জায়গা ঠিক করা হয়েছে। তারাও তাদের চিহ্নিত জায়গায় চলে যাবে।
আজিমপুর, নীলক্ষেত, ভিক্টোরিয়া পার্ক এলাকার যানজট নিরসনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ সর্বাত্মক ব্যবস্থা নেবে যাতে সেখানে বাস দাঁড়াতে না পারে।
বৈঠকে ঢাকা মহানগর ট্রাফিকের যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমেদ, রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেনসহ বিআরটিএ, বিআরটিসি, ডিটিসিএর পরিচালক, ঢাকা জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধি এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
গুলিস্তান এলাকায় অবৈধভাবে রাখা বিভিন্ন রুটের বাসের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে জানতে চাইলে মেয়র বলেন, ফুলবাড়িয়া ও গুলিস্তানের এ সড়ক বাস রাখার জন্য নয়। বাসগুলো যাত্রী নামিয়ে চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু তারা নিয়ম মানছে না। তারা সেখানে দীর্ঘক্ষণ বাস রেখে দেয়। এদের ব্যাপারে চিন্তাভাবনা আছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ