Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

আড়াইহাজারে সালিশী বৈঠকে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

| প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ধামরাই ও সৈয়দপুরে পৃথক দুই হত্যাকান্ড
ইনকিলাব ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে সালিশী বৈঠকে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। ঢাকার ধামরাইয়ে স্ত্রীর গলাকেটে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী। এছাড়া নীলফামারীর সৈয়দপুরে তিনদিন আগে ভাতিজাদের সঙ্গে মারপিটে আহত চাচা শমসের আলী গতকাল ইন্তেকাল করেছেন।
আড়াইহাজার উপজেলা সংবাদদাতা :
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় একটি সালিশী বৈঠকে আবদুল বাতেন (৩৫) নামের যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। ১৯ ফেব্রুয়ারী রোববার দুপুর ১২টায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আবদুল বাতেন উপজেলার ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের সুলপান্দি গ্রামের দেওয়ান আলীর ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে আড়াইহাজার থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, আবদুল বাতেনের সঙ্গে প্রতিবেশী মিছির আলীর মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিরোধ ছিল। রোববার দুপুরে সালিশী বৈঠকের সময়ে হঠাৎ করে তর্ক-বিতর্কের জের ধরে মিছির আলীর পক্ষে শাহজাহান, আইউবুর, মহিবুর, ইউনুসসহ আরো কয়েকজন মিলে বাতেনকে লাঠিসোটা নিয়ে বেধড়ক পিটুনী দেয়। তাকে আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর মারা যায়। আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. হাবিব ইসমাইল ভুইয়া জানান, হাসপাতালে আনার আগেই সে মারা গেছে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। বৈঠকে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অংশ নিয়েছিল।
ধামরাইয়ে ছুরিকাঘাতে স্ত্রী হত্যা
ধামরাই উপজেলা সংবাদদাতা : ঢাকার ধামরাইয়ে কালামপুর এলাকায় শাবনাজ (২০) নামে এক সন্তানের জননীকে গলাকেটে হত্যা করেছে তার পাষÐ স্বামী। শনিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১টার দিকে কালামপুর শাবনাজের বাবার বাড়িতে এই হত্যার ঘটনাটি ঘটে। হত্যাকারী স্বামীর নাম মোঃ লিটন মিয়া (২৭)।
স্থানীয়রা জানান, স্বামী-স্ত্রী দুইজনই গার্মেন্টসে চাকরি করে। এরা নিজেরা পছন্দ করে পাঁচ বছর আগে বিয়ে করেছিল। তাদের ৪ বছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে। শাবনাজের বাবা শরিফুল ইসলাম জানান, লিটন নেশা করে সব সময় আমার মেয়েকে মারধর ও গালিগালাজ করতো। গত শনিবার এর প্রতিবাদ করতে গেলে আমার মেয়েকে ধারালো চাকু দিয়ে গলার মধ্যে পোচ মারলে সে চিৎকার করে। পরে আমরা সবাই ছুটে আসি। ততক্ষণে লিটন আমার মেয়েকে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়।
সৈয়দপুরে আহত চাচার মৃত্যু
নীলফামারী জেলা সংবাদদাতা :
নীলফামারীর সৈয়দপুরে ভাতিজাদের পিটুনিতে আহত চাচা শমসের আলী (৬৫) চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার সকালে হাসপাতালে মারা গেছেন। গত তিনদিন আগে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে চাচা ও ভাতিজাদের মারামারির ঘটনায় গুরুতর আহত চাচা শমসের আলীকে সৈয়দপুর ১শ’ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়নের বালাপাড়া গ্রামে বাড়ির ল্যাট্রিনের (পায়খানার) ময়লা পরিষ্কার করাকে কেন্দ্র করে চাচা শমসের আলীর সাথে ভাতিজা হায়দার আলী, কালাম, শাকিল ও সালামের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এতে চাচা শমসের আলী গুরুতর আহত হন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে সৈয়দপুর ১শ’ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করার ৩ দিনের মাথায় রোববার সকালে হাসপাতালে মারা যায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ