Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

তারেক সাঈদের অনুপস্থিতি নিয়ে বিভ্রান্তি কারা কর্তৃপক্ষকে শোকজ করেননি আদালত

নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন

প্রকাশের সময় : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার : ৭ খুন মামলায় র‌্যাব কর্মকর্তা তারেক সাঈদের অনুপস্থিতি নিয়ে কারা কর্তৃপক্ষকে আদালত শোকজ করেছেন বলে মিডিয়াতে বিভ্রান্তি ছড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন পিপি অ্যাডভোকেট ওয়াজেদ আলী খোকন। তিনি জানান, আজ সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। আইন অনুযায়ী কোনো আসামির অনুপস্থিতিতে সাক্ষ্য গ্রহণ করার কোনো বিধান নেই। ফলে র‌্যাব কর্মকর্তা তারেক সাঈদকে কেন আনা হয়নি, আদালত তা জানতে চান।
এ সময় আদালতে কারা কর্তৃপক্ষের ব্যাখ্যার কাগজটি না পৌঁছানোয় আদালতকে সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেনি পুলিশ। পরে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ডাক্তারের মতামতটি আদালতে দেয়া হলে আদালত আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন। আদেশে বলেন, ২৯ ফেব্রুয়ারি যে কোনোভাবেই হোক আদালতে তারেক সাঈদকে হাজির করতে বলা হয়েছে। যদি সে অসুস্থ থাকে তাহলে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে হলেও আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এখানে কারা কর্তৃৃপক্ষকে শোকজ করা হয়েছে এমন কোনো আদেশ দেননি আদালত। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে থেকে প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম, তার বন্ধু মনিরুজ্জামান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন, নজরুলের গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম, আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার এবং তার ব্যক্তিগত গাড়িচালক ইব্রাহিম অপহৃত হন। ৩০ এপ্রিল বিকেলে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে ৬ জন এবং ১ মে সকালে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। আলোচিত সাত খুনের এ ঘটনায় নিহত প্যানেল মেয়র নজরুলের স্ত্রী বিউটি একটি এবং নিহত আইনজীবী চন্দন সরকারের জামাতা ডা. বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে অপর একটি মামলা দায়ের করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ