Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

অমর একুশে গ্রন্থমেলা পর্দা নামছে আজ

| প্রকাশের সময় : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

এহসান আব্দুল্লাহ : দেখতে দেখতে কেটে গেল পুরো ফেব্রুয়ারি মাস আর সেই সাথে বিদায়ঘণ্টা বাজল বাঙালির প্রাণের বইমেলারও। কাল থেকে আর বইপ্রেমীদের পদচারণায় মুখরিত হবে না বাংলা একাডেমি আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণ। সারাদিনের ব্যস্ততা শেষে আর আলাদা করে সময় রাখা হবে না প্রিয় লেখকের বই কেনার জন্য। তাই আবারও চিরচেনা রূপে ফিরে যাবে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রাঙ্গণ। শাহবাগ, টিএসসি আর দোয়েল চত্বর আবারো কর্মজীবী মানুষের আনাগোনায় পরিপূর্ণ হবে। স্টলের স্থাপনা সরিয়ে নিতে কয়েক দিন সময় পার হবে তাই হয়তো ঐ পথ দিয়ে যেতে চোখে পড়বে বইমেলার ক্ষাণিকটা রেশ। লেখকেরা তার জমানো সাহিত্যরত্ম নিয়ে আবারো হাজির হবেন আগামী বছর ঠিক এই ফেব্রুয়ারি মাসে। পাঠকরা চাতকের মতো চেয়ে থাকবেন আরো নতুন কিছুর জন্য। এভাবেই কাটবে বাকি এগারো মাস।
কাল বইমেলার একেবারে শেষ পর্যায়ে এসে প্রাঙ্গণজুড়েই দেখা গেল পাঠকদের উপচে পড়া ভিড়। শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় এখন তারা বিশ্রামের সময়টুকু পাচ্ছেন না বললেই চলে। বিক্রেতাদের আলাদা করে কোনো ক্রেতার মনোযোগ আকর্ষণের ফুরসত মিলছে না। তালিকা করে সবাই কিনছেন পছন্দের বইগুলো। তাই হাতে সময় নিয়ে প্রতিটি স্টলের সামনেই তারা ভিড় করছেন। ব্যাগভর্তি বই নিয়ে ঘরে ফিরবেন তাই অনেকে নিয়ে এসেছেন পরিবারের অন্য কাউকে অথবা কোনো বন্ধুকে।
ঐতিহ্য প্রকাশনীর ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল বলেন, শেষ মুহূর্তে এসে বই কেনার চাহিদা অনেক বেড়েছে। আমরা সব ক্রেতার সাথে ঠিকমতো কথাই বলতে পারছি না।
একই স্টলের বিক্রয়কর্মী আলমগীর হোসাইন বলেন, বেস্ট সেলার বইগুলোই এ মুহূর্তে বেশি চলছে। আর নতুন লেখকদের বইয়ের কদর এই শেষ বেলায় বেড়েছে।
মেলায় ঘুরতে আসা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মুনির হোসাইন বলেন, প্রথম দিকে ব্যস্ততার কারণে আসা হয়নি তেমন। আর বই কেনার জন্য শেষ সময়টাকেই বেছে রেখেছিলাম। কারণ অনেক বই প্রথম দিকে আসে না শেষ দিকে আসে তাই সব বইয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হলো বলে শেষেই বই কিনলাম।
আজ অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হবে বিকেল ৩টার পরিবর্তে সকাল ১১টায় এবং চলবে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২০১৭-এর সমাপনী অনুষ্ঠান। শুভেচ্ছা ভাষণ প্রদান করবেন একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। গ্রন্থমেলার প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৭-এর সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো: ইব্রাহীম হোসেন খান। সভাপতিত্ব করবেন ইমেরিটাস অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে কবি শামীম আজাদ ও লেখক অনুবাদক নাজমুন নেসা পিয়ারীকে বাংলা একাডেমি পরিচালিত সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার ২০১৬ প্রদান করা হবে। এছাড়া অনুষ্ঠানে ২০১৬ সালে প্রকাশিত বিষয় ও গুণমানসম্মত সর্বাধিক সংখ্যক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার-২০১৭, ২০১৬ সালে প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে গুণমান ও শৈল্পিক বিচারে সেরা গ্রন্থের জন্য তিনটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার ২০১৭, ২০১৬ সালে প্রকাশিত শিশুতোষ গ্রন্থের মধ্য থেকে গুণমান বিচারে সর্বাধিক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য রোকনুুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার-২০১৭ এবং ২০১৭ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে থেকে নান্দনিক স্টল/প্যাভেলিয়ন সজ্জায় সেরা প্রতিষ্ঠান হিসেবে তিনটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার ২০১৭ প্রদান করা হবে।
গতকাল মেলায় নতুন বই এসেছে ১৫৫টি এবং ৪০টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন