Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেদন আ.লীগের প্রত্যাখ্যান

বাংলাদেশের চেয়ে ওদের মানবাধিকার পরিস্থিতি অনেক খারাপ

| প্রকাশের সময় : ৬ মার্চ, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ২০১৬ সালের বৈশ্বিক মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের তৈরি করা বার্ষিক প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে আওয়ামী লীগ। গতকাল রোববার ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেন দলটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর যে প্রতিবেদন দিয়েছে আমরা তা প্রত্যাখ্যান করছি। বাংলাদেশের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার পরিস্থিতি বহুগুণে খারাপ মন্তব্য করে হাছান বলেন, বাংলাদেশের তুলনায় প্রতিদিন গড়ে দ্বিগুণ মানুষ হত্যা করা হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। আমরা বলবো, বাংলাদেশের মানবাধিকার নিয়ে কথা না বলে নিজের দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করুন।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি অনেক ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে অনেক ভালো। এ বছর সেদেশে এ পর্যন্ত ৬শ’ লোক নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছে এবং গত বছর নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১১শ’ লোক নিহত হয়েছে। তিনি বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহতরা হিস্পানিক, কালো, রেড ইন্ডিয়ান বা ধর্মীয় ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীর লোক। এ সকল হত্যাকাÐের বিরুদ্ধে প্রায়ই যুক্তরাষ্ট্রে আন্দোলন দানা বেঁধে উঠতে দেখা যায়।
হাছান বলেন, দেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে অনেক ভালো। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগের এ প্রতিবেদনে সরকারের জঙ্গী দমন কর্মকাÐেরও সমালোচনা করা হয়েছে।
হাছান মাহমুদ এ বিষয়ে বলেন, আমাদের দেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী জঙ্গীবাদ দমনে যেভাবে দক্ষতা দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র বা ইউরোপের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও তা দেখাতে পারেননি।
দারিদ্র্য বিমোচনে ক্ষুদ্র ঋণের ভূমিকার বিরোধিতা করে হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে আগে ক্ষুদ্র ঋণের কোন প্রকল্প ছিল না, এমনকি এদেশের মানুষ ক্ষুদ্র ঋণের বিষয়টি জানতোই না। ক্ষুদ্রঋণ বলতে গেলে ভিক্ষাবৃত্তি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর থেকে এ দেশের দরিদ্রতা আরো বাড়িয়ে দেয়ার জন্য এ ক্ষুদ্র ঋণ প্রকল্প চালু করা হয়েছে।
সরকারের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দারিদ্র্য বিমোচনে ক্ষুদ্র ঋণের ভূমিকা নিয়ে প্রশংসা করলেও আপনারা কেন বিরোধিতা করছেন- জানতে চাইলে হাছান মাহমুদ বলেন, এটা ওনার ব্যক্তিগত মতামত। এটা সরকারের বক্তব্যও না আওয়ামী লীগেরও না।
অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে হাছান বলেন, অর্থমন্ত্রী অনেক সময় অনেক কথা বলেন। দেখবেন কয়েকদিন পর আবার এই কথা নিজেই পরিবর্তন করবেন।
অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্য আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্রের বহিঃপ্রকাশ দাবি করে হাছান বলেন, আমাদের দলের নেতাদের মধ্যে যে গণতন্ত্র আছে, এটা অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যের মাধ্যমে তার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। দলে থেকেও কেউ দলের নিজের যে কোন মত প্রকাশ করতে পারে, এটাই তার উদাহরণ।
উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগ গত ৩ মার্চ, ২০১৬ সালের বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।



 

Show all comments
  • Nur- Muhammad ৬ মার্চ, ২০১৭, ৬:৪০ এএম says : 1
    এই প্রতিবেদন যদি সরকারের পক্ষে যেত তা হলে উন্নয়ন হয়েছে বলে উৎসব চলত। আর এখন প্রতাখ্যাত হল।
    Total Reply(0) Reply
  • Pabel ৬ মার্চ, ২০১৭, ২:৫১ এএম says : 1
    sotto mene near moto sot sahos sobar thake na
    Total Reply(0) Reply
  • ফিরোজ আলম ৬ মার্চ, ২০১৭, ৮:৩৩ এএম says : 0
    ইনকিলাবের খবর অনেক সুন্দর
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu cowhan ৬ মার্চ, ২০১৭, ৮:৩৭ এএম says : 0
    Aowamilig never accept the truth if it goes to against them.....
    Total Reply(0) Reply
  • Kafil Uddin ৬ মার্চ, ২০১৭, ১২:৩৮ পিএম says : 0
    কানাডার রিপোর্টে বাংলাদেশের দলকানা মিডিয়া যে ভাবে লাফালাফি করেছে এখন আমেরিকার রিপোর্টে নিরব কেন?
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Ashraful Alam ৬ মার্চ, ২০১৭, ১২:৩৯ পিএম says : 0
    পক্ষে না গেলে কেউ প্রতিবেদন গ্রহন করে না এটাই বাংলাদেশের নিয়ম!
    Total Reply(0) Reply
  • Nur- Muhammad ৬ মার্চ, ২০১৭, ১:০৫ পিএম says : 1
    কানাডার আদালত হয়ত বলছে, বি এন পি এবং আয়ামী লীগ সন্রাসী দল। আঃ লীগ নেতারা আঃ লীগকে মুছে দিল। শুধু বি এন পি কে সন্রাসী বানাল। নিজ দেশের একটি জনপ্রিয় দলকে সন্রাসী বলে খুব সুখ পেল। আনন্দ পেল। কানাডার সংবাদ, নেতারা সদরে গ্রহন করল। আজ যুক্ত রাষ্ট মানবধিকারের কথা বলছে। এই কথা সরকারের বিপক্ষে গেল। তাই প্রত্যাখ্যাত হল।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর