Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৭ মে ২০১৭, ১৩ জ্যৈষ্ঠ , ১৪২৪, ৩০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ১৪ মার্চ, ২০১৭, ১২:০০ এএম

প্র:- নারী পুরুষের সম্মিলিত জামাআতে কাতার কোন তরতীবে করা হবে?
উ:- প্রথমে পুরুষদের কাতার। তারপর ছেলেদের কাতার, তারপর নপুংসকদের কাতার, তারপর মহিলাদের কাতার এবং সবশেষে বালিকাদের কাতার করা হবে।
প্র:- নামাযের মধ্যে কোন্ কাজগুলো ইমাম বাদ দিলে মুক্তাদীগণকেও বাদ দিতে হয়?
উ:- পাঁচটি কাজ। ১. দুই ঈদের অতিরিক্ত তাকবীরসমূহ, ২. প্রথম বৈঠক, ৩. তিলাওয়াতের সিজদাহ, ৪. সাহু সিজদাহ এবং ৫. দোয়ায়ে কুনূত।
প্র:- কোন্ কাজগুলোতে ইমামের অনুসরণ করতে হবে না?
উ:- ১. ইমাম যদি ঈদের নামাযের মোট ষোল তাকবীরের চেয়ে বেশি তাকবীর দিতে শুরু করেন।
২. জানাযার নামাযে চারের অধিক তাকবীর দিলে।
৩. রুক‚-সিজদাহ বেশি করে ফেললে।
৪.পঞ্চম রাকাতের জন্যে দাঁড়িয়ে গেলে।
এ সকল অতিরিক্ত কাজে ইমামের অনুসরণ করা যাবে না, বরং তাকে ‘আল্লাহু আকবার’ বলে সংশোধন করে দিতে হবে।
প্র:- কোন্ কাজগুলো ইমাম ভুলবশতঃ ছেড়ে দিলেও মুক্তাদীগণ করে ফেলবে?
উ:- আটটি কাজ: ১. তাকবীরে তাহরীমার সময় হাত উঠানো। ২. সানা পড়া। ৩. রুক‚-সিজদাহর জন্য তাকবীর। ৪. রুক‚-সিজদাহর তাসবীহ। ৫. সামিআল্লাহু লিমান হামিদাহ পড়া। ৬. তাশাহ্হুদ বা আত্তাহিয়্যাতু পড়া। ৭. আসসালাম শব্দ বলা। ৮. তাকবীরে তাশরীক।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।