Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৩ পৌষ ১৪২৪, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ হিজরী

ডায়বেটিস রোগীর কাঁধে ব্যথা

| প্রকাশের সময় : ১৫ মার্চ, ২০১৭, ১২:০০ এএম

বয়স্ক ডায়বেটিস রোগীদের বেশির ভাগই কাঁধের ব্যথায় ভুগে থাকেন। যার মূল কারণ এ্যাডহেসিভ ক্যাপসুলাইটিস যা পরবর্তীতে কাঁধের জয়েন্টকে শক্ত করে ফেলে যার ফলে ক্রমান্বয়ে রোগী হাত উপরে উঠাতে পারে না, পিঠের দিকে নিতে পারে না, জামা-কাপড় পরতে পারে না এমনকি মাথা আঁচড়াতেও পারে না। এই অবস্থাকে মেডিকেল পরিভাষায় ফ্রোজেন সোল্ডার বলা হয়।
কারণ:
এটি অনেকগুলি কারণে হতে পারে। যেমন-
(১) হাত দিয়ে ভারী কিছু উঠাতে যেয়ে একটু ব্যথা পেয়েছে কিন্তু অতটা গুরুত্ব দেয়া হয়নি পরবর্তীতে দেখা যাচ্ছে ক্রমান্বয়ে কাঁধের ব্যথা বাড়ছে পাশাপাশি কাঁধের মুভমেন্ট কমে যাচ্ছে।
(২) অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় রোগীর সারভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস বা ঘাড়ের ক্ষয় রোগ আছে যার ফলে ঘাড় থেকে হাতে ব্যথা চলে আসে এবং এই ব্যথার কারণে রোগী হাতের নড়াচড়া কমিয়ে দেয় এবং ক্রমান্বয়ে জয়েন্টটি শক্ত হয়ে যায়।
(৩) অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় ভ্রমণের সময় বাসে কিংবা গাড়িতে যাত্রাকালীন এক বড় ধরনের ব্রেক করা হলে যাত্রী তার ব্যক্তিগত সাপোর্টের জন্য হাত দিয়ে শক্ত করে গাড়ির হাতল ধরে থাকে এবং ব্যথা পায় যা পরবর্তীতে কাঁধ ব্যথার কারণ হয়ে থাকে।
(৪) তাছাড়াও বয়স চল্লিশের উপরস্থলে যেমনÑ আমাদের ডিজেনারেটিভ প্রবলেম শুরু হয় তেমনি জয়েন্টের অভ্যন্তরীণ সাইনোভিয়াল ফ্লুইড কমে যেতে থাকে। তার ফলে কাঁধে ব্যথা হতে পারে।
রোগ নির্ণয় :
এই ধরনের সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীর ইতিহাস জানা খুবই জরুরি। পাশাপাশি আক্রান্ত কাঁধের এক্সরে করা প্রয়োজন পড়ে।
করণীয় :
এই রোগটি ডায়বেটিস আক্রান্ত ব্যক্তিদের বেশি হয়ে থাকে। সেহেতু ডায়বেটিস আক্রান্ত ব্যক্তিদের ব্যথানাশক ওষুধ যথাসম্ভব পরিহার করা উচিত। তবে মাংসপেশী রিলাক্স করার জন্য মাসল রিলাক্সেন জাতীয় ওষুধের প্রয়োজন পড়ে। পাশাপাশি রোগীর সমস্যা সমাধানে প্রয়োজন সঠিক ও সময়োপযোগী ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা। এই রোগটি সঠিকভাবে চিকিৎসা না হলে রোগীর কাধের মাংসপেশী ক্রমান্বয়ে শুকিয়ে যায়, দুর্বল হয়ে যায় এবং কিছু মাংসপেশী শক্ত হয়ে যায়, ফলে এমন সময় রোগী হাত উঠাতেই পারে না। এমতাবস্থায় রোগী ও রোগীর পরিবারের লোকজন খুবই দুঃশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এই রোগের চিকিৎসায় কিছু ইলেকট্রোথেরাপিউটিক এজেন্ট যেমন-আল্ট্রাসাউন্ড থেরাপি, মাইক্রোওয়েভ ডায়াথেরাপি ও ম্যানুয়াল থেরাপির মধ্যে ¯েøাল্ডার মোবিলাইজেশন এক্সারসাইজ ও ম্যানুপুলেশন থেরাপি খুবই উপকারী। পাশাপাশি রোগীকে কিছু এক্সারসাইজ করতে হয়। যেমন-
১। পেনডুলাম এক্সারসাইজ ২। ওয়াল ক্লাম্বিং এক্সারসাইজ
৩। ¯েøাডার রোটেশন এক্সারসাইজ ইত্যাদি
ডাঃ এম. ইয়াছিন আলী
চেয়ারম্যান ও চীফ কনসালটেন্ট
ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসাপাতাল
বাড়ি নং-১২/১, রোড নং-৪/এ, ধানমন্ডি, ঢাকা।
০১৭৮৭-১০৬৭০২

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ