Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

অমর একুশে বইমেলা বিরহের সুর, আজ নামবে পর্দা

প্রকাশের সময় : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইখতিয়ার উদ্দন সাগর : অমর একুশে গ্রন্থমেলার পাশেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান থেকে ভেসে আসছিল বিরহী কোকিলের করুণ ডাক। আজই সাঙ্গ হবে প্রাণের বইমেলা। তাই এখন মেলায় বাজছে ভাঙনের সুর। বইপ্রেমীদের ভিড়, আড্ডা এবং হাতে হাতে বইয়ের দৃশ্য দেখা যাবে না আর। এর জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও একটি বছর। কারণ আজকের দিনটি ফুরোলেই তো শেষ হবে অমর একুশে বইমেলা। আমাদের সংস্কৃতির সর্বজনীন উৎসবে রূপ নেয়া মেলার সমাপনী দিন আজ। পুরো মেলার আবহজুড়ে এখন তাই বিরহের সুর।
আগামীকাল থেকে মেলা প্রাঙ্গণে পড়বে না আর লাখো মানুষের পদচিহ্ন, মিলবে না দেখা লেখক-পাঠকের, থাকবে না মানুষের মিলনমেলা আর আড্ডা। গতকাল বিভিন্ন স্টলে, নজরুল মঞ্চে, মূল মঞ্চসহ মেলাজুড়েই ছিল বিদায়ের আবেশ। গতকাল কোন ছুটির দিন না হলেও সকালে থেকেই শিশু চত্বরে ছিল কিশোর-কিশোরী ও তাদের অভিভাবকদের উপচেপড়া ভিড়।
রাজধানীর উত্তরা থেকে মেলায় এসেছিলেন চাকরিজীবী শিমুল। বললেন, বইমেলা শেষ হওয়ার পথে তাই মন খারাপ। আরও একটা বছর অপেক্ষা করতে হবে এ মেলার জন্য। ঐতিহ্য প্রকাশনীর বিক্রয় ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল জানিয়েছেন, মেলার শেষ দিকে শুধু ক্রেতারা আসেন। তাই এখন বিক্রি ভালো।
প্রকাশকদের আশা, আজ শেষ দিনে টিএসসি থেকে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত নামবে মানুষের ঢল। মেলা শেষের আগের দিনজুড়ে ছিল বিক্রির ধুম। মেলায় আগত প্রায় প্রত্যেকেরই হাতে ছিল নতুন বই। কাউকে খালি হাতে ফিরতে দেখা যায়নি। সবার হাতেই ছিলো ব্যাগভর্তি বই।
মিরপুর থেকে বান্ধবী রোমানা ইয়াসমিন লাজকে নিয়ে মেলায় আসেন লোকমান হোসেন সবুজ। সবুজ জানান, তিনি মেলায় এসে হুমায়ূন আহমেদের চারটি বই কিনেছেন। এছাড়া একটি নজরুল সমগ্রও কিনেছেন। মেলার শেষ দিকে বিক্রেতারা দাম নিয়ে খুব একটা ঝামেলা করেন না। কিছুটা কম দামে হলেও বই বিক্রি করছেন।
লেখক আড্ডায় বসে কথা হয় ডা. আনিস আহমেদ এর সাথে তিনি বলেন, আমরা যারা তরুণ লেখক আমাদের বেশি বেশি বই পড়তে হবে। তাহলে আমাদের লেখা পাঠকের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে বলে আমি মনে করি। তিনি আরো বলেন, এবার মেলায় ভালোবাসা ফিরে ফিরে আসে নামক তার একটি বই এসেছে। এবার আর কোন বই প্রকাশ করব না। আবার এক বছরের অপেক্ষা থাকব বই প্রকাশ করার জন্য।
এদিকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে ব-দ্বীপের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা চলবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। গতকাল রোববার বিকেলে মেলা পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা বলেন। আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা সবার আছে, কিন্তু কারও অনুভূতিতে আঘাত করা উচিৎ নয়। ব-দ্বীপ ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হয়েছে। তাদের বিরূদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা চলবে।
ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, প্ল্যাটফর্ম স্টলে আগুন লাগানোর প্রচেষ্টায় সফল হয়নি দুর্বৃত্তরা। ঘটনার পরে তদন্ত চলছে এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে।
মূল মঞ্চের অনুষ্ঠান : বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ডিজিটাল মুক্তিযুদ্ধের কৌশল শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তফা জব্বার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন জাতীয় সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যামসুন্দর সিকদার, ড. মাহবুবুল হক এবং তারিক সুজাত। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।
আজকের অনুষ্ঠানসূচি
অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর সমাপনী দিন। মেলা শুরু হবে বেলা ২টার পরিবর্তে বেলা ১টায় এবং শেষ হবে রাত যথারীতি ৮টায়। বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে রয়েছে নওয়াজেশ আহমেদ ও নাইবুদ্দিন আহমদকে স্মরণ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন শিল্প-সমালোচক অধ্যাপক নজরুল ইসলাম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অধ্যাপক বুলবন ওসমান, শামসুল আলম এবং নাসিম আহমেদ নাদভী। সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি।
সমাপনী অনুষ্ঠান
সন্ধ্যা ৬টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর সমাপনী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা ভাষণ প্রদান করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৬-এর সদস্য-সচিব ড. জালাল আহমেদ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব বেগম আক্তারী মমতাজ। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ইমেরিটাস প্রফেসর আনিসুজ্জামান।
অনুষ্ঠানে প্রবাসে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চর্চায় অবদানের জন্য ফরাসি গবেষক ও অনুবাদক ফ্রাঁস ভট্টাচার্য ও প্রবাসী বাঙালি কথাশিল্পী মন্জু ইসলামকে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার-২০১৫ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদান করা হবে।
এছাড়া অনুষ্ঠানে ২০১৫ সালে প্রকাশিত বিষয় ও গুণমানসম্মত সর্বাধিকসংখ্যক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬, ২০১৫ সালে প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে গুণমান ও শৈল্পিক বিচারে সেরা গ্রন্থের জন্য তিনটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬, ২০১৫ সালে প্রকাশিত শিশুতোষ গ্রন্থের মধ্য থেকে গুণমান বিচারে সর্বাধিক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য রোকনুুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬ এবং ২০১৬ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে থেকে নান্দনিক অঙ্গসজ্জায় সেরা প্রতিষ্ঠানকে শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬ প্রদান করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ