Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

দক্ষ কারিগর হতে সম্প্রসারণ মাঠ সফরে শিক্ষার্থীরা

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

| প্রকাশের সময় : ২৭ মার্চ, ২০১৭, ১২:০০ এএম

কি হচ্ছে এখানে? কাউকে কোন কথা বলতে দেয়া হবে না।’ এভাবেই মাঝে মাঝে সকলের মধ্যে চিৎকার দিয়ে উঠত নাজিব। কিছু সময়ের জন্য আঁতকে উঠত সবাই। পরে সকলের বোধগম্য হয় এটা আর কিছুই না শুধু নাটকে পুলিশ চরিত্রের একটা ডায়লগের অংশ। সফরের সমাপনী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য সবাই নিজের ডায়লগগুলো এভাবে ঝালাই করে নিচ্ছিল।
বাংলাদেশের প্রশাসনিক কর্মকান্ডের সর্বনিম্ন ইউনিট উপজেলা। দেশের গবেষণালব্ধ কৃষি প্রযুক্তি কৃষকের দোরগোড়ায় পৌঁছানো, উপজেলার সাংগঠনিক রূপরেখা, কর্মপদ্ধতি ও বার্ষিক কর্মসূচির সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে সম্প্রতি এক শিক্ষা সফরের আয়োজন করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) কৃষি সম্প্রসারণ শিক্ষা বিভাগ।
৬ দিনব্যাপী এ মাঠ সফরে অংশগ্রহণ করে কৃষি প্রকৌশল ও কারিগরী অনুষদ এবং ফুড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মোট ১০৮ জন শিক্ষার্থী। শিক্ষা সফরে শ্রদ্ধেয় অধ্যাপক মো. আফজাল হোসেন ও প্রভাষক দেবাশীষ সরকার দেব স্যারের তত্ত¡াবধায়নে ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং ও এফ.পি.এম গ্রæপ গিয়েছিল বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের এলাকা কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায়।
সফর কার্যকর করতে আগে থেকেই গঠিত হয় কয়েকটি কমিটি। পরিকল্পনা অনুযায়ী রওনা দিলাম ১৯ ফেব্রæয়ারি সকাল সাড়ে ৮ টায়। প্রকৃতিকন্যা বাকৃবি কয়েক মিনিটে ত্যাগ করার পর নিজেদের পরিপাটি করে মোড়ানো রূপ যেন দিল ধরা। বাসের ভেতর শুরু হয় উৎসবের কলোরব। বাসের গতি বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে নাচ, গান, আড্ডা আর হৈ-হুল্লোড়। সাথে সাথে নিজেদের স্মৃতিকে ধরে রাখতে চলে ফটো সেশন।
সকাল ১১ টায় পৌঁছালাম কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায়। পৌঁছানোর পরই উপজেলা পরিষদে অনুষ্ঠিত হয় সফরের উদ্বোধন অনুষ্ঠান। আমাদের ছেলেরা ছিল উপজেলার হরটিকালচার সেন্টার সেন্টার ও মেয়েরা ছিল পাট গবেষণা ইনস্টিটিউটের ডরমেটরিতে। সবাই একসাথে নিজেদের নিয়ে যাওয়া বেডিং পেতে এক রুমে থাকার স্বাদই অন্যরকম।
পর দিন থেকে শুরু হয় উপজেলার কর্মকাÐ নিয়ে সারা দিনে ক্লাস আর তথ্য সংগ্রহ। আর গভীর রাত পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি। এভাবেই চলে ৫ দিন। এই সফর ছিল ভবিষ্যত কর্ম জীবনে কঠোর পরিশ্রমের পূর্ব প্রস্তুতি। চলতে থাকে উপজেলা পর্যায়ে মৎস্য, কৃষি, পল্লী উন্নয়ন, প্রাণিসম্পদ, মহিলা বিষয়ক অফিস, ভ‚মি অফিস ও জাতি গঠনমূলক দপ্তরগুলির উদ্দেশ্য, রূপরেখা, কর্মপদ্ধতি, বার্ষিক কর্মসূচির সাথে পরিচিত হওয়ার মাধ্যমে ভবিষ্যতের যোগ্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তার হিসেবে গড়ে উঠার এক অনন্য প্রয়াস।
প্রতি মুহূর্তে সকলের মাঝে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি। জীবনে প্রথমবারের কোন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের কথা চিন্তা করে চলে তর্ক-বিতর্ক, হাসি-ঠাট্টা, হৈ-হুল্লোর থাকে সব সময়। শেষ দিন সন্ধ্যায় হয় কাক্সিক্ষত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শেষে ‘গর্ত’ নাটক মঞ্চস্থ করা হয়। সকলের অক্লান্ত পরিশ্রমে সফল হয়ে অনুষ্ঠানটি।
সকলের অক্লান্ত পরিশ্রম আর আন্তরিকতা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আতিথেয়তা, সারাদিনের ক্লাস করা, গ্রæপ করে ডাটা সংগ্রহ করে পোস্টার প্রদর্শন, প্রতিদিন গভীর রাত্রি পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, রাতে আড্ডা, ছেলে-মেয়েদের রম্য-বিতর্ক প্রতিযোগিতা, ফার্ম পরিদর্শন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দেখতে যাওয়া, সবাই মিলে রাত্রি জেগে নির্ঘুম স্মৃতির রোমন্থন, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার রম্য বক্তব্য কোন দিনই ভোলার নয়।
জীবনে শিক্ষণীয় এমন আনন্দক্ষণ কখন পাব কিনা জানি না। প্রকৃতির নিয়মে ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে যাব কিন্তু সম্প্রসারণ শিক্ষা সফরে এসে কাটানো দিনগুলি স্মৃতির পাতায় স্মরণীয় হয়ে থাকবে চিরজীবন।
ষ নাজিব মুবিন



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।