Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পাকিস্তানে গভর্নর হত্যার অভিযোগে মোমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর

রাজপথে সমর্থকদের বিক্ষোভ, সতর্কাবস্থায় নিরাপত্তা বাহিনী

প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের গভর্নর সালমান তাসিরের হত্যাকারী হিসেবে দোষী সাব্যস্ত দেশটির এলিট ফোর্স কমান্ডার মোমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। মুমতাজ কাদরি গভর্নর তাসিরের দেহরক্ষী ছিলেন। ২০১১ সালে ইসলামাবাদে তার গুলিতে নিহত হন তাসির। গতকাল সোমবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে আদিয়ালা কারাগারে মোমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর করা হয়।
স্থানীয় পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তা সাজ্জিদ গোন্ডাল জানান, গতকাল সোমবার ভোরে আদিয়ালিয়া কারাগারে কাদরির ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। এক কারা কর্মকর্তা ফাঁসি কার্যকরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মুমতাজ কাদরির মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কঠোর নিরাপত্তায় কারাগার থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গত রবিবার রাতে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কাদরি শেষ সাক্ষাৎ করেন।
মোমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর উপলক্ষে কারাগারের ভেতরে ও বাইরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়। অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা এড়াতে বিপুল পরিমাণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। আদিয়ালা কারাগারমুখী সব সড়কে যান চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। বিক্ষোভ দমনে শহরজুড়ে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী মোতায়েন রয়েছে। মোমতাজের ফাঁসি কার্যকর করার বিষয়টিকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক অবস্থানে রাখা হয়।
ফাঁসি কার্যকরের কয়েক ঘণ্টা পর মোমতাজ কাদরির ক্ষুব্ধ সমর্থকেরা রাজপথে নেমে আসেন। তারা এই ফাঁসি কার্যকরের ঘটনার নিন্দা জানান। এ সময় তারা প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের প্রতিকৃতিতে অগ্নিসংযোগ করে ফাঁসির প্রতিবাদ জানায়।
২০১১ সালের ৪ জানুয়ারি দিনের বেলাতেই ইসলামাবাদের কোহসার মার্কেটে কাদরি ২৮টি গুলি করে পাঞ্জাব প্রদেশের গভর্নর সালমান তাসিরকে হত্যা করেন। একই বছরের ১ অক্টোবর তাসিরকে হত্যার অভিযোগে মৃত্যুদ-ের রায় দেয় দেশটির একটি আদালত। মোমতাজ কাদরির দাবি, দেশটির ব্লাসফেমি আইনের সমালোচনা করায় সালমান তিসারকে তিনি হত্যা করেছেন।
পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইনে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি আসিয়া বিবিকে সমর্থন করায় সালমান তাসিরকে গুলি করার কথা স্বীকার করেন মোমতাজ। এই হত্যাকা-ের ঘটনাটি পাকিস্তানে আলোড়ন সৃষ্টি করে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানানো হয়, আসিয়া বিবিকে ক্ষমা করার জন্য তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারিকে অনুরোধ করেছিলেন তাসির। তিনি ব্লাসফেমি আইনের বিপক্ষে কথা বলে ইসলামপন্থীর বিরাগভাজন হয়েছিলেন। ডন, এএফপি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানে গভর্নর হত্যার অভিযোগে মোমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর
আরও পড়ুন