Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫, ৮ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

হিমাচলে পাক-ভারত ম্যাচে আপত্তি!

প্রকাশের সময় : ১ মার্চ, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ধরমশালাতে যে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি হওয়ার কথা রয়েছেÑ তা হিমাচল প্রদেশ থেকেই সরিয়ে অন্যত্র নেয়ার দাবি তুলেছে রাজ্যে ক্ষমতাসীন কংগ্রেস দল। কারণ হিসেবে দলের নেতারা বলছেন, হিমাচল থেকে আসা ভারতীয় সেনাবাহিনীর বহু সদস্য পাকিস্তানি জঙ্গিদের হামলায় শহীদ হয়েছেন এবং সেখানে পাকিস্তান খেলতে আসলে তাদের অনুভূতিতে আঘাত দেয়া হবে। এই যুক্তিতে হিমাচল রাজ্যের প্রাক্তন সৈনিকরা আগেই ধরমশালাতে ম্যাচ বাতিল করার দাবি তুলেছেন। এখন রাজ্যের কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী নিজে এবং বিজেপিরও একাংশ সেই দাবিতে সামিল হয়েছেন।
শিবসেনার বাধায় মুম্বাইসহ মহারাষ্ট্রের কোথাও পাকিস্তানের ম্যাচ আয়োজন করা সম্ভব হচ্ছে না, এখন এই দাবি মানা হলে হিমাচলেও পাকিস্তানের খেলা বাতিল হয়ে যেতে পারে। হিমাচলের কাংড়া জেলার প্রায় প্রত্যেকটি গ্রাম থেকেই অসংখ্য মানুষ সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়ে আসছে। ওই কাংড়া জেলায় প্রাক্তন সৈনিকদের একটি সংগঠনের প্রেসিডেন্ট বিজয় সিং মানকোটিয়া বলেছেন, গত এক দেড়মাসেই পাঠানকোট বিমান ঘাঁটি ও কাশ্মিরে পাকিস্তানি জঙ্গিরা যেভাবে ভারতীয় সৈন্যদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদেরকে হত্যা করেছে তাতে এখনই এই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে পারে না। তিনি বলেছেন, এসব হামলায় শুধু কাংড়া জেলা থেকেই ৭ থেকে ৮ জন সৈনিক শহীদ হয়েছেন। তিনি বলছেন, ‘ফলে এই আঘাতটা এখনও টাটকা। ক্ষত এখনও শুকায়নি। তাই হিমাচলে এখনই ম্যাচের আয়োজন করাটা ঠিক হবে না।’
কংগ্রেস থেকে নির্বাচিত হিমাচলের মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিংও এই ম্যাচটি নিয়ে আপত্তি তুলেছেন। বলেছেন, এখন এই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলে সেটা মানুষের অনুভূতিতে আঘাত হানতে পারে। তবে হিমাচল রাজ্যে বিজেপির এমপি অনুরাগ ঠাকুর, যিনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সাধারণ সম্পাদক, তিনি ম্যাচ আয়োজনের পক্ষে। মি. ঠাকুর বলেছেন, ‘এটা নিছকই একটা ক্রিকেট ম্যাচ। খেলা আর রাজনীতিকে একসাথে মেশানো ঠিক নয়।’ আগামী ১৯ মার্চ হিমাচলের ধর্মশালায় ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে, এশিয়া কাপে ভারত-পাক মহারণের পর দর্শকদের চোখ এবার টি-২০ বিশ্বকাপে। ১৯ মার্চ মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী উত্তর ভারতের শীতল স্থানে উষ্ণতা এনে দেবে বাইশ গজে ভারত-পাক মহাযুদ্ধ। টি-২০ বিশ্বকাপে ভারত-পাক লড়াইয়ের সাক্ষী থাকতে ধরমশালা ম্যাচের টিকিটের চাহিদা তুঙ্গে। এই ম্যাচের টিকিটের জন্য অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করার আবেদন করেছিল বিসিসিআই। তার ভিত্তিতে মাত্র দু’দিনে ১ লাখ ৩৮ হাজার ১০১ জন রেজিস্ট্রেশন করে ফেলেছেন। এর মধ্যে প্রথম দিনই এক লাখ ১৫ হাজার ৬৮১ জন দশর্ক অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করেন। হিমাচলপ্রদেশ ক্রিকেট এসোসিয়েশনের তরফে এমনটা জানানো হয়েছে। এদের মধ্যে লটারি করে ভারত-পাক মহারণের টিকিট দেয়া হবে। ভারত-পাক ম্যাচের জন্য অনলাইন রেজিস্ট্রেশন খোলা রয়েছে ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ২ মার্চ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ