Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৭, ৪ ভাদ্র, ১৪২৪, ২৫ যিলকদ ১৪৩৮ হিজরী

এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি-২০১৭

| প্রকাশের সময় : ৯ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ফারুক মেহেদী ফুয়াদ
সহযোগী অধ্যাপক
মিরপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, ঢাকা।
বিষয় : ইসলাম শিক্ষা-দ্বিতীয়পত্র
১। ইয়াসির জুমার নামাজ পড়তে মসজিদে প্রবেশ করল। ইমাম সাহেব নামাজের আগে প্রতি জুমাবারের ন্যায় তার নির্ধারিত বিষয়ে আলোচনা করছিলেন। তার আলোচনার বিষয় ছিল আল-কোরআনের পরিচয় ও অলৌকিকত্ব। ইমাম সাহেব বলেন, আল কোরআন আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে অবতারিত সর্বশেষ আসমানি কিতাব। এতে কোনো সন্দেহ নেই। যুগ যুগ ধরে মানুষ এর একটি ভুলত্রæটি খুঁজে পায়নি। এমনকি পৃথিবীর সব জিন ও ইনসান মিলেও পবিত্র কোরআনের একটি সুরার ন্যায় কোনো সূরা তৈরি করতে সক্ষম হয়নি।
(ক) আল কোরআন কী?
(খ) আল কোরআনকে পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান বলা হয় কেন?
(গ) আল কোরআন সংরক্ষণের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস লিখ।
(ঘ) তুমি কি ইমাম সাহেবের বক্তব্যের সাথে একমত? তোমার মতের পক্ষে যুক্তি দাও।
২। জনাব আবদুর রহমান সাহেব একদা তার সকল সন্তানকে একত্র করে উপদেশ দিচ্ছিলেন। এ সময় জনাব আবদুর রহমান সাহেব তার সন্তানদের বললেন, শোন! আমরা আদম সন্তান। আদম (আ.) ছিলেন এ পৃথিবীতে আল্লাহতায়ালার প্রতিনিধি। তাই সন্তান হিসেবে আমাদের ওপর দায়িত্ব এ পৃথিবীতে আল্লাহর বিধান বাস্তবায়ন করা। এখানে শয়তানের রাজত্ব চলতে না দেওয়া।
(ক) খলিফা শব্দের অর্থ কি?
(খ) উদ্দীপক থেকে ৩টি শিক্ষা খুঁজে বের কর।
(গ) হযরত আদম সৃষ্টির ইতিহাস লিখ।
(ঘ) মানুষ আল্লাহর প্রতিনিধি হিসেবে কী কী দায়িত্ব পালন করবে লিখ।
৩। শিক্ষক ইসলাম শিক্ষার শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করে সালাম বিনিময়ের পর কয়েকটি আয়াত তিলাওয়াত করে তা ব্যাখ্যা করেন। এর মধ্যে একটি আয়াতের অর্থ হচ্ছে, “আমি এমন এক কিতাব অবতীর্ণ করেছি, যার মধ্যে তোমাদেরই আলোচনা করা হয়েছে। তোমরা কি তা বোঝ না।” (সূরা আল-আম্বিয়া : ১০) আলোচনার শেষ পর্যায়ে শিক্ষক বলেন, “আলোচ্য বিষয়গুলোকে শাহ ওয়ালিউল্লাহ দেহলভি (রহ.) প্রধানত পাঁচ ভাগে ভাগ করেছেন।”
(ক) রাসূল (সা.)-এর ওপর কত বছরে কোরআন নাজিল পূর্ণ হয়।
(খ) ওহী বলতে কি বোঝায়?
(গ) “কোরআন তিলাওয়াত উত্তম ইবাদত” ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) পার্থিব জীবনে আল কোরআনের গুরুত্ব ব্যাখ্যা কর।
৪। মুসল্লিদের উদ্দেশে খতিব সাহেব বললেন, আজ আমি আপনাদের সামনে বনি ইসরাইল সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনারা কি জানেন বনি ইসরাঈল কারা? বনি ইসরাঈলের নিকট থেকে আল্লাহতায়ালা বহু প্রতিশ্রæতি নিয়েছিলেন, কিন্তু তারা সেসব প্রতিশ্রæতির মর্যাদা রক্ষা করতে পারেনি। তারা আল্লাহর নেয়ামতের শুকরিয়া আদায় করতে পারেনি। ফলে তারা অভিশপ্ত জাতিতে পরিণত হয়েছিল। এরপর তিনি কোরআন থেকে দলিল পেশ করেন।
(ক) বনি ঈসরাইল জাতির পরিচয় দাও
(খ) মুনাফিক কারা? মুনাফিকদের আলামতগুলো লিখ।
(গ) বনি ঈসরাইল জাতির প্রতি আল্লাহর অনুগ্রহসমূহ লিখ।
(ঘ) মুত্তাকিদের বৈশিষ্ট্যসমূহ লিখ।
৫। মাওলানা আইয়ুবী সাহেব একাদশ শ্রেণির ইসলাম শিক্ষা ক্লাসে হাদিস অধ্যায় পাঠদান করছিলেন। ছাত্র আনোয়ার প্রশ্ন করল, স্যার, ইসলামের যাবতীয় মৌল নীতিমালা কোরআন দ্বারাই নির্ধারিত। হাদিস সংরক্ষণ ও সংকলনের প্রয়োজন কী? জনাব আইয়ুবী সাহেব বললেন, হাদিস হলো আল্লাহর পরোক্ষ বাণী। হাদিস ব্যতীত কোরআন বোঝা যাবে না।
(ক) হাদিস কাকে বলে?
(খ) সনদ ও মতন বলতে কী বুঝায়?
(গ) নৈতিক জীবন গঠনে হাদিসের ভূমিকা বর্ণনা কর।
(ঘ) হাদিস সংরক্ষণ সম্পর্কে যা জান লিখ।
৬। আল কোরআনের অধ্যায়ের আলোচনা শেষ করে শিক্ষক আলিম সাহেব আল-হাদিসের আলোচনা শুরু করেন। ক্লাসের ছাত্র নাফিস বলল, হাদিসের প্রয়োজন কী? কোরআন মাজিদেই তো সব কিছুর বর্ণনা আছে। আলিম সাহেব বললেন, কোরআনের মতো হাদিসও আল্লাহর ওহি। হাদিস ছাড়া কোরআন বোঝা যায় না এবং নিয়মমতো ইবাদত পালন করা সম্ভব নয়।
(ক) হাদিসে কুদসি কাকে বলে?
(খ) কোরআন ও হাদিসের ৩টি মৌলিক পার্থক্য লিখ।
(গ) “হাদিস আল কোরআনের ব্যাখ্যা” আলোচনা কর।
(ঘ) হাদিসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা আলোচনা কর।
৭। ফুলবাগিচা গ্রামের ধর্মভীরু লোক নাছির মিয়া। সে ধর্মমতে চলতে চায়। কিন্তু শরিয়তের অজ্ঞতার কারণে কী করবে তা বুঝে উঠতে পারে না। তাই সে একদিন মসজিদের ইমাম সাহেবের কাছে এসে বলল, হুজুর আমাকে এমন নসিহত করুন যা আমল করে মুক্তি পেতে পারি। ইমাম সাহেব তাকে শরিয়তের উৎস, ইজমার ইতিহাস ও পরিচয় তুলে ধরেন এবং বলেন শরিয়তের হুকুমগুলো মেনে চলুন এবং নিষেধগুলো বর্জন করুন।
(ক) ইজমা কাকে বলে?
(খ) ইজমার আহল বলতে কী বোঝায়?
(গ) কোরআন হাদিসের আলোকে ইজমাভিত্তিক সমাধান মেনে চলার গুরুত্ব ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) সংকট নিরসনে শরিয়ত ইজতিহাদ আবশ্যক কেন?
৮। হাসান তার ওস্তাদকে জিজ্ঞাস করল, খলিফা নির্বাচন, কোরআন সংকলন, কোরআনের পাÐুলিপি পুড়িয়ে ফেলা, তারাবির বিশ রাকাত নামাজ কিসের ভিত্তিতে নির্ধারণ হয়েছে। ওস্তাদ উত্তরে বলেন, রাসূল (সা.) এর পরে এ সকল কাজ ইজমার মাধ্যমে সম্পন্ন হয়েছে। হাসান বলল, তাহলে ইজমার সম্পর্কে আমাকে বিস্তারিত অবগত করুন। তখন ওস্তাদ তাকে বিস্তারিতভাবে ইজমার প্রকারভেদ পদ্ধতি ও রুকন ব্যাখ্যা করে শোনান।
(ক) ইসলামী শরিয়তের মূল উৎস কয়টি ও কী কী?
(খ) আযিমত ও রুখসাত বলতে কী বুঝায়?
(গ) ইজমার উৎপত্তি কীভাবে হয়েছে?
(ঘ) উদ্দীপকের আলোকে শিক্ষকের বর্ণিত ইজমার প্রকার, পদ্ধতি ও ইজমার রুকনসমূহ আলোচনা কর।
৯। ছাত্রÑ স্যার, শরিয়তে কিয়াসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা আছে কি?
শিক্ষকÑ হ্যাঁ, শরিয়তে কিয়াসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা আছে।
ছাত্রÑ কিয়াস ইসলামী আইনের উৎস কিনা?
শিক্ষকÑ কিয়াস ইসলামী আইনের উৎস।
ছাত্রÑ শরিয়তে কিয়াসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা এবং যেভাবে কিয়াস ইসলামী আইনের উৎস সে সম্পর্কে আমাকে বলবেন কি?
শিক্ষকÑ শরিয়তে কিয়াসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা এবং কিয়াস ইসলামী আইনের উৎস, তা বিস্তারিতভাবে বলছি শোন।
ছাত্রÑ আপনাকে ধন্যবাদ।
শিক্ষকÑ তোমাকেও ধন্যবাদ
(ক) কিয়াসের সংজ্ঞা দাও।
(খ) “হে বিচক্ষণ জ্ঞানীগণ! তোমরা গভীর চিন্তাভাবনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ কর।” আয়াতটি দ্বারা শরিয়তের কোন বিধানের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে?
(গ) কিয়াসের হুকুম ও প্রকারসমূহ লিখ।
(ঘ) উদ্দীপকে ছাত্র-শিক্ষকের কথোপকথনের আলোকে কিয়াসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা আলোচনা কর।
১০। মুফতি হারুন সর্বদা ইসলামী বিধিবিধানের আলোকে সমাজ পরিচালনা করেন এবং সব সময় ইসলামী সমস্যাগুলোর সমাধান দিয়ে যাচ্ছেন। এমতাবস্থায় ফারুক তাকে বললেন হুজুর আপনার কথাগুলোর পক্ষে কোনো যৌক্তিক ইতিহাস আছে কী? তখন মুফতি হারুন তাকে বললেন, আমার কথাগুলোর পক্ষে অবশ্যই ইসলামী ফিকহর যৌক্তিক ইতিহাস রয়েছে। তার আলোকেই মূলত বিধিবিধানের সমস্যাগুলো সমাধান করে থাকি। তখন ফারুককে মুফতি হারুন ফিকহর উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশের ইতিহাস ব্যাখ্যা করেন।
(ক) ফিকহ শাস্ত্রের উৎপত্তি কখন থেকে শুরু হয়?
(খ) “ইলমে ফিকহের মূল উৎস কোরআন” উক্তিটি ব্যাখ্যা কর।
(গ) উদ্দীপকের আলোকে ফিকহ শাস্ত্রের ক্রমবিকাশ ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) শরিয়তের বিধান সহজভাবে উপস্থাপনে মাযহাবের গুরুত্ব ব্যাখ্যা কর।
১১। একই কলেজের ছাত্র সায়েম ও প্রণব। দুজনের মধ্যে গভীর বন্ধুত্বের সম্পর্ক। একসাথে ক্লাস করা, একসাথে চলাফেরা, এমন কি প্রায়ই একসাথে খাওয়া-দাওয়া চলে তাদের। একদিন ক্লাসের ফাঁকে প্রণব সায়েমকে চা পানের প্রস্তাব করলে সায়েম বলল, “আমি দিনের বেলা কিছু খাব না।” এভাবে বছরে এক মাস আমাদের দিনের বেলা পানাহার থেকে বিরত থাকতে হয়।” এরপর সে বলল, “মুসলমানদের জীবনে এই উপবাসব্রত পালন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”
(ক) ইবাদতের সংজ্ঞা দাও।
(খ) “সালাত শান্তি প্রতিষ্ঠার অন্যতম মাধ্যম” উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা কর।
(গ) মানব সৃষ্টির উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা কর।
(ঘ) যাকাত কীভাবে অর্থনৈতিক ভারসাম্য তৈরি করে।

 


Show all comments
  • md.al emran ১৯ মে, ২০১৭, ১১:৫৭ এএম says : 0
    excellent
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ