Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

আসাদ সরকারকে সমর্থন দেয়ার অঙ্গীকার রাশিয়া ও ইরানের

| প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলার পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়া ও ইরানের সামরিক বাহিনীর প্রধানগণ আসাদ সরকারকে অব্যাহত সমর্থন দেয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। তারা বলেছে, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত থাকবে। যুক্তরাষ্ট্র সিরীয় সরকারি বিমান ঘাঁটিতে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর কয়েকদিন পর মিত্র দেশ দু’টি আসাদ সরকারের পক্ষে এ বক্তব্য দিল। শনিবার ফোনে আলাপকালে ইরানের মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাঘেরি ও রাশিয়ার জেনারেল ভ্যালেরি গেরাসিমভ সিরিয়ার সরকারি বিমান ঘাঁটিতে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, এটা একটা স্বাধীন দেশের বিরুদ্ধে আগ্রাসন। ইরানের বার্তা সংস্থা ইরনা এ কথা জানায়। দুই সামরিক কর্মকর্ত যৌথ বিবৃতিতে বলেন, সিরিয়ার সেনাবাহিনী ও মিত্ররা যখন সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ধীরে ধীরে যুদেদ্ধ জয়ী হচ্ছে, তখন তাকে নস্যাৎ করার জন্যই যুক্তরাষ্ট্র ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। তারা সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের সমর্থনে সামরিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন। দুই সামরিক কর্মকর্তা বলেন, সন্ত্রাসীরা সম্পূর্ণভাবে নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ সমর্থন অব্যাহত থাকবে। ইরান ও রাশিয়া আসাদ সরকারের দীর্ঘ দিনের ঘনিষ্ঠ মিত্র। তারা সিরিয়ায় আসাদ-বিরোধী সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে। রাশিয়া ওইরান উভয় সিরিয়া সরকারের রাসায়নিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের মার্কিন অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে। গতকাল সকালে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি রাসায়নিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার তীব্র সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, এই লোকটি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। তিনি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আজ সিরিয়ার সকল সন্ত্রাসী তার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় উল্লাস প্রকাশ করছে। এদিকে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন। কয়েকদিন পর টিলারসনের মস্কো সফর করার কথা। লেভরভ বলেন, একটি দেশে হামলা চালানো হয়েছে, যে দেশটি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের কথা বলেছিলো। কিন্তু তাদের সেই হামলা এখন সন্ত্রাসীদের হাতকেই শক্তিশালী করেছে। এবং আঞ্চলিক ও বৈশি^ক নিরাপত্তার প্রতি হুমকি হয়ে উঠেছে। এদিকে, শনিবার বিদ্রোহী অধ্যুষিত ইদলিবে বিমান হামলায় চারটি শিশুসহ ১৮ জন নিহত হয়েছে। সিরিয়াভিত্তিক যুক্তরাজ্যের মানবাধিকার পর্যবেকক্ষণ সংস্থা এ খবর জানায়। উরুম আল- যোজ গ্রামে রাশিয়া ওই বিমান হামলা চালিয়েছে বলে তারা জানায়। ইরাকি আইএস জানিয়েছে, মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের হামলায় রাকার কাছে ফোরাত নদীতে বেশকিছু বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে। আইএস রাকায় নারী ও শিশুদের গলাকাটা ছবিও প্রকাশ করেছে। এ ছাড়াও হোমসসহ বিভিন্ন স্থানে হামলার ঘটনা ঘটছে। আল জাজিরা।



 

Show all comments
  • Vubon Sarkar ১০ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:৩১ পিএম says : 1
    এসব হল সিরিয়াকে ধ্বংসের শেষ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার নাটক। আমেরিকা রাশিয়া আসলে তলে তলে একই। সিরিয়াকে গিনিপিগ বানিয়ে দুই পক্ষই ফায়দা লুটছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Asraf Rasel ১০ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:৩২ পিএম says : 0
    সিরিয়ার পর ধ্বংস করা হবে ইরান তারপর সৌদি আরবকে।তারপর মুসলিমরা যাযাবরে পরিনত হবে।এর কারন মুসলিমরা নিজেই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ