Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ০৪ মাঘ ১৪২৭, ০৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য ৩ বছর কর অবকাশ সুবিধা আদায়ে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই

| প্রকাশের সময় : ১২ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

কর্পোরেট রিপোর্টার : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) আগামী অর্থবছরের বাজেট থেকে সুবিধা আদায়ে একসঙ্গে কাজ করবে। সোমবার ডিএসইতে এক সভা করা হয়েছে। এতে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং পর্ষদ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় ডিএসই’র চেয়ারম্যান ড. আবুল হাশেম বলেন, বিগত দিনগুলোতে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ দেশের পুঁজিবাজার উন্নয়নে একসাথে কাজ করেছে। আমাদের উদ্দেশ্য এক ও অভিন্ন। তা হলো পুঁজিবাজার উন্নয়ন। পুঁজিবাজার তথা বিনিয়োগকারীদের স্বার্থে যে কোনো উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে যৌথভাবে প্রস্তাবনা দেওয়া হলে তার গুরুত্ব অনেকাংশে বাড়বে এবং বাস্তবায়নের গতি বৃদ্ধি পাবে। এতে পুঁজিবাজারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থাও বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে। পরে ডিএসইর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল মতিন পাটওয়ারী আগামী তিন অর্থবছরের জন্য উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের শতভাগ কর মওকুফ সুবিধা; উভয় এক্সচেঞ্জের ৬০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি থেকে এককালীন মূলধনী আয়ের উপর কর অবকাশ সুবিধা; তালিকাভুক্ত কোম্পানি থেকে তালিকাবহির্ভূত কোম্পানির কর্পোরেট করহারের ব্যবধান কমপক্ষে আরো ১০ শতাংশে বাড়ানো এবং নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য কমপক্ষে ৩ বছর কর অবকাশ সুবিধা আদায়ে এক সঙ্গে কাজ করার কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, ৫৩ বিবিবি ধারায় করহার শতকরা শূন্য দশমিক শূন্য ৫ থেকে কমিয়ে শূন্য দশমিক শূন্য ১৫ করা; করমুক্ত লভ্যাংশ আয় ২৫০০০ টাকা থেকে এক লাখ টাকায় উন্নীত করা; সরকারি কোম্পানি এবং আরও অধিক সংখ্যক ভালো কোম্পানির শেয়ার পুঁজিবাজারে নিয়ে আসা; লেনদেনের সময় বাড়ানো এবং স্বল্প মূলধনী বোর্ড চালু করাসহ বিভিন্ন বিষয়ে সরকারের কাছে আমরা তুলে ধরবো। এক্ষেত্রে দুই স্টক এক্সচেঞ্জ একসঙ্গে কাজ করলে তা ইতিবাচক হবে। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ. সাইফুর রহমান মজুমদার পুঁজিবাজার তথা সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরেন। যার মধ্যে রয়েছে দেশীয় শিল্প রক্ষা, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প রক্ষা, আগামী জাতীয় বাজেটে পুঁজিবাজার উন্নয়নে সুনির্দিষ্ট ও কৌশলগত দিক নির্দেশনার উপস্থিতি এবং স্বল্প, মধ্য, দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ ও তার বাস্তবায়ন। এছাড়া যৌথভাবে ট্রেডিং সফটওয়্যার তৈরি, ভালো মৌলভিত্তিসম্পন্ন কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির জন্য আর্থিক প্রণোদনা প্রদান, ব্রোকারেজ হাউজগুলোর নতুন শাখা খোলার অনুমোদন, ডে-ট্রেডিং এবং বাজার উন্নয়নের কাজ করার জন্য উভয় এক্সচেঞ্জের সমন্বয় যৌথ কমিটি গঠনসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সিএসই’র চেয়ারম্যান ড. এ. কে. আব্দুল মোমেনের নেতৃত্ব সিএসই’র প্রতিনিধিদলে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ শামিম চৌধুরী, অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মেজর (অব.) এমদাদুল ইসলাম এবং ডিএসই’র পক্ষে পরিচালক বিচারপতি ছিদ্দিকুর রহমান মিয়া, মনোয়ারা হাকিম আলী, ওয়ালিউল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মো. এম কায়কোবাদ, অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমান, মো. রকিবুর রহমান এবং মো. শাকিল রিজভীসহ আরও অনেকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নতুন

১৮ ডিসেম্বর, ২০২০
৩ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ