Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৭, ২ ভাদ্র, ১৪২৪, ২৩ যিলকদ ১৪৩৮ হিজরী

শুরু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ-বগুড়া রেললাইনের কাজ

| প্রকাশের সময় : ১৪ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ঢাকা-রংপুর রেলপথে ১১২ কিলোমিটার দূরত্ব কমবে
বিশেষ সংবাদদাতা : শুরু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ-বগুড়া রেললাইনের কাজ। সিরাজগঞ্জ-বগুড়া লিংক রুটটি চালু হলে ঢাকা থেকে রংপুরের দূরত্ব ১১২ কিলোমিটার কমে যাবে। সময় লাগবে বর্তমান সময়ের তুলনায় অনেক কম। রেলওয়ে সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর এবারের ভারত সফরের চুক্তিতে রেল বিভাগের তিনটি প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে বগুড়া থেকে সিরাজগঞ্জ হয়ে শহীদ এম মনসুর আলী স্টেশন পর্যন্ত ডুয়েল গেজ রেললাইন স্থাপন (৫০ কোটি ডলার), ঈশ্বরদী রেললাইনের উন্নয়ন (৩.৫ কোটি ডলার), ফেনী হতে বিলোনিয়া রেললাইনের সংযোগ স্থাপন (১০ কোটি ডলার) ও দুই দেশের নদীপথের বাণিজ্য বাড়াতে নদীবন্দরগুলোর উন্নয়ন (অর্থের পরিমাণ আলোচনা করে নির্ধারণ করা হবে)। এরই অংশ হিসেবে খুব শিগগিরই আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে সিরাজগঞ্জ-বগুড়া রেললিংক।
সূত্র জানায়, বগুড়া থেকে শহীদ এম মনসুর আলী স্টেশন পর্যন্ত ভায়া ঈশ্বরদী বাইপাস রেলপথে বিদ্যমান দূরত্ব ১৮৭.০২ কিলোমিটার। এদের মাঝে সরাসরি রেললাইন তৈরি হলে দূরত্ব দাঁড়াবে মাত্র ৭৪.৫১ কিলোমিটার। এতে করে ঢাকা-রংপুর রেলপথে (ভায়া বগুড়া-কাউনিয়া) দূরত্ব কমে যাবে ১১২.৫১ কিলোমিটার। সূত্র জানায়, এডিবির রেলসেক্টর ইমপ্রæভমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় প্রথম প্রস্তাবিত হয় বগুড়া- সিরাজগঞ্জ লিংকটি। একে ঢাকা-বুড়িমারী রেল-করিডরের মিসিং লিংক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। বর্তমানে ভারত সরকারের ঋণ সহায়তা নিশ্চিত হয়েছে প্রকল্পটি। যে কারণে খুব শিগগিরি আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে এই প্রকল্প।
ঢাকা থেকে রংপুর ঈশ্বরদী বাইপাস হয়ে বর্তমান দূরত্ব ৪০৫.২৪ কিলোমিটার। কিন্তু এই নতুন লাইন ব্যবহার করে গেলে, ভায়া বগুড়া-সান্তাহার হয়ে এরুটে দূরত্ব হবে ৩৭২.৫৯ কিলোমিটার (৩২.৬৫ কিলোমিটার কম), এবং ভায়া বগুড়া-কাউনিয়া হয়ে এ রুটে দূরত্ব দাঁড়াবে ৪০৩.১৭ কিলোমিটার (২.০৭ কিলোমিটার কম)। বগুড়া-সিরাজগঞ্জ লিংক রুট চালু হলে ঢাকা থেকে রংপুর যেতে দূরত্ব কমবে ১১২.৫১ কিলোমিটার। রংপুর ও বগুড়া থেকে ট্রেনে ঢাকায় আসা অনেক সহজ হবে। এই রুট চালু হলে একই সাথে লাভবান হবে কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাটসহ পুরো উত্তরবঙ্গের বাসিন্দারা।

 


Show all comments
  • mahbubul haque ১৬ এপ্রিল, ২০১৭, ৯:৩৮ পিএম says : 0
    শুরু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ থেকে বগুড়া পর্যন্ত নতুন রেললাইনের কাজ। এই খবরটি পড়ে আমার খুব আনন্দ হচ্ছে। কারণ, এই নতুন রেললাইন/ডুয়েলগেজ তৈরির ফলে ঢাকা থেকে রংপুরের দূরত্ব ১১২ কিঃমিঃ কমে আসবে। অনেক দিন থেকেই শুনছি সিরাজগঞ্জ থেকে বগুড়া পর্যন্ত মিটারগেজ রেললাইন তৈরি করা হবে। অবশেষে ডুয়েলগেজ রেললাইন তৈরি/বাস্তবায়িত হবে এ জন্য বেশীই আনন্দ ও ভালো লাগছে। যদিও এই ডুয়েলগেজ রেললাইনটি ১৫ বছর আগেই তৈরি/বায়স্তবায়ন করা উচিত ছিল। এ দেশের নাগরিক হিসেবে উত্তরবঙ্গের রেল যোগাযোগের বিষয়ে আমার কিছু বলার আছে যা নিম্নরূপঃ ০১। (ক) শহীদ এম মনসুর আলী রেলস্টেশন জংশন হয়ে রায়পুর রেলস্টেশনের পরে পরস্পর দু’দিকে অবস্থিত সিরাজগঞ্জ বাজার রেলস্টেশন এবং সিরাজগঞ্জ রেলস্টেশন (এখানে দু’টি রেলস্টেশন আছে) হয়ে বগুড়া রেলস্টেশন পর্যন্ত ডুয়েলগেজের পরিবর্তে ব্রডগেজ রেললাইন তৈরিকরণ (যদিও সিরাজগঞ্জ বাজার রেলস্টেশন ও সিরাজগঞ্জ রেলস্টেশনের সামনে আবাসিক এলাকা রয়েছে); (খ) বগুড়া রেলস্টেশন থেকে কাউনিয়া জংশন রেলস্টেশনের পরে তিস্তা জংশন রেলস্টেশন থেকে বুড়িমাড়ি রেলস্টেশন পর্যন্ত বিদ্যমান মিটারগেজ রেললাইনকে ব্রডগেজ রেললাইনে রূপান্তরকরণ; (গ) তিস্তা জংশন রেলস্টেশন থেকে কুড়িগ্রাম নতুন রেলস্টেশন--পুরান রেলস্টেশন হয়ে নাগেশ্বরী হয়ে ভুরুঙ্গামারী পর্যন্ত (সম্ভব হলে ভুরুঙ্গামারী থেকে পাগলার হাট-বাজার বা অন্যান্য প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত) ব্রডগেজ রেললাইন তৈরিকরণ; (ঘ) কুড়িগ্রাম নতুন রেলস্টেশন থেকে রমনা বাজার রেলস্টেশন পর্যন্ত বিদ্যমান মিটারগেজ রেললাইনকে ব্রডগেজ রেললাইনে রূপান্তকরণ; (ঙ) রমনা বাজার রেলস্টেশন থেকে সুন্দরগঞ্জ হয়ে বামনডাঙ্গা রেলস্টেশন পর্যন্ত ব্রডগেজ রেললাইন তৈরিকরণ; (চ) শান্তাহার জংশন রেলস্টেশন থেকে বগুড়া রেলস্টেশন পর্যন্ত বিদ্যমান মিটারগেজ রেললাইনকে ব্রডগেজ রেললাইনে রূপান্তরকরণ; (ছ) পার্বতীপুর জংশন রেলস্টেশন থেকে কাউনিয়া জংশন রেলস্টেশন পর্যন্ত বিদ্যমান মিটারগেজ রেললাইনকে ব্রডগেজ রেললাইনে রূপান্তরকরণ; (জ) চিলাহাটি রেলস্টেশন থেকে পঞ্চগড় রেলস্টেশন হয়ে (প্রয়োজনে করতোয়া নদীর ঐ পারে পঞ্চগড় শহরের পাশেই সৌন্দর্য মন্ডিত প্রধান রেলস্টেশন তৈরিকরণসহ) তেঁতুলিয়া থেকে বাংলাবান্ধা পর্যন্ত ব্রডগেজ রেল লাইন তৈরিকরণ; (ঝ) পার্বতীপুর থেকে আব্দুলপুর জংশন রেলস্টেশন পর্যন্ত আরো একটি ডুয়েলগেজ রেললাইন তৈরিকরণ (যেহেতু বিদ্যমান রেললাইনের পার্শ্বেই মাটি ভরাটকৃত স্থান রয়েছে অর্থাৎ একসময় এখানে ডাবল রেললাইন ছিল, সেহেতু তুলনামূলক খরচ কম হবে)। ০২। (ক) (অ) মিটার গেজ রেললাইনে দূর্ঘটনা ঘটে তুলনামূলক বেশী; (আ) এই ট্রেনের/ইঞ্জিনের গতি কম অর্থাৎ চাইলেও গতি বাড়ানো যায় না, এমনকি ঘন্টায় ৮০ কিঃমিঃ বেগে চলে বা চালানো যাবে কিনা সন্দেহ! (ই) মিটারগেজ ট্রেনের বগিতে যাত্রী ধারণ ক্ষমতা কম এবং ভ্রমণ আরামদায়ক না; (ঈ) এ ছাড়াও মিটারগেজ ইঞ্জিনের শক্তি কম এবং বেশী বগি লোড নিতে পারেনা। (খ) (অ) অপরদিকে, ব্রডগেজ রেললাইনে দূর্ঘটনা ঘটে তুলনামূলক কম; (আ) এই ট্রেনের/ইঞ্জিনের গতি (ঘন্টায় ১০০ কিঃমিঃ- এর অধিক) বেশী; (ই) ব্রডগেজ ট্রেনের বগিতে যাত্রী ধারণ ক্ষমতা বেশী এবং ভ্রমণ আরামদায়ক। (ঈ) এ ছাড়াও ব্রডগেজ ইঞ্জিনের শক্তি বেশী এবং ২৫-৩০ বগি পর্যন্ত লোড নিতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • aminul ২০ এপ্রিল, ২০১৭, ২:৩৮ পিএম says : 0
    well come bangladesh rail way.munsur ali station,raypur,erandha station ( large station),chandaikona,sherpur,ranihat,bogra station this route is finalise recently.
    Total Reply(1) Reply
    • MD. ARIFUR RAHMAN (SOZIB) ৮ মে, ২০১৭, ১০:০১ এএম says : 0
      Munsur ali station,raypur,Erandha station ( large station),chandaikona,sherpur,ranihat,bogra station OR Sirajgonj bazar to Bogra which route if final? If anybody knows, please inform me.
  • Shahadot ২০ এপ্রিল, ২০১৭, ২:৪৬ পিএম says : 0
    Rangpur to Bamondanga Rail Baipas need & Balashighat Bahdurabad Road &Rail Bridge needs for Devolpment Of Rangpur Division
    Total Reply(0) Reply
  • saiful ২০ এপ্রিল, ২০১৭, ৭:১৩ পিএম says : 0
    sirajgong to bogra new rail way project is a very important communication of north bengal of bangladesh.it is a great connectivity of india,mayanmar,nepal,chaina.goverment has finalise the rail way route .bogra dc office,sirajgonj rail way office,rail way ministry finalise the rail way route.the route m munsur ali station,raypur,erandha(large station),chandaikona,sherpur,ranihat,bogra station.the erandha station connected the bogra -dhaka high way road,this road 82 feet wide connected ullahpara rail way station.this 82 feet wide metaloid road is connect bogra- dhaka high way road.erandha station is contain,officers quaters,mosque,post office,godown,school and others institution.
    Total Reply(0) Reply
  • karim ২৩ এপ্রিল, ২০১৭, ৪:৩৯ পিএম says : 0
    Bangladesh rail way department has decision to implement the sirajgong to bogura (70km) new rail way line recently.this rail way line is a very important link to north bengal to Dhaka. this new rail way line is a very very important route of inter connectivity of india, bangladesh, nepal, bhutan, mayanmmar, china and eastern part of india. dhaka to north bengal bound train distance is less (180km) than presant distance and time save 3 hours than the present time.the ministry of rail way,sirajgong rail way office, bogura rail way office and bogura dc office has finalised the new rail way roule. this route m munsur ali station, raypur station, erandha station (large station), chandaikona station, sherpur station, ranihat station, bogra station. erandha stations connected road is 82 feet wide.this road is connected dhaka-bogra high way road.this station is directly connected ullahpara rail way station. erandha stations contains a new officers quarters, ticket counter, school, large platform, mosque, telephone exchange office and digital signal system.the soil excavation north side of the road.the ministry has finalized the soil excavation is the north side of the road.but the station area is not excavation soil.
    Total Reply(0) Reply
  • Sheikh Shajahan Ahmed ২৭ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:৫১ পিএম says : 0
    It's better to construct between Balashighat Bahdurabad Road & Rail Bridge to develop Rangpur and Mymonshingh division.This bridge will reduce distance from Dhaka & Mymonshingh to North Beagle and reduce vehicle pressure of Jamuna Bridge.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।