Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৭, ১৪ বৈশাখ , ১৪২৪, ২৯ রজব ১৪৩৮ হিজরী।

স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে দরিদ্রদের পাশে গবি শিক্ষার্থীরা

| প্রকাশের সময় : ১৭ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

সীমাহীন ত্যাগ আর লাখো প্রাণের রক্তে স্নাত আমাদের স্বাধীনতা। মাতৃভ‚মির স্বাধীনতার জন্য অকাতরে প্রাণ বিলিয়ে দিয়েছেন এদশের জল মাটি মেখে বেড়ে ওঠা বীর সন্তানেরা। একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর পাক-হানাদারের বর্বরোচিত হামলার পর ২৬ মার্চ সূচনা হয় আমাদের মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের। রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমরা পেয়েছি আমাদের স্বাধীনতা আর আমাদের গৌরবের স্বাধীনতা দিবস। দেশমাতৃকার এই স্বাধীনতাকে সমুন্নত রাখার দায়িত্ব আজ দেশের প্রতিটি মানুষের।
স্বাধীনতা দিবসে কে কি করবে তাই নিয়ে ২১ মার্চ বিকাল ৩টায় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বন্ধুদের আড্ডায় এভাবেই জমে উঠেছিল স্বাধীনতার গল্প। পড়ন্ত বিকেলের রৌদ্রময় এই আড্ডায় গণবি শিক্ষার্থী আশিকুর রহমান প্রস্তাব করেন এবারের স্বাধীনতা দিবসে ভিন্ন কিছু করার। তিনি বলেন, আমরা এবারের স্বাধীনতা দিবসকে দরিদ্র ও স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকা গ্রামাঞ্চলের মানুষের মাঝে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবার মধ্যদিয়ে অর্থপূর্ণ করে তুলতে পারি। পারি তাদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে। মূলত এই প্রস্তাবের পরেই উপস্থিত সকলের সম্মতিতে কুষ্টিয়া জেলার খোকসা উপজেলার ওসমানপুর ইউনিয়নের মানুষদের স্বাধীনতা দিবসে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার পরিকল্পনা হাতে নেয় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শিক্ষার্থী। শুরু হয় তোরজোড়। যোগাযোগ করা হয় ওসমানপুরের মানুষের সাথে। এই স্বাস্থ্যসেবা কর্মসূচি সফল করতে স্থানীয়দের সহযোগিতা চাইলে সানন্দে সহযোগিতা করতে রাজি হন উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা ওসমানপুরের শিক্ষার্থীদের সমাজসেবামূলক সংগঠন ট্রিড এর সদস্যরা। তাদের সহযোগিতায় রায়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভ্যেনু নির্ধারণ, চিকিৎসক থেকে শুরু করে এলাকায় মাইকিং করে চিকিৎসাসেবা প্রত্যাশী মানুষের কাছে স্বাস্থ্যসেবার কথা পৌঁছে দিয়ে তারা অনেকটাই সহজ করে দেয় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের কর্মসূচির প্রস্তুতিপর্ব। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থী মাশতুরা হক মীমের সাথে এই কর্মসূচির ব্যাপারে জানিয়ে যোগাযোগ করলে বন্ধুবান্ধবসহ খুশি মনে এই শুভ কাজে সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দেন তিনি। সকলের সহযোগিতায় শেষ হয় প্রস্তুতিপর্ব। এরপর ২৫ মার্চ মূলপর্বের উদ্দেশ্যে গণ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের একটি ছোট দল যাত্রা করে ওসমানপুরের রায়পুর গ্রামে। পরীক্ষা আর পড়াশোনার চাপে কুষ্টিয়ায় স্বাস্থ্যসেবায় যোগ দিতে না পারা শিক্ষার্থীরা অনেকেই সম্মিলিত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিদায় জানান এই ছোট দলটিকে। সবুজে ঘেরা ওসমানপুর ইউনিয়নের রায়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২৬ মার্চ সকাল থেকেই ভিড় জমতে থাকে চিকিৎসা প্রত্যাশী মানুষের। সকাল ৯টায় পায়রা উড়িয়ে এই স্বাস্থ্যসেবা কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন বরিশাল বিভাগের স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ সাইদুর রহমান সামাদ। তিনি এমন উদ্যোগের ভ‚য়সী প্রশংসা করে বলেন, সুবচন নির্বাসনে নয়, সুবচনের পুনর্বাসনের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। তিনি এসময় তরুণদের সুন্দর চিন্তা, সুন্দর কথা আর সুন্দর কর্মে মনোযোগী হয়ে দেশ কে ভালোবাসার আহŸান জানান। এরপর ডাঃ সাইদুর রহমান সামাদের নেতৃত্বে তিন চিকিৎসকের একটি দল দিনব্যাপী চিকিৎসা পরামর্শ প্রদান করেন। এ সময় কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থী মাশতুরা হক মীম, মিজানুর রহমান, মো. তারেক হাসান, জিন্নাহ সায়েদ মাহমুদ এবং আমিনুল ইসলাম উপস্থিত রোগীদের ডায়বেটিকস ও রক্তের গ্রæপ নির্ণয় করেন।
ষ বিধান মুখার্জী

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।