Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৭, ৪ ভাদ্র, ১৪২৪, ২৫ যিলকদ ১৪৩৮ হিজরী

আমিই আসল হিন্দু, বিজেপি হিন্দুত্বের নামে কলঙ্ক : মমতা

| প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : শুধু পুজো দেয়াই নয়, পুরীতে গিয়ে রাজনীতির তাসও খেলে রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অনেক দিন ধরেই তার ইচ্ছে ছিল পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে পুজো দেয়ার। শেষমেশ গত বুধবার ভ্রাতৃবধূ লতা এবং পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে সঙ্গে নিয়ে জগন্নাথ দর্শন করলেন তৃণমূল নেত্রী কিন্তু তার এই পুজো দেওয়াকে উপলক্ষ করে বিজেপি বিরোধিতায় কড়া বিবৃতি দিয়ে গোটা বিষয়টাকে কৌশলে রাজনীতির চাল হিসাবেই ব্যবহার করলেন তিনি। বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হলেন সোশ্যাল মিডিয়াতেও। প্রতিরোধ উপেক্ষা করে জগন্নাথ মন্দিরে পুজো দেওয়ার পাশাপাশি বিজেপিকে আক্রমণ করে মমতা পাল্টা দাবি করলেন, তাদের থেকেও তিনি বেশি হিন্দু। মমতার কথায়, আমিই আসল হিন্দু, বিজেপি হিন্দুত্বের নামে কলঙ্ক। দু’দিন আগে ভুবনেশ্বরেই দলের কর্মসমিতির বৈঠকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, উড়িষ্যায় যে দিন আমরা সরকার গড়ব, সে দিনই আমাদের স্বপ্ন সফল হবে। পাল্টা আক্রমণ করে উড়িষ্যার মাটিতে দাঁড়িয়েই মমতা বললেন, ওরা পুবের দিকে তাকালে আমি দিল্লির দিকে তাকাব। রামনবমীর আগে থেকে পশ্চিমবঙ্গে অস্ত্র হাতে বিজেপির আস্ফালনে তৃণমূলের অন্দরেই উদ্বেগ বেড়েছে। তাই মমতার জগন্নাথ-বন্দনাকে নিছক পূজার্চনা হিসেবে দেখতে রাজি নন কেউই। বিজেপির উগ্র হিন্দুত্বের মোকাবিলায় তিনি বরং উদার বা ভাল হিন্দু’দের নিজের দিকে টানতে চাইছেন। এখন প্রশ্ন হল, হিন্দুত্বের হাতিয়ারে বিজেপিকে পাল্টা বিঁধাতে গিয়ে মমতার সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্কে কি প্রভাব পড়বে তা ভাববার বিষয়। তৃণমূল সূত্রে বলা হচ্ছে, নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহদের জমানায় সঙ্ঘ পরিবার যে পথে এগোচ্ছে, তাতে সংখ্যালঘুরা এমনিই সন্তস্ত্র। তাই রাজ্যের শাসক হিসাবে মমতার উপরেই সংখ্যালঘুরা যে আস্থা রাখবেন, এই ব্যাপারে তৃণমূল নেতৃত্বের বিশেষ সংশয় নেই। তারা এখন বিজেপির তাস ছিনিয়ে তাদের জমিতে ভাগ বসাতে চাইছেন। জগন্নাথ মন্দিরে মমতার পুজো দেওয়া নিয়ে গত মঙ্গলবারই এক সেবাইত আপত্তি তুলেছিলেন। পুরীর রাস্তায় রাস্তায় চক-খড়িতে লেখা ‘গো ব্যাক মমতা’ও চোখে পড়েছে এ দিন। পিটিআই. এবিপি।

 


Show all comments
  • Mohin ২১ এপ্রিল, ২০১৭, ১:৫৮ পিএম says : 0
    respect
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Saleh Bablu ২১ এপ্রিল, ২০১৭, ১:৫৮ পিএম says : 0
    তাহলে বুঝা যায় হিন্দু দের মধ্যে ও আসল নকল আছে ???
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Mizanur Rahman ২১ এপ্রিল, ২০১৭, ২:০২ পিএম says : 1
    I'm very interested in the paper daily I love this thank you so much.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ