Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৭, ১৪ বৈশাখ , ১৪২৪, ২৯ রজব ১৪৩৮ হিজরী।

সূচকের পতনে শেয়ারবাজারে লেনদেনেও ভাটা

| প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১২:০৭ এএম, ২১ এপ্রিল, ২০১৭

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : লেনদেনে খরা ও অব্যাহত দরপতন প্রবণতায় চলছে দেশের শেয়ারবাজার। প্রতিদিনই কমছে লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম। কমছে মূল্য সূচকও। দুই হাজার কোটি টাকায় পৌঁছে যাওয়া লেনদেন কমতে কমতে চলে এসেছে এখন ৬০০ কোটি টাকার ঘরে।
গত কয়েকদিনের ধারাবাহিকতায় সপ্তাহের পঞ্চম ও শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবারও প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) দরপতন ঘটেছে। লেনদেন খরা দেখা দেয়ায় ডিএসইতে ১১০ কার্যদিবসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন হয়েছে। এ নিয়ে টানা তিন কার্যদিবস শেয়ারবাজারে দরপতন ঘটল। আর শেষ ১২ কার্যদিবসের মধ্যে ১১ দিনই দরপতন হলো। এর আগে টানা আট কার্যদিবস পতনের পর গত সোমবার কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী ছিল শেয়ারবাজার। তবে একদিনের ব্যবধানেই তা আবার নিম্নমুখী হয়ে পড়ে।
দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মূল্যসূচক প্রায় আড়াই মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে এসেছে। বৃহস্পতিবারের পতনে সূচক এ অবস্থানে নেমে এসেছে। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫৫২২ পয়েন্টে। যা চলতি বছরের ১২ ফেব্রæয়ারির মধ্যে বা ২ মাস ৯ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন। তবে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও বেড়েছে সিএসইতে।
উভয় পুঁজিবাজারে গতকাল মোট লেনদেন হয়েছে ৬১১ কোটি ৫৬ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। গত কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৭৩৭ কোটি ৫৬ লাখ। ডিএসইতে টাকার অঙ্কে মোট লেনদেন হয়েছে ৫৫৭ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। গত বুধবার লেনদেন হয়েছিল ৬৮৪ কোটি ১৮ লাখ টাকা। সুতরাং এক কার্যদিবসের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১২৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা। ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৩ দশমিক ৪৩ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৫২১ পয়েন্টে, ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৭ দশমিক ৪৭ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২৭২ পয়েন্টে এবং ৪ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট কমে ডিএসই-৩০ সূচক দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৫০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩২৪টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ১৯৬টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ৪৫টি কোম্পানির শেয়ার দর। এছাড়া টাকার অঙ্কে ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলোÑ শাহজিবাজার পাওয়ার, রিজেন্ট টেক্সটাইল, লংকা-বাংলা ফাইন্যান্স, ইসলামিক ফাইন্যান্স, সাইফ পাওয়ার, ডিডি কম, আইসিবি, বেক্সফার্মা, আরএসআরএম স্টিল এবং আইডিএলসি।
দর বৃদ্ধির শীর্ষে প্রধান ১০টি কো¤পানি হলোÑ আইসিবি, এশিয়া প্যাসিফিক ইন্সুরেন্স, ১ম প্রাইম ফইন্যান্স মি.ফা., ইস্টার্ন ইন্সুরেন্স, ব্রাক ব্যাংক, লিব্রা ইন্সুরেন্স, নর্দার্ন ইন্সুরেন্স, ম্যারিকো ইন্ডা., রহিম টেক্সটাইল ও কন্টিনেন্টাল। দাম কমার শীর্ষে প্রধান ১০টি কো¤পানি হলোÑ ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ইন্সুরেন্স, ইন্টার ন্যাশনাল লিজিং, প্রাইম ইন্সুরেন্স, মালেক স্পিনিং, আল আরাফাহ্ ইসলামি ব্যাংক, পেনিনসুলা চিটগাং, রিজেন্ট টেক্সটাইল, ফিনিক্স ইন্সুরেন্স ও হাক্কানি পাল্প। অন্যদিকে সিএসইতে মোট শেয়ার লেনদেনের পরিমাণ ৫৩ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। গত বুধবার লেনদেন হয়েছিল ৫৩ কোটি ৩৮ লাখ টাকার শেয়ার। সুতরাং সিএসইতে গত কার্যদিবসের চেয়ে শেয়ার লেনেদেন বেড়েছে ৩০ লাখ টাকার বেশি।
সিএসইর প্রধান সূচক সিএসসিএক্স ৭৬ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৩৬৮ পয়েন্টে, সিএএসপিআই সূচক ১২৬ দশমিক ২৬ পয়েন্ট কমে ১৭ হাজার ৯৭ পয়েন্টে, সিএসই-৫০ সূচক ৮ দশমিক ০০ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২৬৩ পয়েন্টে এবং সিএসই-৩০ সূচক ৮৩ দশমিক ১৪ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ২৯৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৪১টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৬টির, কমেছে ১৫৬টির এবং কোনও পরিবর্তন হয়নি ২৯টি কোম্পানির শেয়ার দর। টাকার অঙ্কে সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানি হলোÑ ফার কেমিক্যাল, বেক্সফার্মা, মবিল যমুনা, বিএসআরএম স্টিল, বিডি কম, ইসলামিক ফাইন্যান্স, শাহজিবাজার পাওয়ার, তুংহাই নিটিং, এইচএফএল এবং এক্সিম ব্যাংক।

 


দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।