Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

পাকিস্তানে ‘ধর্মদ্রোহী’কে হত্যা করল বোরকাধারী তিন মহিলা

| প্রকাশের সময় : ২২ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : ইসলামের অবমাননার অভিযোগে এবার পাকিস্তানে শিয়া সম্প্রদায়ের এক মানুষকে হত্যা করেছে বোরকা পরা তিন মহিলা। পুলিশকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর শিয়ালকোটে বৃহস্পতিবার এই হত্যাকান্ড ঘটেছে। ফজল আব্বাস নামের ওই ব্যক্তি শিয়ালকোটের শিয়াদের নেতা। তিনি একজন আধ্যাত্মিক ধর্মীয় গুরু হিসেবেও পরিচিত। নিহত ফজল আব্বাসের বিরুদ্ধে ২০০৪ সালে ইসলামের অবমাননার অভিযোগ আনা হয়েছিল। এরপর তিনি পাকিস্তান ছেড়ে পালিয়ে ডেনমার্কে গিয়ে আশ্রয় নেন। কিন্তু স¤প্রতি তিনি আবার পাকিস্তানে ফিরে আসেন।
পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার বোরকা পরা তিন মহিলা ফজল আব্বাসের কাছে আসেন। তারা ফজল আব্বাসকে তাদের জন্য দোয়া করতে বলেন। এরপর একজন মহিলা পিস্তল বের করে সোজা তার বুকে গুলি চালান।
পুলিশ বলছে, তিন মহিলার একজন এই হত্যার জন্য অপর দুইজনকে প্ররোচিত করে। তাদের সঙ্গে কোনো ধর্মীয় গোষ্ঠীর কোনো সম্পর্ক খুঁজে পায়নি বলে দাবি করছে পুলিশ। কিন্তু ফজল আব্বাসের পরিবার অভিযোগ করেছেন, একটি কট্টরপন্থী ধর্মীয় গোষ্ঠী এই তিন মহিলাকে এই হত্যায় উস্কানি দিয়েছে। তাদের উস্কানিতেই এরা ফজল আব্বাসকে খুঁজে বের করে হত্যা করে।
নিহত ফজল আব্বাসের চাচাতো ভাই আজহার হোসেন পুলিশকে জানিয়েছেন, ধর্ম অবমাননার অভিযোগ থেকে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের জন্যই তিনি দেশে ফিরেছিলেন। স্থানীয় আদালত তাকে ধর্ম অবমাননার মামলায় জামিনও দিয়েছিল। পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে এ ধরনের হত্যাকান্ড প্রায়ই ঘটে। ১৯৯০ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৬৬ জনকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে হত্যা করা হয়েছে বলে জানাচ্ছে সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড সিকিউরিটি স্টাডিজ বলে একটি প্রতিষ্ঠান।
পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার বিরুদ্ধে যে আইন আছে, তাতে সর্বোচ্চ শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদন্ড। মাত্র গতমাসেই মারদান শহরে মাশাল খান নামে এক ছাত্রকে একই অভিযোগ তুলে পিটিয়ে হত্যা করে জনতা। বøাসফেমি আইনের সংস্কারের কথা বলায় ২০১১ সালে পাঞ্জাব প্রদেশের গভর্নর সালমান তাসিরকে হত্যা করে তার দেহরক্ষী। সূত্র : বিবিসি

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন