Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

যৌথ মালিকানায় ৪ হাজার বাস চালু করতে চায় চীন : বাংলাদেশ-চীন ব্যবসায়ীদের বৈঠক

| প্রকাশের সময় : ২৮ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থান ও বিনিয়োগ পরিস্থিতি অনুকূলে থাকায় বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীনের ব্যবসায়ীরা। তারা বলেছেন, বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে ৪ হাজার ইলেকট্রিক বাস বাংলাদেশে চালু করতে চায় চীন। তবে এর জন্য বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদেরও এগিয়ে আসতে হবে। এতে করে যৌথ মালিকানায় তারা এ দেশে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে।
গতকাল ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) নেতৃবৃন্দ ও অল-চায়না ফেডারেশন অব ইন্ডাস্ট্রি এন্ড কমার্সের (এসিএফআইসি) একটি বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের বৈঠকে চীনা ব্যবসায়ীরা এ কথা বলেন। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ ও চীনের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন এসিএফআইসি-র এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান চ্যুয়ান ঝেঝু।
চীনা ব্যবসায়ীরা জানান, বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের উন্নয়নে কাজ করতে চায় চীন। পাশাপাশি বাংলাদেশের সাথে যৌথ মালিকানায় যোগাযোগ খাতেও বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীনা ব্যবসায়ী সংগঠন। এছাড়াও বাংলাদেশের এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ বিশেষ করে ডেইরি খাতে বিনিয়োগে ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীনা ব্যবসায়ীরা।
এসিএফআইসি’র এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান চ্যুয়ান ঝেঝু বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ রয়েছে। পাশাপাশি সরকারের ও ব্যবসায়ী সংগঠনের সহযোগিতা থাকলে আমরা অতিদ্রæতই বাংলাদেশে বিনিয়োগে আসতে পারবো। বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত মি. মা মিং চিয়াং বলেন, চীনে বর্তমানে ১৩৭ কোটি ৩৫ লাখ লোকের বাস। এর মধ্যে ২৭ মিলিয়ন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। বর্তমানে চীনের ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রায় ৮০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে বেসরকারি ও ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলো। তিনি বলেন, চীনের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীদের যদি এক শতাংশ বাংলাদেশে বিনিয়োগে করে, সেক্ষেত্রে তাদের বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া সম্ভব হবে না।
এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় সারা বিশ্ব এখন আশাবাদী। আমাদের জিডিপি’র গ্রোথ ৭ পয়েন্ট অতিক্রম করেছে। পাশাপাশি মাথাপিছু আয়ও বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বিনিয়োগের কথা বলা হচ্ছে। তিনি বলেন, চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বাংলাদেশ সফরের সময় বাংলাদেশের উন্নয়নে সঙ্গী হওয়ার কথা বলেছেন, এ ব্যবসায়ী সংগঠনের আগমনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের সাথে চীনের সম্পর্ক আরো উন্নয়ন হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ