Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ব্যর্থতা আড়াল করতেই সরকার হাওরকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করছে না : দুদু

| প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০১৭, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : সরকার নিজের ব্যর্থতা আড়াল করতেই উজানের পানির ঢলে বিধ্বস্ত হাওর অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করছে না বলে অভিযোগ করেছেন শামসুজ্জামান দুদু। গতকাল শনিবার সকালে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান এই অভিযোগ করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, আপনি নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী নন, তারপরও বলেছি, হাওর অঞ্চলে কী অবস্থা, কী বিপর্যয় আপনি সেখানে যান, সচক্ষে দেখুন। এসব ব্যর্থতাকে ঢাকার জন্য আপনি হয়ত দেশবাসী ও বিশ্ববাসীকে আড়াল করতে চান বলেই দুর্গত এলাকা ঘোষণা করছেন না।
দুর্গত এলাকা ঘোষণা করলে দেশের বিবেকবান মানুষ, রাজনৈতিক দলের বাইরেও অনেক মানুষ আছে যারা এই ত্রাণ তৎপরতায় নামতে পারে। সারা বিশ্ব এগিয়ে আসবে যদি দুর্গত অঞ্চল ঘোষণা করেন। দুর্গত অঞ্চল ঘোষণা করা হলেই সরকার খুবই খারাপ হয়ে যাবে, এটা ভাবার কোনো কারণ নেই।
উজানের পানির ঢল ও অতিবৃষ্টিতে সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজারের হাওর এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কারণে ওই অঞ্চলকে বিএনপি দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি করে আসছে।
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ ন্যাপ মহানগর শাখার উদ্যোগে ‘হাওরের মহাবিপর্যয়কে জাতীয় দুর্যোগ ঘোষণা এবং হাওরবাসীকে রক্ষায় দ্রæত রাষ্ট্রীয় পদক্ষেপ গ্রহণের’ দাবিতে এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে সাবেক ছাত্র নেতা শামসুজ্জামান দুদু বলেন, আওয়ামী লীগের সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক এমনিতেই একটু বেশি কথা বলেন। আমাদের অগ্রজ, ছাত্রজীবনে আমাদের বড় ভাই, তখন থেকেই লক্ষ্য করতাম বেশি কথা বলা যে খারাপ দিক কিছু কিছু অসংলগ্ন কথাও তিনি বলে ফেলেন।
আমরা তাকে অনুরোধ করবো, দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে। মানুষ মরছে, মানুষ কষ্টে আছে কিন্তু এমন কোনো সমালোচনা আপনার মুখ থেকে আসা উচিৎ না সরকারি দলের অন্যতম পুরোধা হিসেবে যেটা দায়িত্বজ্ঞানহীন পর্যায়ে যায়। আমরা আপনার কাছ থেকে ভালো বক্তব্য আশা করি, কান্ডজ্ঞান সম্পন্ন বক্তব্য আশা করি এবং দায়িত্বশীলতা আশা করি।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর লোকজন বলেছেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া সেখানে (হাওর অঞ্চল) যাননি। ওই বিপর্যয়ের পর বিএনপির নেতা, ২০ দলের নেতা দেশনেত্রীর নির্দেশে সেখানে গিয়েছিলেন। এই দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি বিএনপি মহাসচিবই করেছিলেন।
তার আগে সেখানে কোনো সরকারি দল, ১৪ দলের নেতারা কেউ যাননি। কোনো রকম বক্তব্য দেননি। আজকে যেকথা বলেছেন আমাদের নেত্রীর সম্পর্কে, এটা আপত্তিকর। এই বক্তব্য প্রত্যাহার করার জন্য আমি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে অনুরোধ জানাচ্ছি। মহানগর ন্যাপের সভাপতি শহীদুন্নবী ডাবলুর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে জাতীয় দলের সভাপতি সৈয়দ এহসানুল হুদা, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মহাসচিব মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, কল্যাণ পার্টির সহ-সভাপতি শাহিদুর রহমান তামান্না প্রমুখ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্যর্থতা

২১ নভেম্বর, ২০২১
৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ